ঢাকা, মঙ্গলবার, ৩ বৈশাখ ১৪৩১, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ০৬ শাওয়াল ১৪৪৫

দিল্লি, কলকাতা, আগরতলা

ফের চোখ রাঙাচ্ছে করোনা, ভারতেও দিয়েছে হানা

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০০৪২ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২১, ২০২৩
ফের চোখ রাঙাচ্ছে করোনা, ভারতেও দিয়েছে হানা

কলকাতা: ফের নতুন করে চোখ রাঙাচ্ছে করোনা ভাইরাস। বিশ্বজুড়ে বাড়ছে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা।

বাড়ছে কোভিড মৃত্যুও।

গত ১৮ ডিসেম্বর ভারতে করনায় পাঁচজনের মৃত্যু হয়েছে। এরই মধ্যে কেরালার পাশাপশি উত্তরপ্রদেশে কোভিডের নতুন সংক্রমণের সন্ধান মিলেছে। কেরালায় কোভিডে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যু হয়েছে চারজনের এবং উত্তরপ্রদেশে একজনের। ১৮ ডিসেম্বরের তথ্য অনুযায়ী, ভারতে মোট শনাক্তের সংখ্যা ১ হাজার ৭০১ জন।

দেশটিতে কোভিড হানা ও মৃত্যু ঘটনায় জরুরি বৈঠকে বসে কেন্দ্রীয় সরকার। গত ১৮ ডিসেম্বর দেশটির কেন্দ্রীয় স্বাস্থ্যমন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে চিঠি পাঠিয়ে রাজ্যগুলোকে সতর্ক করা হয়েছে। আট দফা নির্দেশিকায় কোভিড নিয়ম মেনে চলার কথা বলা হয়েছে। কেন্দ্রীয় সরকারের সতর্কবার্তার পর, করোনার নতুন ভ্যারিয়েন্ট নিয়ে উদ্বিগ্ন পশ্চিমবঙ্গ সরকার।

এ নিয়ে বুধবার(২০ ডিসেম্বর) রাজ্যের প্রশাসনিক ভবন নবান্নে মুখ্যসচিবের সঙ্গে বৈঠক করেন স্বাস্থ্যসচিব। মুখ্যসচিবের কাছে জমা দেওয়া হয়েছে রিপোর্ট। শহরে এরই মধ্যেই শুরু হয়েছে বর্ষবরণের প্রস্তুতি। সামনেই রয়েছে ক্রিসমাস। তাই জনসমাগম নিয়ে উদ্বিগ্ন রাজ্য। এরমধ্যেই আবার কোভিড সতর্কতা। ভারতের কেরালায় প্রথম এ সাব-ভেরিয়েন্টে আক্রান্ত খবর সামনে আসে।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার (হু) পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে, করোনার বিএ২.৮৬ -র সাব ভ্যারিয়েন্টেরই একটি অংশ জেএন.১ ভ্যারিয়েন্ট। করোনার এ ভ্যারিয়েন্টকে  ‘ভ্যারিয়েন্ট অব ইন্টারেস্ট বলে। বর্তমানে যে ভ্যাকসিন রয়েছে, তা জেএন.১ ভ্যারিয়েন্টের সংক্রমণ ও মৃত্যু ঠেকাতে সক্ষম। তবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা জানিয়েছে, নতুন এ ভ্যারিয়েন্টের বিষয়ে আরও জানতে তার গতি প্রকৃতির ওপরে আপাতত কড়া নজর রাখা হচ্ছে।

কয়েক মাস আগে, সিঙ্গাপুর বিমানবন্দরে স্ক্রিনিং এর সময়, কয়েকজন ভারতীয়ের মধ্যে এ সাব ভ্যারিয়েন্টটি পাওয়া যায়। এরপর ভারতের কেরল রাজ্যে জিনোম সিকোয়েন্সিংয়ের মাধ্যমে প্রথম কেস ধরা পড়ে। তবে রাজ্যটির স্বাস্থ্যমন্ত্রী বীনা জর্জ বলেছেন, এখনও উদ্বেগের কারণ নেই। পরিস্থিতি খতিয়ে দেখা হচ্ছে। দিল্লির গঙ্গারাম হাসপাতালের চিকিৎসক উজ্জ্বল প্রকাশ  বলেছেন,  আরও সতর্ক হতে হবে। আমি মনে করি না যে শুধু সতর্ক থাকা ছাড়া আতঙ্কিত হওয়ার বা অতিরিক্ত কিছু করার আছে।  

তবে শুধু ভারত নয়, বিশ্বজুড়েই নতুন করে চোখ রাঙাচ্ছে করোনার নতুন ভেরিয়েন্ট।  এরই মধ্যে সিঙ্গাপুরে লাফিয়ে বাড়ছে আক্রান্তের সংখ্যা। বিমানবন্দরে প্রবেশের ক্ষেত্রে সবার মাস্ক পরা এবং কোভিডের দুটি টিকা নেওয়া বাধ্যতামূলক বলে জানিয়েছে সিঙ্গাপুরের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। সিঙ্গাপুরের দেখানো পথে হেঁটে মাস্ক বাধ্যতামূলক করেছে ইন্দোনেশিয়া ও মালয়েশিয়া বিমানবন্দরেও। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার পক্ষ থকে বলা হয়েছে, কোভিড দেখা গেছে এমন দেশগুলোকে আরও নজরদারি বাড়ানোর পরামর্শ দেওয়া হয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ০০৪২ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২১, ২০২৩
ভিএস/জেএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।