ঢাকা, বুধবার, ১১ বৈশাখ ১৪৩১, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ১৪ শাওয়াল ১৪৪৫

শিক্ষা

কুয়েট, চুয়েট ও রুয়েটের সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষায় উপস্থিতি ৮০ শতাংশ

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬১৫ ঘণ্টা, মার্চ ৩, ২০২৪
কুয়েট, চুয়েট ও রুয়েটের সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষায় উপস্থিতি ৮০ শতাংশ

খুলনা: খুলনা প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (কুয়েট), চট্টগ্রাম প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (চুয়েট) এবং রাজশাহী প্রকৌশল ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় (রুয়েট)-এর ২০২৩-২০২৪ শিক্ষাবর্ষের প্রথম বর্ষ/লেভেল-১ বিএসসি ইঞ্জিনিয়ারিং, বিইউআরপি ও বিআর্ক কোর্সের সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

রোববার (৩ মার্চ) সকাল ১০টা থেকে দুপুর ১টা ৪৫ মিনিট পর্যন্ত কুয়েট, চুয়েট ও রুয়েট ক্যাম্পাসে একসঙ্গে সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে অনুষ্ঠিত হয়।

চুয়েট, কুয়েট ও রুয়েটে ২২ হাজার ৮৭০ পরীক্ষার্থীর মধ্যে ১৮ হাজার ৩৭৮ পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে, যার শতকরা হার ৮০.৩৫। কুয়েট ক্যাম্পাসে ভর্তি পরীক্ষায় সাত হাজার ৬১৮ পরীক্ষার্থীর মধ্যে ছয় হাজার ১৮৯ উপস্থিত ছিল, যার শতকরা হার ৮১.২৪। চুয়েট ক্যাম্পাসে ভর্তি পরীক্ষায় সাত হাজার ৬৩০ পরীক্ষার্থীর মধ্যে ছয় হাজার ১৪৩ পরীক্ষার্থী উপস্থিত ছিল, যার শতকরা হার ৮০.৫১। রুয়েট ক্যাম্পাসে ভর্তি পরীক্ষায় সাত হাজার ৬২২ পরীক্ষার্থীর মধ্যে ছয় হাজার ৪৬ পরীক্ষার্থী উপস্থিত ছিল, যার শতকরা হার ৭৯.৩২।

কুয়েটে ভর্তি পরীক্ষা চলাকালীন বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মিহির রঞ্জন হালদার ও প্রো-ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. সোবহান মিয়া ভর্তি পরীক্ষার বিভিন্ন কক্ষসমূহ পরিদর্শন করেন। এ সময় ভর্তি পরীক্ষা কমিটির সভাপতি প্রফেসর ড. মো. আবুল কালাম আজাদসহ ভর্তি পরীক্ষা সংশ্লিষ্টরা উপস্থিত ছিলেন।  

কুয়েটের ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মিহির রঞ্জন হালদার সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে ভর্তি পরীক্ষা সম্পন্ন হওয়ায় সন্তোষ প্রকাশ করে সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষা কমিটির সদস্যসহ বিশ্ববিদ্যালয়ের সব শিক্ষক, কর্মকর্তা, কর্মচারী ও শিক্ষার্থী, আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্য, গণমাধ্যমকর্মী, ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থী ও তাদের অভিভাবকরাসহ সংশ্লিষ্ট সবাইকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।

উল্লেখ্য, ২০২৩-২০২৪ শিক্ষাবর্ষে সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষার মাধ্যমে কুয়েটের সিভিল ইঞ্জিনিয়ারিং (সিই) বিভাগে ১২০ জন, ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং (ইইই) বিভাগে ১২০ জন, মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং (এমই) বিভাগে ১২০ জন, কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (সিএসই) বিভাগে ১২০ জন, ইলেকট্রনিক্স অ্যান্ড কমিউনিকেশন ইঞ্জিনিয়ারিং (ইসিই) বিভাগে ৬০ জন, ইন্ডাস্ট্রিয়াল ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড ম্যানেজমেন্ট (আইইএম) বিভাগে ৬০ জন, লেদার ইঞ্জিনিয়ারিং (এলই) বিভাগে ৬০ জন, টেক্সটাইল ইঞ্জিনিয়ারিং (টিই) বিভাগে ৬০ জন, আরবান অ্যান্ড রিজিওনাল প্ল্যানিং (ইউআরপি) বিভাগে ৬০ জন, বিল্ডিং ইঞ্জিনিয়ারিং অ্যান্ড কনস্ট্রাকশন ম্যানেজমেন্ট (বিইসিএম) বিভাগে ৬০ জন, বায়োমেডিকেল ইঞ্জিনিয়ারিং (বিএমই) বিভাগে ৩০ জন, আর্কিটেকচার (আর্ক) বিভাগে ৪০ জন, ম্যাটেরিয়ালস্ সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (এমএসই) বিভাগে ৬০ জন, এনার্জি সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (ইএসই) বিভাগে ৩০ জন, কেমিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং (সিএইচই) বিভাগে ৩০ জন, মেকাট্রনিক্স ইঞ্জিনিয়ারিং (এমটিই) বিভাগে ৩০ জন এবং সংরক্ষিত (ক্ষুদ্র-নৃ-গোষ্ঠীদের ও চট্টগ্রাম বিভাগের পার্বত্য জেলার অধিবাসীদের জন্য) পাঁচটি আসনসহ তিনটি অনুষদের অন্তর্গত ১৬টি বিভাগে সর্বমোট এক হাজার ৬৫ জন শিক্ষার্থী ভর্তি করা হবে। চুয়েট ও রুয়েটে আসন সংখ্যা যথাক্রমে এক হাজার ২৩৫ ও ৯৩১টি।

ভর্তি সংক্রান্ত যাবতীয় তথ্য চুয়েট, কুয়েট, রুয়েটের সমন্বিত ভর্তি পরীক্ষার ওয়েবসাইটে (https://admissionckruet.ac.bd) পাওয়া যাবে।

বাংলাদেশ সময়: ১৬১৩ ঘণ্টা, মার্চ ০৩, ২০২৪
এমআরএম/আরবি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।