ঢাকা, সোমবার, ১৩ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৭ মে ২০২৪, ১৮ জিলকদ ১৪৪৫

ক্রিকেট

শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে বরিশালকে হারিয়ে দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে ঢাকা

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, স্পোর্টস | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬২৯ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৪, ২০২০
শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে বরিশালকে হারিয়ে দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে ঢাকা বরিশালকে হারিয়ে দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে ঢাকা। ছবি: শোয়েব মিথুন

বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপের এলিমিনেটরের শ্বাসরুদ্ধকর ম্যাচে জয় পেয়েছে বেক্সিমকো ঢাকা। ফরচুন বরিশালকে ৯ রানে হারিয়ে দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার ম্যাচে উত্তীর্ণ হয়েছে মুশফিকের ঢাকা।

অন্যদিকে টুর্নামেন্ট থেকে বিদায় নিল তামিমের বরিশাল।

মিরপুরে আগে ব্যাট করতে নেমে ইয়াসির আলী রাব্বির অর্ধশতকে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৮ উইকেটে ১৫০ রান করে মুশফিকুর রহিমের দল। জবাবে ব্যাট করতে নেমে আফিফ হোসেনের অর্ধশতকের পরও ৯ উইকেটে ১৪১ রানে থেমে যায় বরিশালের ইনিংস।

১৫১ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ২৭ রানের মধ্যে প্যাভিলিয়নে ফিরে যান সাইফ হাসান (১২) ও পারভেজ হোসেন ইমন (২)। ঢাকার নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ের রান তুলতে পারছিল না বরিশালের ব্যাটসম্যানরা। ওভার প্রতি রান রেট বাড়তে থাকে। তামিম ইকবাল ২৮ বলে ২২ রানের ধীর গতির ইনিংস খেলে দলীয় ৫৯ রানের মাথায় বিদায় নেন।

চতুর্থ উইকেটে তৌহিদ হৃদয়ের সঙ্গে জুটিতে বাঁধেন আফিফ হোসেন। ব্যাট চালিয়ে রান তুলতে থাকেন আফিফ। তবে তৌহিদ হৃদয় সেই তাল মিলিয়ে চলতে পারেননি। তৌহিদ ১২ ও সোহরাওয়ার্দী শুভ শূন্য রানে পরপর দুই বলে আউট হলে ৯৬ রানে ৫ উইকেট হারিয়ে আবার চাপে পড়ে বরিশাল।

দলের জয়ের আশা বাঁচিয়ে রাখে আফিফের ব্যাট। ৩২ বলে অর্ধশতকে করেন তিনি। তবে ৩৫ বলে ৫৫ রান করে আফিফ আউট হলে বরিশালের জয়ের আশা প্রায় শেষ হয়ে যায়। মাহিদুল ইসলাম অঙ্কন (১৫) চেষ্টা করলেও শেষ পর্যন্ত পারেননি।

শেষ ওভারে জয়ে জন্য দরকার ছিল ২০ রান। তবে মুক্তার আলীর করা সেই ওভারে ১০ রানের বেশি তুলতে পারেনি বরিশাল। ৯ উইকেটে ১৪১ রানেই আটকে যায় বরিশালের ইনিংস।

ঢাকার মুক্তার আলী ও শফিকুল ইসলাম ৩টি, আল আমিন ২টি এবং রবিউল ইসলাম রবি ১টি উইকেট নেন।

এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই গত ম্যাচের সেঞ্চুরিয়ান নাঈম শেখের (৫) উইকেট হারায় ঢাকা। এরপর আল আমিন রানের খাতা খোলার আগে বিদায় নেন। সাব্বির রহমান ৮ রানে আউট হলে ২২ রানে ৩ উইকেট হারিয়ে শুরুতেই চাপে পড়ে যায় ঢাকা।

চতুর্থ উইকেট জুটিতে মুশফিক ও ইয়াসির আলী রাব্বি এই চাপ সামাল দেওয়ার চেষ্টা করেন। ৫০ রানের জুটি গড়ে বিপর্যয় কিছুটা দূর করেন তারা। তবে রান তোলার গতি ছিল ধীর। মুশফিক ৩০ বলে ৪৩ রান করে আউট হন।

আকবর আলী ৯ বলে ২১ রান করে সাজঘরে ফেরেন। তবে একপ্রান্ত আগলে রেখে রানের চাকা সচল রাখেন ইয়াসির আলী। ৩৯ বলে অর্ধশতক তুলে নেন তিনি। ইয়াসির ৪৩ বলে ৫৪ রান করে আউট হন।

বরিশালের মেহেদি হাসান মিরাজ ও কামরুল ইসলাম রাব্বি ২টি এবং তাসকিন আহমেদ ও সোহরাওয়ার্দী শুভ ১টি করে উইকেট নেন।

মঙ্গলবার (১৫ ডিসেম্বে) দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে ম্যাচে প্রথম কোয়ালিফায়ার গাজী গ্রুপ চট্টগ্রাম ও জেমকন খুলনা ম্যাচের জয়ী দলের বিপক্ষে খেলবে বেক্সিমকো ঢাকা।

বাংলাদেশ সময়: ১৬২৮ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৪, ২০২০
আরএআর/এমএমএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।