ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৫ মাঘ ১৪২৯, ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৭ রজব ১৪৪৪

শিক্ষা

এক উপজেলায়ই বইয়ের ঘাটতি সোয়া লাখ!

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০৪৪ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১, ২০২২
এক উপজেলায়ই বইয়ের ঘাটতি সোয়া লাখ!

বরগুনা: চাহিদার তুলনায় সোয়া লাখ বই ঘাটতি থাকায় বই বিতরণের প্রথম দিনে বরগুনার আমতলী উপজেলায় মাধ্যমিক, মাদরাসা ও প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের হাতে সব বিষয়ের নতুন বই পৌঁছানো সম্ভব হয়নি।

জানা গেছে, উপজেলায় ২৬টি মাধ্যমিক, ১৪টি নিম্ন মাধ্যমিক, ২৯টি মাদরাসা, ১৫২টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, ১৬টি কিন্ডার গার্টেন, ৩০টি প্রাইভেট ও এনজিওর ৩টিসহ মোট ২৭০টি বিদ্যালয় রয়েছে।

এসব বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থী অনুযায়ী মাধ্যমিক স্তরে মোট ৪ লাখ ৪ হাজার ২০টি এবং প্রাথমিক স্তরে ১ লাখ ১৫ হাজার ৮১৮টিসহ মোট বইয়ের চাহিদা ছিল ৫ লাখ ৫৫ হাজার ৮৩৮টি।

গত শুক্রবার (৩১ ডিসেম্বর) পর্যন্ত বই পাওয়া গেছে মাধ্যমিকে ৩ লাখ ২১ হাজার ৮৪০টি এবং প্রাথমিকে পাওয়া গেছে ১ লাখ ১১ হাজার ২১৮টি বই। ঘাটতি রয়েছে মাধ্যমিকে ১ লাখ ১৮ হাজার ১৮০টি বই। এর মধ্যে সপ্তম শ্রেণির বাংলা এবং ইংরেজী বই ছাড়া আর কোনো বিষয়ের বই পাওয়া যায়নি বলে জানান মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা। আর প্রাথমিকে ঘাটতি রয়েছে প্রাকের ৪ হাজার ৬০০টি বই।

আমতলী উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. মজিবুর রহমান বাংলানিউজকে জানান, প্রাথমিক স্তরের সব বই পাওয়া গেছে। শুধু প্রাকের ৪ হাজার ৬০০ বই পাওয়া যায়নি। আশাকরি তা শিগগিরই পাওয়া যাবে।

আমতলী উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা মো. জিয়াউল হক মিলন বাংলানিউজকে বলেন, মাধ্যমিক স্তরের ১ লাখ ১৮ হাজার ১৮০টি বই ঘাটতি রয়েছে। এ বই কবে নাগাদ পাওয়া যাবে তা জানা যায়নি।

তিনি আরও বলেন, সপ্তম শ্রেণির বাংলা এবং ইংরেজি ছাড়া অন্য কোনো বই পাওয়া যায়নি।

বাংলাদেশ সময়: ২০৪৫ ঘণ্টা, ১ জানুয়ারি, ২০২২
এমএমজেড

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa