ঢাকা, বুধবার, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২২ মে ২০২৪, ১৩ জিলকদ ১৪৪৫

অর্থনীতি-ব্যবসা

২৬৭ কোটি ৮৪ লাখ টাকার ভোজ্য তেল ও ডাল কিনবে সরকার

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫০৩ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ৮, ২০২৩
২৬৭ কোটি ৮৪ লাখ টাকার ভোজ্য তেল ও ডাল কিনবে সরকার

ঢাকা: আসন্ন রমজান উপলক্ষে ট্রেডিং কর্পোরেশন অব বাংলাদেশের (টিসিবি) জন্য এক কোটি ১০ লাখ মেট্রিক টন সয়াবিন তেল এবং ৮ হাজার মেট্রিক টন ডাল কিনবে সরকার। এতে মোট খরচ হবে ২৬৭ কোটি ৮৪ লাখ ৮০ হাজার ৩২০ টাকা।

বুধবার (৮ ফেব্রুয়ারি) কৃষিমন্ত্রী ড. আবদুর রাজ্জাকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সরকারি ক্রয় সংক্রান্ত মন্ত্রিসভা কমিটির বৈঠকে এ সংক্রান্ত প্রস্তাবের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে। এর মধ্যে ১৯৪ কোটি ৫৬ লাখ ৮০ হাজার টাকা তেল ও ৭৩ কোটি ২৮ লাখ ৩২০ টাকার ডাল কেনায় খরচ হবে।  

বৈঠক শেষে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব সাঈদ মাহবুব খান সাংবাদিকদের জানান, আজকের সভায় মোট ১৫টি এজেন্ডা ছিল। যার সবগুলো পাস হয়েছে। তার মধ্যে ৮টি নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়ের। বিদ্যুতের দুটি, বাণিজ্যের দুটি। স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় ও সড়ক পরিবহন মন্ত্রণালয় ও স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের সুরক্ষা সেবা বিভাগের একটি করে।

তিনি বলেন, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অধীন টিসিবি কর্তৃক স্থানীয়ভাবে সরাসরি ক্রয়পদ্ধতিতে এক কোটি ১০ লাখ লিটার সয়াবিন তেল কেনার অনুমোদন দিয়েছে সরকার। মেঘনা এডিবল ওয়েল রিফাইনারি লি. থেকে ১৯৪ কোটি ৫৬ লাখ ৮০ হাজার টাকায় এ তেল কেনা হবে। প্রতি লিটার তেলের দাম পড়বে ১৭৬ টাকা ৮৮ পয়সা। যার আগের দাম ছিল ১৭৭ টাকার মতো।

তিনি আরও বলেন, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের অপর এক প্রস্তাবে টিসিবি কর্তৃক আন্তর্জাতিক উন্মুক্ত দরপত্র পদ্ধতিতে ৮ হাজার মেট্রিক টন মুসুর ডাল কিনবে সরকার। আরবেল বাকলিয়াত হুবুবাত সান্তিক এএস কুমহুরিয়াত, বুলরেন্ট, নং ৭৩/৪, ৩৩২৮১, কাজনলি, মেরসিন, তুরস্কের স্থানীয় এজেন্ট ঢাকার বিআইএনকিউ এর কাছ থেকে ৭৩ কোটি ২৮ লাখ ৩২০ টাকায় এ ডাল কেনা হবে। প্রতিকেজি ডালের দাম পড়বে ৯১. ৬০ টাকা।

এর আগে গত বৃহস্পতিবার (১ ফেব্রুয়ারি) টিসিবির জন্য এক কোটি ১০ লাখ লিটার সয়াবিন তেল কেনার অনুমতি দেওয়া হয়। এতে খরচ পড়বে ১৯৪ কোটি ৭০ লাখ টাকা।

তার আগের বৃহস্পতিবার (১৯ জানুয়ারি) একই প্রতিষ্ঠানের জন্য ১০ লাখ মেট্রিক টন সয়াবিন তেল এবং ৮ হাজার মেট্রিক টন ডাল কেনা অনুমতি দিয়েছে সরকার। এতে মোট খরচ হচ্ছে ২৭৪ কোটি ১৬ লাখ ৯৬ হাজার ৮০০ টাকা। এর মধ্যে সাং সিং এডিবল ওয়েল লি. থেকে ২০০ কোটি ২০ লাখ টাকায় এ তেল কেনা হচ্ছে। আগের মূল্য ছিল প্রতি লিটার ১৮৪ দশমিক পাঁচ টাকা। বর্তমানে ১৮২ টাকায় বিক্রির প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। আর ভারতের ইটিসি এগ্রো প্রোসেসিং প্রাইভেট লিমিটেডের (ঢাকায় স্থানীয় এজেন্ট: এক্সপোর্ট ট্রেডিং বিডি লিমিটেড) কাছ থেকে ৭৩ কোটি ৯৬ লাখ ৯৬ হাজার ৮০০ হাজার টাকায় এ ডাল কেনা হয়।

তারও আগে গত বছরের ২৯ ডিসেম্বর টিসিবির জন্য দুই কোটি ৯ লাখ লিটার সয়াবিন তেল কেনার অনুমোদন দেওয়া হয়। এতে খরচ হবে ৩৩৪ কোটি ৩৯ লাখ ২৩ হাজার টাকা। সয়াবিন তেলের পাশাপাশি সরকারি এই প্রতিষ্ঠানটির জন্য ৮১ কোটি ৫৭ লাখ ৬৮ হাজার টাকা দিয়ে ৮ হাজার টন মশুর ডাল কেনার অনুমোদন দেওয়া হয়।

ফ্যামিলি বা পরিবার কার্ডের আওতায় একজন কার্ডধারীর কাছে সর্বোচ্চ দুই লিটার সয়াবিন তেল, দুই কেজি মসুর ডাল, এক কেজি চিনি ও দুই কেজি পেঁয়াজ বিক্রি করছে টিসিবি। প্রতি লিটার সয়াবিন তেল ১১০ টাকা, প্রতি কেজি চিনি ৫৫ টাকা, ১ কেজি মসুর ডাল ৬৫ টাকা ও প্রতি কেজি পেঁয়াজ ২০ টাকা দরে বিক্রি করা হচ্ছে। তবে পেঁয়াজ বিক্রি হচ্ছে শুধু সিটি করপোরেশন এলাকা ও টিসিবির আঞ্চলিক কার্যালয়-সংশ্লিষ্ট জেলাগুলোয়।

বাংলাদেশ সময়: ১৫০৩ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ৮,২০২৩
জিসিজি/এমএমজেড

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।