ঢাকা, মঙ্গলবার, ৩ বৈশাখ ১৪৩১, ১৬ এপ্রিল ২০২৪, ০৬ শাওয়াল ১৪৪৫

ফুটবল

রোমাঞ্চকর ম্যাচে কিংস-রাসেলের ড্র

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট, স্পোর্টস  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯৪২ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০২৪
রোমাঞ্চকর ম্যাচে কিংস-রাসেলের ড্র

প্রথামার্ধের শেষ দিকে লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়লেন দরিয়েলতন গোমেজ। দশ জনের দলে পরিণত হলো বসুন্ধরা কিংস।

সেখান থেকে পিছিয়ে পড়েও ড্র নিয়ে মাঠে ছাড়ে বর্তমান চ্যাম্পিয়নরা।  

বসুন্ধরা কিংস অ্যারেনায় প্রিমিয়ার লিগের প্রথম রাউন্ডের শেষ ম্যাচে আজ শেখ রাসেল ক্রীড়া চক্রের সঙ্গে ১-১ গোলে ড্র করছে অস্কার ব্রুজোনের শিষ্যরা।

ম্যাচের শুরুতে দুই দলই রক্ষণ সামলে নিয়মিত বিরতিতে আক্রমণে ওঠে। কিন্তু গোলের দেখা মিলছিল না কোনও দলেরই। যদিও বাড়ি প্রশংসার দাবিদার শেখ রাসেলের গোলরক্ষক মিতুল মারমা। পুরো ম্যাচেই দারুণ পারফরম্যান্স করেছেন তিনি।  

ম্যাচের ১৪তম মিনিটে অসাধারণ সেভ করেন শেখ রাসেলের গোলরক্ষক। দোরিয়েলতনের শট দারুণ দক্ষতায় ফিরিয়ে দেন মিতুল। ম্যাচের ২৫তম মিনিটে শেখ রাসেলের দুই ডিফেন্ডারের মাঝ দিয়ে নেওয়া রাকিবের শট অল্পের জন্য লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়।

৪২তম মিনিটে দশ জনের দলে পরিণত হয় কিংস। সরাসরি লাল কার্ড দেখে মাঠ ছাড়েন দরিয়েলতন গোমেজ। শেখ রাসেলের ডিফেন্ডার গানিউ আতান্দাকে বলের লড়াই ছাড়াই মাথা দিয়ে আঘাত করেন এই ব্রাজিলিয়ান। সহকারী রেফারির সঙ্গে আলোচনা করে দরিয়েলতনকে লাল এবং গানিউকে হলুদ কার্ড দেখান রেফারি ভুবন মোহন তরফদার।  

কিংস বড় ধাক্কা খাওয়ার পরেই সেরা সুযোগটি নষ্ট করে শেখ রাসেল। কোডাই লিডার পাস পেয়ে শটও নিয়েছিলেন সুমন, কিন্তু তা চলে যায় পোস্ট ঘেঁষে বাইরে। প্রথমার্ধের শেষ দিকে রবসন রবিনহোর ফ্রি-কিক সাইড পোস্টে লেগে ফিরে আসে।

দ্বিতীয়ার্ধে দুই পরিবর্তন নিয়ে মাঠে নামে বসুন্ধরা কিংস। সোহেল রানার পরিবর্তে মাঠে নামেন রফিক। গোলরক্ষক মেহেদি হাসান শ্রাবণের পরিবর্তে মাঠে নামেন কিংসের নিয়মিত গোলরক্ষক আনিসুর রহমান জিকো।  

দ্বিতীয়ার্ধে কিছু বুঝে ওঠার আগেই গোল হজম করে পিছিয়ে যায় বসুন্ধরা কিংস। সুমন রেজার পাসে নিখুঁত ফিনিশিংয়ে বল জালে জড়ান শেখ রাসেলের জাপানি ফরোয়ার্ড কোডই লিডা। গোল হজম করে আক্রমণে মরিয়া হয়ে ওঠে দশজনের কিংস। ৫৭তম মিনিটে রাকিবের ডিফেন্স চেরা পাসে সাদ উদ্দিনের শট দূরের পোস্ট ঘেঁষে বেরিয়ে যায়।  

পরের মিনিটে মিগেলের কর্নার থেকে ববুরবেগের হেড পোস্টের বাইরে দিয়ে যায়। ৬৪তম মিনিটে মিগেল দামাসেনার দূর পাল্লার শট ঝাঁপিয়ে ঠেকান শেখ রাসেলের গোলরক্ষক মিতুল।

৬৭তম মিনিটে সমতায় ফেরে কিংস। বক্সের বাইরে থেকে মিগেল দামাসেনার দূরপাল্লার শট ঠেকান মিতুল। রিবাউন্ড বলে শট নিয়ে দলকে সমতায় ফেরান রাকিব হোসেন। আর তাতে যেন প্রাণ ফিরে আসে কিংস অ্যারেনায়।

৮২তম মিনিটে দারুণ দক্ষতায় দলকে রক্ষা করেন মিতুল মারমা। বক্সের বাইরে থেকে নেওয়া রবসন রবিনহোর শট ফিরিয়ে দেন মিতুল; ফিরতি বলে শট নেন রাকিব। সেটাও ফিরিয়ে দেন শেখ রাসেলের গোলরক্ষক। ৮৯তম মিনিটে ম্যাচের সবচেয়ে সহজ সুযোগ মিস করেন সুলেমানি ল্যান্ড্রি। কিংসের গোলরক্ষক আনিসুর রহমান জিকোকে একা পেয়েও বারের উপর দিয়ে শট নেন তিনি।  

দ্বিতীয়ার্ধের পুরোটা সময়েই দশ জনের দল নিয়েও আক্রমণে আধিপত্য ধরে রাখে বসুন্ধরা কিংস। তবে জয়ের দেখা মেলেনি তাদের। এই ড্র’য়ের ফলে ৯ ম্যাচে ২২ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষেই থাকলো বসুন্ধরা কিংস। ১০ পয়েন্ট নিয়ে পাঁচ নম্বর স্থানে রয়েছে শেখ রাসেল।

বাংলাদেশ সময়: ১৯৪২ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০২৪
এআর/এমএইচএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
welcome-ad