ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৫ বৈশাখ ১৪৩১, ১৮ এপ্রিল ২০২৪, ০৮ শাওয়াল ১৪৪৫

দিল্লি, কলকাতা, আগরতলা

থ্রিলিং কেটে গেছে, এখন দর্শকের মার্কশিট নিতে অপেক্ষায় মোশারফ

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২৩৩৩ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৬, ২০২৪
থ্রিলিং কেটে গেছে, এখন দর্শকের মার্কশিট নিতে অপেক্ষায় মোশারফ

কলকাতা: কলকাতার কোয়েস্ট মলের মাল্টিপ্লেক্সে হয়ে গেল মোশারফ করিম অভিনীত হুব্বা। সোমবার (১৬ জানুয়ারি) শহরের সন্ধ্যায় ছিল হুব্বার স্পেশাল স্ক্রিনিং।

 

এদিন অতিথি দর্শকদের যথেষ্ট বাহবা কুড়িয়েছেন হুব্বার অভিনেতা মোশারফ। এখন দর্শকদের মার্কশিটের ওপর অপেক্ষায় তিনি। অভিনেতা বলেছেন, কাজ করে আমি তো খুব এক্সাইটেড। এখন দর্শকদের কেমন লাগে জানার অপেক্ষায়।

তবে আমার চরিত্রটি অসাধারণ। বহুস্তরের একটি চরিত্র। গল্পটা যখন থেকে শুনি তখন থেকে আমি এক্সাইটেড ছিলাম যে, কবে শুটিং শুরু হবে ভেবে। শুটিং হলো, কাজ শেষ হয়েছে। প্রেক্ষাগৃহে আসছে।

এদিন দুই বাংলা সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে মোশারফ বলেছেন, চরিত্রটি নিয়ে থ্রিল যেমন ছিল, তেমনি ভয়েও ছিলাম। চরিত্রটা মানসিকভাবে নেওয়াটাই একরকম চ্যালেঞ্জ ছিল। ভাবতাম, কীভাবে চরিত্রটি টানব। এই চরিত্রের মনস্তত্ত্ব কীভাবে পর্দায় ফুটিয়ে তুলব। তবে সবকিছু মিলিয়ে আমি খুশি। আমার বিশ্বাস, দর্শকরা হুব্বা পছন্দ করবেন।

তবে তিনি কি হুব্বার জীবনী পছন্দ করেন? অভিনেতা বলেছেন, না মোটেও নয়। হুব্বাকে পছন্দ করলে হুব্বা হয়ে যেতে হবে। তবে হ্যাঁ, অভিনয় হিসেবে চরিত্রটি আমার খুবই পছন্দের। একটা লোভনীয় চরিত্র। সবসময় এ ধরনের চরিত্র পাওয়া যায় না। আমার যথেষ্ট পছন্দের।

কেমন লাগলো পশ্চিমবঙ্গের কলাকুশলীদের সঙ্গে কাজ করে? মোশারফ জানায়, শিল্পীকে কখনো ভাগ করা যায় না। শিল্পী এ দেশ, সে দেশ বলে কিছু হয় না। শিল্পীকে কখনো ভাগ করা যায় না। শিল্পী শিল্পীই। তবে শিল্প এবং শিল্পীর অনেক ভাগ আছে। তারা এক এক ধরনের হয়। তবে আমি সব ধরনের অভিনয় করতে ভালোবাসি। হিরো, ভিলেন বা ওনাকে কমেডিয়ান! এভাবে আমি নিজেকে ভাগ করতে পারি না। অভিনেতাকে সুযোগ দিলে সে সবকিছু করতে পারে।

ছবির পরিচালক ব্রাত্য বলেছেন, সিনেমা বানানো হয়ে গেছে। ফলে এখন নার্ভাস হয়ে কি করব। এখন দর্শকের প্রতিক্রিয়ার জন্য আমি উন্মুখ হয়ে আছি। মোশারফের বিষয়ে তিনি বলেন, উনিতো দুই বাংলায় পরিচিত। উনার মত অভিনেতাকে আমার ছবিতে পাওয়া আমার সৌভাগ্য। উনি বাঙালির ভালোবাসা ডিজার্ভ করে। এত ডিসিপ্লিন যুক্ত অভিনেতা সহজে মেলে না। দর্শকরা কাজ দেখলেই বুঝতে পারবেন। মোশারফ একজন অনবদ্য অভিনেতা। আমার একজন অত্যন্ত প্রিয়।

মূলত সত্য ঘটনা অবলম্বনে তৈরি হয়েছে হুব্বা। ‘হুব্বা’ ওরফে শ্যামল দাসের চরিত্র। পশ্চিমবঙ্গের হুগলি জেলার বাম আমলের একজন নামজাদা ত্রাস। নব্বইয়ের দশকের শেষদিকে আবির্ভাব হয় হুব্বা শ্যামল নামে একজন গ্যাংস্টারের। সে ছিল হুগলি জেলার অপরাধ জগতের একচ্ছত্র ক্ষমতার অধিকারী। খুন জখম ড্রাগ পাচার ইত্যাদি বহু অপরাধে অপরাধী ছিলেন হুব্বা। অজস্র পুলিশ কেস ছিল তার নামে। একসময় সে ভোটে দাঁড়াতেও চায়। ২০১১ সালে হুব্বা শ্যামলের মরদেহ ভেসে ওঠে ওই জেলার বৈদ্যবাটির খালে।

সেই চরিত্রের অভিনয় করেছেন জনপ্রিয় অভিনেতা মোশারফ করিম। হুব্বা কলকাতার পাশাপাশি মুক্তি পাচ্ছে বাংলাদেশেও ৷

বাংলাদেশ সময়: ২৩৩৩ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৬, ২০২৪
ভিএস/এসএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
welcome-ad