ঢাকা, সোমবার, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৭ মে ২০২৪, ১৮ জিলকদ ১৪৪৫

বাজেট

আমরা হারব না, দেশের মানুষকেও ঠকাব না: অর্থমন্ত্রী

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪০৩ ঘণ্টা, জুন ১, ২০২৩
আমরা হারব না, দেশের মানুষকেও ঠকাব না: অর্থমন্ত্রী

ঢাকা: সবাইকে নিয়ে সবার কল্যাণের কথা মাথায় রেখে এবারের বাজেট করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল।

বৃহস্পতিবার (১ জুন) সকালে রাজধানীর গুলশানে নিজ বাসভবনে গণমাধ্যমকর্মীদের সঙ্গে আলাপকালে তিনি এ কথা বলেন।

অর্থমন্ত্রী বলেন, আমরা কিন্তু এগিয়ে গেছি আমাদের লক্ষ্যমাত্রার দিকে। আমি মনে করি, এবারও আমরা সেটাই অর্জন করব। আমরা ঠকব না, আমরা হারব না এবং দেশের মানুষকেও আমরা ঠকাব না, আমরা হারাব না।

তিনি বলেন, আমি বাজেট সম্পর্কে যতবার আলোচনা করেছি, প্রত্যেকবার একটি কথা বলেছি যে, উইন-উইন সিচুয়েশন; আমিও গরিবের সন্তান ছিলাম। এক সময় গরিব ছিলাম। আমি জানি গরিব হওয়াটা কত কষ্টের। সুতরাং আমি কাউকে গরিব করে এখানে অর্জন কিছু করব, এটা আমরা চাই না। আমরা সবার জন্য বাজেটটি করেছি।

আপনি যে লক্ষ্য নিয়ে অর্থমন্ত্রী হয়েছিলেন, নিশ্চয়ই বাংলাদেশকে একটা জায়গায় দেখতে চেয়েছিলেন, সরকারের শেষ বাজেটে এসে আপনার কী মনে হয় সেই লক্ষ্যে পৌঁছাতে পেরেছেন? সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নে অর্থমন্ত্রী বলেন, সেই লক্ষ্যে পৌঁছেছি আমরা। আমি সন্তুষ্ট এবং আল্লাহর প্রতি কৃতজ্ঞ। আমি মনে করি, আপনারাও আমার সঙ্গে একমত হবেন দেশের অর্থনীতি এখন সুদৃঢ় অবস্থানে।

কোনো কিছু করতে না পারার আক্ষেপ আছে কি না— জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘কিছু বাকি নেই। ’

দরিদ্রদের জন্য বাজেটে কী থাকবে জানতে চাইলে আ হ ম মুস্তফা কামাল বলেন, আমাদের সোশ্যাল সেফটি নেট কত বড়! এটাতে একদম দুই হাত উজাড় করে দিয়ে আমরা সাহায্য করছি।

গত দেড় দশকে বর্তমান সরকার বাংলাদেশের টেকসই উন্নয়নের ভিত্তিপ্রস্তর তৈরি করে দিয়েছে। এর ধারাবাহিকতায় স্মার্ট বাংলাদেশ ৪টি মূলস্তম্ভের ওপর প্রতিষ্ঠিত হবে। স্মার্ট সিটিজেন, স্মার্ট গভর্নমেন্ট, স্মার্ট সোসাইটি এবং স্মার্ট ইকোনমি।

দেশের ৫৩তম ও আওয়ামী লীগ সরকারের ২৪তম বাজেট আজ বৃহস্পতিবার (১ জুন) বিকেল ৩টার দিকে জাতীয় সংসদে উপস্থাপন করা হবে। ২০২৩-২৪ অর্থবছরে ৭ লাখ ৬১ হাজার ৭৮৫ কোটি টাকার প্রস্তাবিত বাজেট পেশ করবেন অর্থমন্ত্রী আ হ ম মুস্তফা কামাল। বাজেটটি ২০২২-২৩ অর্থবছরের চেয়ে ১২ শতাংশ বেশি।

অর্থ মন্ত্রণালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, এবারের বাজেটের মূল দর্শন হলো- ২০৪১ সালের মধ্যে সুখী-সমৃদ্ধ উন্নত স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণ। যুদ্ধ ও মহামারি আক্রান্ত অর্থনীতির চ্যালেঞ্জ, মূল্যস্ফীতি নিয়ন্ত্রণ, আইএমএফের শর্ত বাস্তবায়ন, নির্বাচনী বছরের চাপ, খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করা, বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ ধরে রাখা, রাজস্ব আদায়ে ঘাটতি, বাজেট ঘাটতির অর্থায়ন, উন্নয়ন কর্মসূচি চলমান রাখাসহ প্রবৃদ্ধি ধরে রাখার মতো নানামুখী চাপের মধ্যে এই ‘স্মার্ট ইকোনমির’ বাজেট প্রণয়ন করতে যাচ্ছে সরকার।

২০২৩-২৪ অর্থবছরের বাজেটটি হবে স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণের পথে প্রথম বাজেট। এবারের বাজেটে সঙ্গত কারণেই স্বাস্থ্য, কৃষি, খাদ্য উৎপাদন ও ব্যবস্থাপনাকে অধিক গুরুত্ব দেওয়া হচ্ছে। অর্থবছরের পুরো সময় জুড়েই থাকবে সরকারের নানা ধরনের খাদ্যবান্ধব কর্মসূচি এবং বাড়ানো হয়েছে সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচির আওতা।

অর্থ মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, বাজেটকে অধিকতর অংশগ্রহণমূলক করতে অর্থ বিভাগের ওয়েবসাইটে বাজেটের সব তথ্যাদি ও গুরুত্বপূর্ণ দলিল যে কোনো ব্যক্তি বা প্রতিষ্ঠান পাঠ ও ডাউনলোড করতে পারবে এবং দেশ বা বিদেশ থেকে ওয়েবসাইটের মাধ্যমে ফিডব্যাক ফরম পূরণ করে বাজেট সম্পর্কে মতামত ও সুপারিশ পাঠানো যাবে। প্রাপ্ত সব মতামত ও সুপারিশ বিবেচনা করা হবে। জাতীয় সংসদ কর্তৃক বাজেট অনুমোদনের সময়ে ও পরে তা কার্যকর করা হবে।

বাংলাদেশ সময়: ১৪০২ ঘণ্টা, জুন ০১,২০২৩
জিসিজি/এমএমজেড

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।