ঢাকা, সোমবার, ৯ বৈশাখ ১৪৩১, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ১২ শাওয়াল ১৪৪৫

বিএনপি

‘আ’লীগ নয়, বিএনপির প্রতিপক্ষ যেন পুলিশ’

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২২২২ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৩, ২০১৮
‘আ’লীগ নয়, বিএনপির প্রতিপক্ষ যেন পুলিশ’

ঢাকা: ‘সরকারি দলের প্রার্থীরা পুলিশ প্রটোকল নিয়ে প্রচার কাজ চালাচ্ছেন। আর বিএনপির প্রার্থীর অনুসারী নেতা-কর্মীদের পুলিশ ধরছে, পেটাচ্ছে, গ্রেফতার করছে। আওয়ামী লীগ নয়, আমাদের প্রতিপক্ষ যেন পুলিশ।’

বিএনপির যুগ্ম-মহাসিচব সৈয়দ মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল বৃহস্পতিবার (১৩ ডিসেম্বর) বিকেলে নির্বাচন ভবনে সাংবাদিকদের কাছে এ মন্তব্য করেন। এর আগে বিএনপির ভিাইস চেয়ারম্যান সেলিমা রহমানের নেতৃত্বে একটি প্রতিনিধি দল নির্বাচন কমিশনে সাক্ষাৎ করার জন্য আসে।

 

তবে তাদের ২৫ মিনিট বসিয়ে রেখে সাক্ষাৎ না দেওয়ার অভিযোগ তোলেন আলাল। তিনি বলেন, ‘আমাদের ২৫ মিনিট বসিয়ে রেখে সাক্ষাৎ করলো না নির্বাচন কমিশন। এতেই বোঝা যায়, লেভেল প্লেয়িং ফিল্ডের কী অবস্থা। কমিশনের কেউ আমাদের সঙ্গে দেখা না করায় আমরা লিখিত দাবি জমা দিয়েছি। ’ 
 
বিএনপির যুগ্ম-মহাসচিব বলেন, ৫৮টি ওয়েবসাইট বন্ধ করার পর খুলে দেওয়া হলো। পরবর্তীতে আবারও বন্ধ করা হয়েছে। এগুলোর মধ্যে বিএনপির ওয়েবসাইটও (www.bnpbangladesh.com) বন্ধ করা হয়েছে। আমরা ওয়েবসাইটটি খুলে দেওয়ার ব্যবস্থা নিতে বলেছি।

তিনি বলেন, ফরিদপুর-২ ও ৩ আসন, ঢাকা-১ ও ২, নরসিংদী-২, ময়মনসিংহ-২, ৩ ও ১১, মাগুরা-১ ও ২, কুষ্টিয়া-৩, টাঙ্গাইল-৭, সিরাজগঞ্জ-২ ও ৩, পটুয়াখালী-১, মৌলভীবাজার-৩, ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২ ও ৩, নেত্রকোনা-৩, মানিকগঞ্জ-১ ও ৩, চাঁদপুর-৪, নওগাঁ-২, রাজশাহী-৪ ও ৬ আসনে আমাদের কর্মীদের অনেককে গ্রেফতার, মামলা ও আটক করা হয়েছে। প্রার্থীর সমর্থকরা পুলিশ ও সন্ত্রাসীদের হামলার শিকার হচ্ছে। অবিলম্বে এসব বন্ধ করার দাবি জানানো হয়েছে।
 
জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের প্রার্থীদের নিরাপত্তা চেয়েও আবেদন করা হয়েছে বলে জানান আলাল।
 
গত ১০ ডিসেম্বর নির্বাচনের প্রতীক বরাদ্দ হওয়ার পর এ পর্যন্ত সহিংসতায় ৪ জন নিহত হয়েছেন।
 
আগামী ৩০ ডিসেম্বর ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে।
 
বাংলাদেশ সময়: ১৭১৭ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৩, ২০১৮
ইইউডি/এইচএ/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।