ঢাকা, শনিবার, ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৫ মে ২০২৪, ১৬ জিলকদ ১৪৪৫

দিল্লি, কলকাতা, আগরতলা

পশ্চিমবঙ্গে গ্রেপ্তার বেঙ্গালুরু ক্যাফে বিস্ফোরণের দুই সন্দেহভাজন

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫২৩ ঘণ্টা, এপ্রিল ১২, ২০২৪
পশ্চিমবঙ্গে গ্রেপ্তার বেঙ্গালুরু ক্যাফে বিস্ফোরণের দুই সন্দেহভাজন

কলকাতা: দুই সন্দেহভাজন সন্ত্রাসবাদীকে পশ্চিমবঙ্গ থেকে গ্রেপ্তার করল দেশটির জাতীয় তদন্তকারী সংস্থা এনআইএ। বেঙ্গালুরুর রামেশ্বরম ক্যাফেতে বিস্ফোরণের ঘটনায় তাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

তারা হলেন, আব্দুল মাতিন তাহা (৩০) এবং মুশাবীর হুসেন সাজিব (৩০)।

রাজ্য পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, বেশ কয়েকদিন ধরে তারা পশ্চিমবঙ্গে আত্মগোপনে ছিলেন। পূর্ব মেদিনীপুর জেলা থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়েছে। শুক্রবার (১২ এপ্রিল) অভিযানে এনআইএর সঙ্গে ছিল তেলেঙ্গানা, কেরালা, কর্ণাটক ও পশ্চিমবঙ্গ পুলিশের একটি দল।

গত ১ মার্চ ভারতের বেঙ্গালুরুর রামেশ্বরম ক্যাফেতে  বিস্ফোরণ হয়। অভিযোগ, ক্যাফেতে ঢুকে বিস্ফোরক বোঝাই ব্যাগ রেখে আসেন এক ব্যক্তি। তাতে টাইমার সেট করা ছিল। এক ঘণ্টা পর সেই বিস্ফোরণে ১০ জন আহত হন।  

পুলিশ জানায়, বিস্ফোরণে আইইডি ব্যবহার করা হয়েছিল। এরপর ৩ মার্চ ঘটনার তদন্তভার হাতে নেয় এনআইএ। ২৭ দিন পর ওই ঘটনার অন্যতম মূল অভিযুক্ত মুজ়াম্মিলকে গ্রেপ্তার করে এনআইএ।

মুজ়াম্মিল গ্রেপ্তারের পর থেকেই অন্য দুই সন্দেহভাজনের খোঁজ শুরু করে এনআইএ। তাদের দাবি, মুজ়াম্মিলের সঙ্গে এ ঘটনায় সক্রিয়ভাবে যুক্ত ছিলেন আব্দুল মাতিন ও সাজিব। মুজাম্মিলকে বিস্ফোরক সরবরাহ করেছিলেন সাজিব। আর পুরো বিস্ফোরণ ঘটনার ছক কষেছিল মাতিন।

এনআইএ সূত্রে খবর, বিস্ফোরণের পর প্রথমে তারা আসামে গা ঢাকা দেয় এবং পরে তথ্যগোপন করে ছদ্মনামে পশ্চিমবঙ্গে আত্মগোপনে যান তারা। আব্দুল মাতিন তাহা ও মুশাবীর হুসেন সাজিব কর্ণাটকের শিবামোগা জেলার তির্থাল্লির বাসিন্দা। ঘটনার প্রায় দেড় মাস পর গ্রেপ্তার হলেন তারা।

বাংলাদেশ সময়: ১৪০০ ঘণ্টা, এপ্রিল ১২, ২০২৪
ভিএস/আরএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।