ঢাকা, বুধবার, ১৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৯ মে ২০২৪, ২০ জিলকদ ১৪৪৫

চট্টগ্রাম প্রতিদিন

যৌন নির্যাতনে অতিষ্ঠ হয়ে কারখানার মালিককে খুন, কর্মচারীর কারাদণ্ড

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯৪৯ ঘণ্টা, এপ্রিল ১৮, ২০২৪
যৌন নির্যাতনে অতিষ্ঠ হয়ে কারখানার মালিককে খুন, কর্মচারীর কারাদণ্ড প্রতীকী ছবি

চট্টগ্রাম: নগরের চান্দগাঁও থানার বহদ্দারহাট হক মাকের্টে সেলাই মেশিনের কারখানায় যৌন নির্যাতনে অতিষ্ঠ হয়ে মালিককে হত্যার মামলায় মো. ইউনুছ (৩৫) নামে এক কর্মচারীকে ১০ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।  

বৃহস্পতিবার (১৮ এপ্রিল) চট্টগ্রামের চতুর্থ অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ শরীফুল আলম ভূঁঞার আদালত এই রায় দেন
মো. ইউনুছ, রাঙ্গুনিয়া উপজেলার মধ্যম সরফভাটা আলী আকবর মুন্সী বাড়ীর শহর মুল্লুকের ছেলে।

আদালতের বেঞ্চ সহকারী ওমর ফুয়াদ বাংলানিউজকে বলেন, ৯ জনের সাক্ষ্য-প্রমাণের ভিত্তিতে আসামি মো. ইউনুছকে ৩০৪ ধারায় ১০ বছর সশ্রম কারাদণ্ডের আদেশ দিয়েছেন আদালত। ৩০২ ধারায় অভিযোগ গঠন করা হলেও ৩০২ ধারা থেকে ৩০৪ ধারায় রুপান্তর করে ১০ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত।

আসামি জামিনে গিয়ে পলাতক রয়েছে। তার বিরুদ্ধে সাজা পরোয়ানামূলে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে।  

মামলার নথি থেকে জানা যায়, ২০০৯ সালের ১২ জুন নগরের চান্দগাঁও বহদ্দারহাট এলাকায় হক মার্কেট ইউনিট-২ এর শাহান শাহ জিয়াউল হক ইঞ্জিনিয়ারিং সেলাই মেশিন কারখানায় ২০০৯ সালের ১২ জুন কামাল উদ্দিনকে হত্যা করা হয়। এ ঘটনায় চান্দগাঁও থানায় কামাল উদ্দিনের ছেলে মো. সাদেক একটি হত্যা মামলা করেন। কামাল উদ্দিনকে হত্যার দায়ে কর্মচারী ইউনুছকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। হত্যার দায় স্বীকার করে ইউনুছ আদালতে জবানবন্দি দেন। জবানবন্দিতে ইউনুছ জানিয়েছে, মালিক কামাল তাকে নিয়মিত যৌন নির্যাতন করতেন। ২০০৯ সালের ১২ জুন রাতে কামাল তাকে কারখানায় নিয়ে ৩ বার যৌন নির্যাতন করেন। নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে ইউনুছ কামালকে ধাক্কা দেন। কামাল আবার তাকে ধাক্কা দিয়ে ফেলে তার গায়ে সেলাই মেশিন ছুঁড়ে মারেন। কিন্তু সেটা ইউনুছের শরীরে লাগেনি। এরপর তিনি ইউনুছকে গলাটিপে হত্যা করতে চান। পরে ইউনুছ কামালের গালে কামড় দেন এবং গলা চেপে ধরলে শ্বাসরোধ হয়ে কামালের মৃত্যু হয়। মামলার তদন্ত শেষে ২০১০ সালের ৩ মার্চ পুলিশ আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। ২০১১ সালের ৬ জানুয়ারি ইউনুছের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করে বিচার শুরু হয়।  

বাংলাদেশ সময়: ১৯৪৫ ঘণ্টা, এপ্রিল ১৮, ২০২৪ 
এমআই/পিডি/টিসি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।