ঢাকা, রবিবার, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ১৯ মে ২০২৪, ১০ জিলকদ ১৪৪৫

ব্যাংকিং

বৈধ পথে রেমিটেন্স বাড়ানোর তাগিদ অর্থ প্রতিমন্ত্রীর

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪১৮ ঘণ্টা, মার্চ ১২, ২০১৮
বৈধ পথে রেমিটেন্স বাড়ানোর তাগিদ অর্থ প্রতিমন্ত্রীর বক্তব্য রাখছেন অর্থ প্রতিমন্ত্রী আব্দুল মান্নান/ ছবি: সুমন শেখ

ঢাকা: অর্থ প্রতিমন্ত্রী আব্দুল মান্নান বলেছেন, দেশে বৈধ পথে রেমিটেন্স আনতে সরকার ও ব্যাংকিং সেক্টরসহ সবাইকে একযোগে কাজ করতে হবে। প্রবাসীদের কষ্টার্জিত অর্থ দেশে পাঠানোর মাধ্যমে শুধু ব্যক্তির পরিবার নয়, দেশও উপকৃত হয়।

সোমবার (১২ মার্চ) সন্ধ্যায় গুলশানের লেকশোর হোটেলে মাস্টারকার্ড ও ওয়্যারবী ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশনের সহযোগিতায় তৃণমূল জনগোষ্ঠীর রেমিটেন্স ব্যবস্থাপনা সংক্রান্ত প্রশিক্ষণ কর্মসূচির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এসব কথা বলেন তিনি।

অনুষ্ঠানে মাস্টারকার্ড ও ওয়্যারবী ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশন অংশীদারিত্বের মাধ্যমে তৃণমূল জনগোষ্ঠীর রেমিটেন্স ব্যবহার, সঞ্চয় ও বিনিয়োগ সংক্রান্ত প্রশিক্ষণ কর্মসূচি শুরু করার ঘোষণা দেয়।

এ কর্মসূচির আওতায় বিদেশ থেকে রেমিটেন্স প্রেরণকারী অভিবাসী শ্রমিকদের পাঠানো অর্থের ওপর নির্ভরশীল ৩৫ হাজার ব্যক্তি তথা পরিবারের সদস্যদের প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে।  

মাস্টারকার্ড এর আগেও ওয়্যারবী ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশনের সহযোগিতায় কর্মসূচিটির প্রথম পর্যায়ে অভিবাসী শ্রমিকদের পাঠানো রেমিটেন্সের ওপর নির্ভরশীল ১৫ হাজার ব্যক্তি বা পরিবারের সদস্যকে প্রশিক্ষণ দিয়েছে।

কর্মসূচির দ্বিতীয় পর্যায়ে মাস্টারকার্ড এবার আরো ৩৫ হাজার ব্যক্তিকে এই প্রশিক্ষণ দেবে। এভাবে মাস্টারকার্ড রেমিটেন্স ব্যবস্থাপনার ওপর দেশে মোট ৫০ হাজার মানুষকে প্রশিক্ষণ দিতে যাচ্ছে।

মাস্টারকার্ডের রেমিটেন্স ব্যবস্থাপনা সংক্রান্ত এই কর্মসূচির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য রাখেন প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব ড. আহমেদ মুনিরুছ সালেহীন।  

অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জাতীয় সংসদের অভিবাসন ও উন্নয়ন বিষয়ক সংসদীয় ককাস মো. ইসরাফিল আলম। তিনি বলেন, বাংলাদেশের শ্রমিকদের বিশ্বে সুনাম আছে। তাদের অর্জিত অর্থ দেশে পাঠানো নিরাপদ করতে এ জাতীয়  প্রশিক্ষণ গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে। সরকার এ খাতে সব ধরনের সহযোগিতা করছে।

অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় সংসদের অভিবাসন ও উন্নয়ন বিষয়ক সংসদীয় ককাসের সদস্য অ্যাডভোকেট হোসনে আরা লুৎফা ডালিয়া এমপি; সংসদের অভিবাসন ও উন্নয়ন বিষয়ক সংসদীয় ককাসের সদস্য জেবুন্নেসা আফরোজ এমপি এবং সংসদের অভিবাসন ও উন্নয়ন বিষয়ক সংসদীয় ককাসের সদস্য মেহজাবীন খালেদ এমপি।  

এছাড়াও মাস্টারকার্ড বাংলাদেশের কান্ট্রি ম্যানেজার সৈয়দ মোহাম্মদ কামাল এবং ওয়্যারবী ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান সৈয়দ সাইফুল হকসহ উভয় প্রতিষ্ঠানের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে মাস্টারকার্ড বাংলাদেশের কান্ট্রি ম্যানেজার সৈয়দ মোহাম্মদ কামাল বলেন, বিদেশ থেকে আসা রেমিটেন্স ব্যবস্থাপনার ওপর ইতিমধ্যে সফলতার সাথে ১৫ হাজার লোককে প্রশিক্ষণ দিতে পেরে অত্যন্ত গর্বিত। এই কর্মসূচির দ্বিতীয় পর্যায়ে আমরা আরো ৩৫ হাজার মানুষকে রেমিটেন্স এর ব্যবহার এবং সঞ্চয় ও বিনিয়োগের বিষয়ে প্রশিক্ষণ দিতে যাচ্ছি। এ প্রশিক্ষণ কর্মসূচির ফলে রেমিটেন্স বা প্রবাসী আয়ের ওপর নির্ভরশীল পরিবারগুলোর সদস্যরা বিদেশ থেকে আসা অর্থের ব্যবহার সম্পর্কে সচেতন হয়ে উঠবে।

ওয়্যারবী ডেভেলপমেন্ট ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান সৈয়দ সাইফুল হক বলেন, এ প্রশিক্ষণ কর্মসূচি সাফল্যের সাথে গ্রামের জনগণকে বিদেশ থেকে আসা অর্থ তথা রেমিটেন্স ব্যবস্থাপনা এবং এটির সঠিক ব্যবহার সম্পর্কে প্রশিক্ষিত করে তুলবে।  

বাংলাদেশ সময়: ২০১৪ ঘণ্টা, মার্চ ১২, ২০১৮
এসএ/এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।