ঢাকা, বুধবার, ১১ বৈশাখ ১৪৩১, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ১৪ শাওয়াল ১৪৪৫

দিল্লি, কলকাতা, আগরতলা

তৃণমূল ছাড়লেন বিধায়ক তাপস

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪৫৫ ঘণ্টা, মার্চ ৪, ২০২৪
তৃণমূল ছাড়লেন বিধায়ক তাপস

কলকাতা: কিছু দিন আগেই দলের সঙ্গে সব সম্পর্ক ছিন্ন করেছেন তৃণমূলের মুখপাত্র কুনাল ঘোষ। এবার দল ছাড়লেন কলকাতার বরানগরের তৃণমূল বিধায়ক তাপস রায়।

 

জানা যাচ্ছে, বিজেপিতে যোগ দিতে পারেন তিনি এবং উত্তর কলকাতা আসন থেকে বিজেপির প্রার্থী হতে পারেন তার বিরুদ্ধে যিনি পুরোনো দলে থাকাকালীন তার চিরশত্রু ছিলেন। অর্থাৎ তৃণমূলের বর্তমান সাংসদ সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে বিজেপি প্রার্থী হতে পারেন তাপস। যদিও উত্তর কলকাতার জন্য সজল ঘোষের নাম প্রায় চূড়ান্ত করেছে বিজেপি। তবে তাপস প্রার্থী বিষয়ে নিজে কোনো মন্তব্য করেননি।

সোমবার (৪ মার্চ) দল ছাড়ার জন্য তাপস ক্ষোভের সাথে বলেছেন, সন্দেশ খালির নারকীয় ঘটনা আমাকে দংশন করছিল। দলে থেকে চাপের কিছু বলতে পারিনি। নারী সম্মান এবং যৌন নির্যাতন কোথায় গেছে, সন্দেশখালি সেই ঘটনা, বাংলার লজ্জা। আমি এ নিয়ে নিজের পরিবার, প্রতিবেশির প্রশ্নে মুখে বারবার পড়েছি। অথচ মুখ্যমন্ত্রী বিধান সভায় দাঁড়িয়ে সন্দেশখালি ত্রাস শেখ শাহাজানের বাড়িতে ইডির রেড নিয়ে, কেন্দ্রীয় সংস্থাটির ওপর ক্ষোভ প্রকাশ করছেন। অন্যের বাড়িতে রান্নাঘরে মসলার কৌট উল্টে ইডি রেডের নিন্দায় সরব হতে পারেন। ‌ অথচ আমার বাড়িতে, ইচ্ছে করে লেলিয়ে দেওয়া ইডি রেড নিয়ে ৫২ দিন হয়ে গেল নেত্রীর মুখে তা নিয়ে কথা নেই।

এছাড়া বিবিধ বিষয়ে দল নিয়ে তার ক্ষোভ প্রকাশ করেন। এদিন তিনি আরও বলেছেন, আমি রাজ্যের সেই বিধায়ক, যে ১৯৯৬ সাল থেকে বিধানসভা থেকে মেডিকেল বিল বাবদে একটা পয়সাও তুলিনি। আমি, আমার মা, স্ত্রী বা ছেলেমেয়ের জন্য এক পয়সাও নিইনি। আর আমার বাড়িতে ইডি হানা দিল? কে দেওয়ালেন? এদিন তিনি নাম না করে উত্তর কলকাতা বর্তমান সাংসদ সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে অভিযোগ করেছেন।

তাপসের তথ্য মতে, সাংসদ সুদীপ বন্দ্যোপাধ্যায় এবং বাড়িতে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেটের (ইডি) হানা, এই দুটি বিষয় নিয়ে তৃণমূলের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করলেন। তার এক ঘনিষ্ঠর কথায়, তাপস দাদার বাড়িতে ইডি তল্লাশি হলো ১২ ঘণ্টা ধরে। দল সে বিষয়ে একবারও মুখ খুলল না। অথচ শেখ শাহজাহানের বাড়িতে ইডির অভিযান বা মেয়র ফিরহাদ হাকিমের বাড়িতে তল্লাশির নামে সিবিআই কীভাবে সব তছনছ করেছে, রান্নাঘরে গিয়ে মসলার কৌটা পর্যন্ত উল্টে দিয়েছেন তদন্তকারীরা, সে বিষয়ে স্বয়ং মুখ্যমন্ত্রী প্রকাশ্যে বিবৃতি দিলেন। একই যাত্রায় এই পৃথক ফল কেন হবে?

প্রসঙ্গত, গ্রেপ্তারের পর শাহজাহানকে ছয় বছরের জন্য সাসপেন্ড করেছে দল।  

২০১১ সাল থেকে টানা তিনবার বরানগরের বিধায়ক তাপস রায়। মাঝে তার একবার মন্ত্রিত্ব পাওয়া নিয়ে জল্পনা শুরু হলেও শেষবেলায় কারও অঙ্গুলিহেলনে তা বাতিল হয়ে যায়।  

তাপসের ঘনিষ্ঠরা মনে করেন, এর পেছনে সুদীপের হাত ছিল। এরপর উত্তর কলকাতায় দলের জেলা সভাপতিত্ব থেকে তাপসকে সরিয়ে সুদীপকে সেই পদে আনা হয়েছিল। তাপসকে দেওয়া হয়েছিল দমদমে।

পাশপাশি রাজ্যে গত বিধানসভা নির্বাচনে সুদীপের স্ত্রী, একদা অভিনেত্রী নয়না বন্দ্যোপাধ্যায়কে উত্তর কলকাতার চৌরঙ্গি আসনে প্রার্থী করা হয়। সে সময় তাপস বলেছিলেন, সুদীপের স্ত্রীরা এখানে টিকিট পায়। আর আমি সেখানকার বাসিন্দা হলেও আমাকে পাঠানো হয় বরানগরে। সব মিলিয়ে ক্ষোভ জমছিল তাপসের। এবার দল ছাড়লেন মমতার কাছের আরেক সৈনিক।

বাংলাদেশ সময়: ১৪৫৫ ঘণ্টা, মার্চ ০৪, ২০২৪
ভিএস/এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।