ঢাকা, সোমবার, ২ বৈশাখ ১৪৩১, ১৫ এপ্রিল ২০২৪, ০৫ শাওয়াল ১৪৪৫

ফুটবল

বাংলাদেশে তৈরি হতে পারে বার্সেলোনার জার্সি

স্পোর্টস ডেস্ক  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮৪৪ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০২৪
বাংলাদেশে তৈরি হতে পারে বার্সেলোনার জার্সি

দক্ষ এবং সহজলভ্য শ্রমশক্তির কারণে বাংলাদেশের তৈরি পোশাকের কদর বিশ্বজুড়ে। বিশ্বের বহু নামীদামী ব্র্যান্ড এখান থেকে পোশাক তৈরি করে।

এবার স্পেনের শীর্ষ ফুটবল ক্লাব বার্সেলোনার জার্সি তৈরি হতে পারে বাংলাদেশে।  

এমনটাই জানিয়েছে স্প্যানিশ গণমাধ্যম 'মুন্দো দেপোর্তিভো'। এরইমধ্যে কালাতান জায়ান্টদের একটি প্রতিনিধি দল বাংলাদেশে গার্মেন্টস কারখানা ঘুরে গেছে। তাদের রিপোর্টের ওপর আসতে পারে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত। একইসঙ্গে সম্ভাব্য দেশ হিসেবে উঠে এসেছে চীনের নামও। সেখানেও গেছে বার্সার প্রতিনিধি দল।

'মুন্দো দেপোর্তিভো' আরও জানিয়েছে, বার্সেলোনার সঙ্গে জাদের দীর্ঘদিনের জার্সির স্পন্সর নাইকির সম্পর্কের অবনতি হয়েছে। যে কারণে তাদের প্রতিদ্বন্দ্বী ব্র্যান্ড পুমার সঙ্গে চুক্তি করতে চায় বার্সা। তবে নাইকির সঙ্গে তাদের চুক্তির মেয়াদ ২০২৮ সালে শেষ হবে। এর আগেই নিজস্ব ব্যবস্থায় জার্সি তৈরির কথা ভাবছেন বার্সা প্রেসিডেন্ট হুয়ান লাপোর্তা।

এদিকে নতুন মৌসুম শুরুর আগে নাইকি ও পুমার সঙ্গে আলোচনার শেষ পর্যায়ে রয়েছে বার্সা। সম্পর্ক তলানিতে ঠেকলেও নাইকি আরও বেশি অর্থ প্রস্তাব করেছে। কিন্তু তা পুমার সমান নয় বলেই জানা গেছে। নাইকি চায় বোনাস, আর পুমা চায় নির্দিষ্ট ফি। তাদের এ লড়াইয়ের মাঝেই অন্য উপায়ে জার্সি তৈরি করার চিন্তাভাবনা শুরু করে বার্সা। এমনকি নিজেদের তৈরি জার্সি বিক্রির জন্য বিশ্বের বড় বড় পরিবেশকদের সঙ্গে আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছে তারা।

সেই ১৯৯৮ সাল থেকে বার্সার জার্সি তৈরি করে নাইকি। জানা গেছে, ২০২৪-২৫ মৌসুমের জার্সি তৈরির কাজও শুরু করে দিয়েছে বিখ্যাত ক্রীড়া সামগ্রী নির্মাতা প্রতিষ্ঠানটি। ফলে চুক্তি বাতিল করে নিজেরা জার্সি তৈরি করতে হলে নাইকিকে বড় অঙ্কের অর্থ জরিমানা হিসেবে শোধ করতে হবে বার্সাকে। যদিও তারা চাইছে, তাদের তৈরি জার্সি বেচে প্রতি মৌসুমে ২০০ মিলিয়ন ইউরো আয় করা সম্ভব।

বাংলাদেশ সময়: ১৮৪৪ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০২৪
এমএইচএম 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।