ঢাকা, সোমবার, ২ বৈশাখ ১৪৩১, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ০৫ শাওয়াল ১৪৪৫

ক্রিকেট

ভালোভাবে ঘুরে দাঁড়াবেন মুশফিক, বিশ্বাস লিটনের

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট (স্পোর্টস) | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১১৪১ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২৪
ভালোভাবে ঘুরে দাঁড়াবেন মুশফিক, বিশ্বাস লিটনের

২৭ রানেই রংপুর রাইডার্সের তিন উইকেট তুলে নিয়েছিল কুমিল্লা ভিক্টোরিয়ান্স। কিন্তু এরপর জিমি নিশাম অনেকটা একা হাতে টেনে নেন দলকে।

৪৯ বলে ৯৭ রান করে শেষ অবধি অপরাজিত থাকেন তিনি। এর মধ্যে তিনি ঝড় তোলেন শেষ ওভারে গিয়ে।

টি-টোয়েন্টিতে নিজের পঞ্চম ম্যাচ খেলতে নামা তরুণ পেসার মুশফিক হাসানের ওই ওভারে ২৮ রান নেন নিশাম। ৪ ওভারে ৭২ রান দিয়ে বিপিএলের সবচেয়ে খরুচে বোলিংয়ে সবার উপরে নাম এখন মুশফিকের।  

কুমিল্লা অধিনায়ক লিটন দাসের সামনে সুযোগ ছিল অভিষিক্ত পেসার রোহানাত দৌলা বর্ষণকে বোলিংয়ে আনার। ৩ ওভারে ২১ রান দিয়ে এক উইকেট নিয়েছিলেন তিনি। দুজনের মধ্যে শেষ ওভারে মুশফিককে বেছে নেওয়ার কারণ কী?

লিটন বলেন, ‘আমাদের দলে পেসারই ৩ জন- মুশফিক, রাসেল আর বর্ষণ। আজকে প্রথম ম্যাচ হিসেবে বর্ষণ যে ব্রেক-থ্রুটা দিয়েছে, আমি মনে করি এটা স্বপ্নের মতো। আপনি এত বড় একটা দলে সেমিফাইনালের মতো ম্যাচ খেলবেন এবং এসে ভালো বোলিং করবেন। এটা অ্যামেজিং অনূর্ধ্ব-১৯ একটা ছেলের কাছ থেকে। আপনার কাছে তো অপশনও নেই। ’

‘পেস বোলিংয়ের দিকেই যেতে হবে। আমার মনে হয়েছে মুশফিক অনেকগুলো ম্যাচও খেলেছে। তবে নির্দিষ্ট দিনে যে আপনি সবসময় ভালো খেলবেন, তাও নয়। নিশাম ভালো ব্যাটার। তাকে (মুশফিক) ভালোভাবে পড়েছে। আমার মনে হয় সে (মুশফিক) সালাউদ্দিন (কুমিল্লার কোচ) স্যারের সঙ্গে কথা বলবে। উন্নতির তো অনেক জায়গা আছে। শেষ ৪ ওভার অনেক রান চলে গেছে। আমরা বসব, আলোচনা করব। আমার মনে হয়, সে অনেক ভালোভাবে ঘুরে দাঁড়াবে। ’

শুরুতে ভালো বল করলেও পরে গিয়ে সেটি ধরে রাখতে পারেননি কুমিল্লার বোলাররা। তাদের দলের দেশি দুই পেসারও তরুণ, এজন্যই আগে বোলিংয়ের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন বলে জানান লিটন। তার আশা, মুশফিক তাদের ম্যাচ জেতাবেন পরের সুযোগে।

লিটন বলেন, ‘টস জিতে বোলিং নেওয়ার সবচেয়ে বড় কারণ এটাই ছিল। কারণ আমি জানি, মোস্তাফিজ নাই। তাই ডিফেন্ড করতে গেলে একটু হলেও ব্যাকফুটে যেতে পারি। কারণ আমাদের দুজন নতুন বোলার। নতুন বললাম কারণ মুশফিক খুব বেশি ম্যাচ খেলেনি আর বর্ষণ তো প্রথম ম্যাচ। তো এদিক দিয়ে আমরা ঠিক করেছিলাম, যেহেতু ব্যাটিং আমাদের শক্তিশালী তাই আমরা রান তাড়ায় যাব। ’

‘আর সবাই দেখেছে উইকেট অনেক ভালো। আমি বোলারদেরও কৃতিত্ব দিতে চাই। তাদের কারণে পাওয়ার প্লেতে আমরা ডমিনেট করেছি। শেষ দিকে যদি আমরা আরও ভালো বল করতাম, তাহলে ম্যাচটা এত বড় হতো না। কারণ ১৬০ রান ভিন্ন বলের খেলা। আমার মনে হয়, সবাইকেই কৃতিত্ব দিতে হয়। দলীয় খেলা। এক দিন খারাপ খেলবেন, এক দিন ভালো খেলবেন৷ মুশফিকও যদি পরে সুযোগ পায়, আমাদের ম্যাচ উইনার হবে। ’

বাংলাদেশ সময়: ১১৪০ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৭, ২০২৪
এমএইচবি/এমএইচএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।