ঢাকা, রবিবার, ২০ ফাল্গুন ১৪৩০, ০৩ মার্চ ২০২৪, ২১ শাবান ১৪৪৫

দিল্লি, কলকাতা, আগরতলা

নির্বাচন সামনে রেখে প্রচারণায় ব্যস্ত ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪১৬ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১০, ২০২৩
নির্বাচন সামনে রেখে প্রচারণায় ব্যস্ত ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী

আগরতলা (ত্রিপুরা): ত্রিপুরা রাজ্যের পরবর্তী বিধানসভা নির্বাচনের দিনক্ষণ ঘোষণা করা শুধু সময়ের ব্যাপার মাত্র। যেকোনো দিন ভারতের নির্বাচন কমিশন পরবর্তী নির্বাচনের দিনক্ষণ ঘোষণা করতে পারে।

বিষয়টিকে লক্ষ্য রেখে প্রশাসন ও নির্বাচন কমিশন তাদের কাজকর্ম চালিয়ে যাচ্ছে।
 
পরবর্তী বিধানসভা নির্বাচনকে কেন্দ্র করে রাজ্যের ক্ষমতাসীন দল বিজেপির মধ্যে যতটুকু তৎপরতা লক্ষ্য করা যাচ্ছে, তার ধারে-কাছেও নেই বিরোধী দলগুলো। নির্বাচন উপলক্ষে এখন নানাভাবে প্রচার কর্মসূচি চালিয়ে যাচ্ছে দলটি। বাড়ি বাড়ি প্রচার কর্মসূচি শুরু করে দিয়েছে বিজেপি।  

মঙ্গলবার (১০ জানুয়ারি) নিজ বিধানসভা কেন্দ্র টাউন বড়দোয়ালীর বিভিন্ন এলাকায় জন-সম্পর্ক কর্মসূচি পালন করেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী অধ্যাপক মানিক সাহা। এই কর্মসূচির অংশ হিসেবে তিনি বাড়ি বাড়ি গিয়ে বিভিন্ন বয়সী ভোটারদের সঙ্গে কথা বলেন। বর্তমান সরকারের সময়ে জনগণের কল্যাণে কী ধরনের কাজকর্ম করা হয়েছে, তার বিস্তারিত তথ্য  সংবলিত কাগজ তোলে দেওয়া হয় ভোটারদের হাতে।

প্রচারে বেরিয়ে মানুষের সঙ্গে কথাবার্তা বলার অভিজ্ঞতার বিষয়ে নিজের নিজের অভিমত ব্যক্ত করতে গিয়ে মানিক সাহা বলেন, বিজেপি এবং প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির উপর মানুষের আস্থা রয়েছে। মোদি দেশকে সুরক্ষিত রেখেছেন, সাধারণ মানুষের জন্য খাবার পানির সুবন্দোবস্ত করেছেন। আবাস যোজনা ও কৃষকদের জন্য নানা প্রকল্প নিয়ে এসেছেন।

তিনি বলেন, ত্রিপুরা রাজ্য সরকার ও মানুষের কল্যাণে কাজ করছেন মোদি, তাই রাজ্যের জনগণ খুশি। তবে কাজের শেষ নেই। তাই মানুষের জন্য একের পর এক ভালো কাজ করে যাচ্ছে বর্তমান সরকার। ফলে এবারের বিধানসভা নির্বাচনে বিজেপি ৬০টি আসনের মধ্যে ৫০টির বেশি আসনে জয়ী হবে।
 
এদিন বাড়ি বাড়ি প্রচারকালে তার সঙ্গে ছিলেন দলের সদর শহরাঞ্চল জেলা কমিটির সভাপতি অসীম ভট্টাচার্যসহ অন্যান্য নেতারা। এদিন ছিল মুখ্যমন্ত্রীর বাড়ি বাড়ি প্রচার কর্মসূচির দ্বিতীয় দিন।

বাংলাদেশ সময়: ১৪০৯ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১০, ২০২৩ 
এসসিএন/আরএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।