ঢাকা, বুধবার, ৬ আষাঢ় ১৪৩১, ১৯ জুন ২০২৪, ১১ জিলহজ ১৪৪৫

বিনোদন

সমালোচিত বিজ্ঞাপন নিয়ে নিজের অবস্থান জানিয়ে আবারও সরব অমি

বিনোদন ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮২০ ঘণ্টা, জুন ১১, ২০২৪
সমালোচিত বিজ্ঞাপন নিয়ে নিজের অবস্থান জানিয়ে আবারও সরব অমি

বয়কট ইস্যুতে কোণঠাসা হয়েছে সদ্য প্রকাশিত কোমল পানীয়ের একটি বিজ্ঞাপন, যা নিয়ে গত দুদিন ধরে সমালোচনা তুঙ্গে। যদিও এরইমধ্যে অফিশিয়াল ইউটিউবে বিজ্ঞাপনটি আর দেখা যাচ্ছে না।

তবে বিজ্ঞাপন দেখা না গেলেও এতে মডেল হিসেবে দেখা যাওয়ায় তুলোধুনো হচ্ছেন অভিনয়শিল্পীরা। বিশেষ করে শরাফ আহমেদ জীবন ও শিমুল শর্মাকে নিয়ে সমালোচনা তুঙ্গে।

সামাজিকমাধ্যমে জীবন, শিমুলসহ অন্যদেরও নানান প্রশ্নবাণে বিদ্ধ করছেন সাধারণ দর্শক। বলছেন, জেনেবুঝে তারা কী করে এমন বিজ্ঞাপনে অংশ নিলেন!

কাজল আরেফিন অমি পরিচালিত বহুল আলোচিত ধারাবাহিক ‘ব্যাচেলর পয়েন্ট’-এ অভিনয় করে আলোচনায় আসেন জীবন ও শিমুল। পরে অমির বহু জনপ্রিয় কাজগুলোতেও দেখা গেছে তাদের। তাই অনেকেই মনে করেছেন, সমালোচিত কোমল পানীয়ের বিজ্ঞাপনটিও অমি বানিয়েছেন।

যদিও সোমবার এক বিবৃতির মাধ্যমে অমি স্পষ্ট জানিয়েছেন, শুধু এই কোমল পানীয়ের নয়, নাটক কিংবা ওয়েব কন্টেন্ট ছাড়া কখনো কোনো বিজ্ঞাপনই তিনি বানাননি। এই বিজ্ঞাপনটির সঙ্গেও তিনি কোনোভাবেই জড়িত নন।

অমির এমন বিবৃতির পরও থামছে না সমালোচনা। অনেকে বলার চেষ্টা করছেন, কোমল পানীয়ের বিজ্ঞাপনে যারা অভিনয় করেছেন, তারা অমির সঙ্গে কাজ করেন। তাই আগামীতে সেই অভিনেতাদের কাজ বয়কট করবেন। বিষয়টি মানতে পারছেন অমি নিজেও। কারণ সামনে এই অভিনেতাদের দেখা যাবে অমি পরিচালিত ওয়েব ফিল্ম ‘ফিমেল ৪’-এ! যা ঈদে ওটিটি প্লাটফর্ম বঙ্গতে স্ট্রিমিং হবে।

এ বিষয়টি নিয়ে মঙ্গলবার বিকেলে দীর্ঘ স্ট্যাটাস দেন অমি। জানান, অভিনয়শিল্পীদের জন্য যেন কেউ অভিমান করে তার কাজ থেকে মুখ ফিরিয়ে না নেন। এ সময় নিজেকে সাধারণ মানুষের প্রতিনিধি দাবি করে অমি বলেন, “আমি সব সময় চেষ্টা করি সাধারণ মানুষের হয়ে কথা বলতে। সাধারণ মানুষের জীবনের ছোট-ছোট বিষয় তুলে ধরতে আমার কাজের মাধ্যমে। তারই ধারাবাহিকতায় আমি বানিয়েছিলাম বিদেশ, কিডনি, দই, শেষমেশ এবং আপনাদের ভালোবাসায় আজকে আমি এখানে। আমি আবেগ আপ্লুত এবং কৃতজ্ঞ আপনাদের প্রতি। ”

