ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ৩০ মে ২০২৪, ২১ জিলকদ ১৪৪৫

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিতে মনিটরিংয়ের চেয়ে জরুরি সচেতনতা 

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮৩০ ঘণ্টা, জুন ৭, ২০২৩
নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিতে মনিটরিংয়ের চেয়ে জরুরি সচেতনতা  ...

চট্টগ্রাম: চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশের (সিএমপি) কমিশনার কৃষ্ণ পদ রায় বলেছেন, সবার জন্য নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত করতে হলে সবার আগে প্রয়োজন নিজেদের মধ্যে সচেতনতা। শুধু মনিটরিং বা মোবাইল কোর্ট দিয়ে নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত করা যাবে না।

খাদ্য উৎপাদন করা প্রতিষ্ঠানগুলোকেও বিষয়টি অনুধাবন করতে হবে।

বুধবার (৭ জুন) বিকেলে নগরের স্টেশন রোডে হোটেল সৈকতে আয়োজিত 'স্মার্ট বাংলাদেশ বিনির্মাণে নিরাপদ খাদ্যের ভূমিকা' শীর্ষক এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

সিএমপি কমিশনার বলেন, আমরা নিজেদের দায়িত্বের চেয়ে অন্যের দায়িত্ব নিয়ে বেশি সচেতন। কিন্তু এইটুকু আমরা বুঝতে চেষ্টা করি না, অন্যের বিষয়ে সচেতন না হয়ে নিজের কি করণীয় তা আগে জানা জরুরি। পরিবার হোক কিংবা প্রতিষ্ঠান যেকোন জায়গায় নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিতের ব্যাপারে নিজেদের সচেতন হতে হবে। শুধু লাভের জন্য ব্যবসা করা এমন মানসিকতা প্রকাশ করার সুযোগ নেই। মনে রাখতে হবে মানুষ হিসেবে সকলেরই নিরাপদ খাদ্য গ্রহণের অধিকার আছে।  

বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ সচিব আব্দুন নাসের খানের সভাপতিত্বে ও চট্টগ্রাম নিরাপদ খাদ্য অফিসার ফারহান ইসলামের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার (উন্নয়ন) আনোয়ার পাশা।  

সভাপতির বক্তব্যে বাংলাদেশ নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ সচিব আব্দুন নাসের খান বলেন, নিরাপদ খাদ্য কর্তৃপক্ষ গঠন করা হয়েছে মাত্র কয়েকবছর আগে। এরই মধ্যে প্রতিষ্ঠানটি বিভিন্ন কাজ করেছে। কিন্তু নিরাপদ খাদ্য বিষয়ে প্রতিষ্ঠানটির প্রতিষ্ঠাকালীন যে আইন ছিল তা যুগোপযোগী নয়। এ আইনের সংশোধন জরুরি। আমার বিষয়টি মন্ত্রনালয়কে অবহিত করেছি। কিছু কিছু বিষয় সংশোধন জরুরি৷ 

তিনি বলেন, প্রতিবছর রেস্টুরেন্ট লাখ লাখ টাকা জরিমানা করা হয়। কিন্তু এতে কোনো পরিবর্তন আসছে না। আমরা মনে করি না মোবাইল কোর্ট একমাত্র সমাধান। আমরা এর বিকল্প হিসেবে সচেতনতার প্রতি জোর দিচ্ছি। তবে কোনো প্রতিষ্ঠান বার বার একই ভুল করলে অবশ্যই তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এ সময় ভবিষ্যৎ স্মার্ট বাংলাদেশে সাধারণ জনগণের জন্য নিরাপদ খাদ্য নিশ্চিত করতে বিভিন্ন অ্যাপের মাধ্যমে খাদ্য উৎপাদনকারী প্রতিষ্ঠানগুলোকে মনিটরিংয়ের কথা জানান তিনি।

অনুষ্ঠানে সবার জন্য নিরাপদ খাদ্য বিষয়ে উন্মুক্ত আলোচনা অনুষ্ঠিত হয়। এতে বিভিন্ন সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধিরা তাদের মতামত প্রকাশ করেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৮২০ ঘণ্টা,  জুন ৭, ২০২৩
এমআর/পিডি/টিসি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।