কোমল পানীয়ের বিজ্ঞাপনটির সঙ্গে কোনোভাবেই জড়িত নন জানিয়ে এদিন অমি লেখেন, গতকাল থেকে যে বিজ্ঞাপনের ইস্যুটি নিয়ে আমার দর্শক, আমার পরিবার ও দেশবাসী বিভিন্ন প্রতিক্রিয়া জানাচ্ছেন, আমি সবার কাছে একটি বিষয় পরিষ্কার করতে চাই যে, উক্ত বিজ্ঞাপনের সঙ্গে আমি কোনোভাবেই সম্পৃক্ত নই। আমি একজন পরিচালক। কোনো অভিনেতা-অভিনেত্রী যখন আমার প্রজেক্টে কাজ করতে আসে আমি শুধুমাত্র তাদের ডিরেকশন দেই। তাদের ব্যক্তিগত জীবন, তাদের কাজ, তাদের পথ চলা- এর কোনো কিছুর সঙ্গেই আমার কোনো ধরনের সম্পৃক্ততা নেই। অবশ্যই তারা আমার টিম মেম্বার কিন্তু সেটা শুধুমাত্র যখন তারা আমার কাজ করবে তখন। এর বাইরে তাদের ব্যক্তিগত জীবন আছে।

পরিবারের একজন ভুল করলে শাস্তি যেন অন্যদের ওপরেও না পড়ে, বিষয়টি নিয়ে দর্শকের উদ্দেশে অমি লেখেন, আপনারা আমার ওপর রাগ করছেন, আবেগ আপ্লুত হচ্ছেন। আমি আপনাদের সব রাগ-অভিমান মাথা পেতে নিচ্ছি। কারণ বিজ্ঞাপনটির অভিনয়শিল্পী যারা আছেন, তারা আমার সঙ্গে অনেকদিন ধরেই কাজ করছেন। আপনারা অনেকেই হয়তো এই অভিনয়শিল্পীদের আমার পরিচালিত কাজের মাধ্যমে চেনেন। কিন্তু আমি শুধুমাত্রই এই অভিনয়শিল্পীদের পরিচালক, তাদের অভিভাবক নই। তারা ব্যক্তিগত জীবনে কী করবে, তা সম্পূর্ণই তাদের নিজস্ব ব্যাপার, আমার তাতে কোনো হস্তক্ষেপ নেই। আর আপনারা যারা তাদের ওপর অভিমান করে বলছেন, আমাদের এত কষ্টে বানানো ‘ফিমেল ৪’ দেখবেন না, অভিমান করে বলছেন, আমরা বয়কট করছি ‘ফিমেল ৪’, আপনারা নিশ্চয়ই পরিবারের একজন ভুল করলে সেই পরিবারের অন্য সদস্যদের শাস্তি দেবেন না।

সেই বিজ্ঞাপনটি সমালোচিত হওয়ার পর জীবন-শিমুল আলাদা করে দুঃখপ্রকাশ করে ফেসবুকে লিখেছেনও। এ বিষয়টিও নিয়েও অমি লেখেন, আমরা যারা একসঙ্গে কাজ করি আমরা সবাই একই পরিবারের সদস্য বলে আমি মনে করি। আমাদের পরিবারের কেউ যদি ভুল করে থাকে, সে তার ভুল বুঝতে পারে এবং সে যদি ক্ষমাপ্রার্থী হয়, অবশ্যই আমরা চাইব তাকে যেন দেশবাসী এবং সাধারণ মানুষ ক্ষমা করে দেয়।

সবার কাছে অনুরোধ জানিয়ে অমি এদিন লেখেন, সবার কাছে অনুরোধ করছি, আমার কাজে কোনো অভিনয়শিল্পীর ব্যক্তিগত জীবন খুঁজবেন না। আমি কারও ব্যক্তিগত জীবন নিয়ে কাজ করি না। আমি আমার গল্পের চরিত্র ফুটিয়ে তোলার চেষ্টা করি, যে চরিত্রগুলো আমাদের সমাজের প্রতিচ্ছবি।

সবশেষে অমি তার আসন্ন ওয়েব ফিল্ম ‘ফিমেল ৪’ দেখার আমন্ত্রণ জানিয়ে বলেন, শুধু মাত্র বড় পরিসরে গল্প বলার জন্যই ‘ফিমেল ৪’ ওটিটির জন্য বানানো। কারণ ইউটিউবে এতো বড় পরিসরে কাজ করা যায় না।

বাংলাদেশ সময়: ১৮১৮ ঘণ্টা, জুন ১১, ২০২৪
এনএটি/এসআইএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।