ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১১ বৈশাখ ১৪৩১, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১৫ শাওয়াল ১৪৪৫

স্বাস্থ্য

ডিআরইউর ২৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী

থাইরয়েড গ্রন্থির সমস্যাজনিত স্ক্রিনিং ক্যাম্প অনুষ্ঠিত

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১৪৪ ঘণ্টা, মে ২৫, ২০২৩
থাইরয়েড গ্রন্থির সমস্যাজনিত স্ক্রিনিং ক্যাম্প অনুষ্ঠিত থাইরয়েড গ্রন্থির সমস্যাজনিত স্ক্রিনিং ক্যাম্পে উপস্থিত অতিথি ও বক্তারা

ঢাকা: ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটির (ডিআরইউ) ২৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে সংগঠনের সদস্য ও পরিবারদের জন্য থাইরয়েড গ্রন্থির সমস্যাজনিত স্ক্রিনিং ক্যাম্প অনুষ্ঠিত হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২৫ মে) ডিআরইউর নসরুল হামিদ মিলনায়তনে এই ক্যাম্প অনুষ্ঠিত হয়।

ডিআরইউ সভাপতি মুরসালিন নোমানীর সভাপতিত্বে ও কল্যাণ সম্পাদক মো. তানভীর আহমেদের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য দেন বিএসএমএমইউর সহকারী অধ্যাপক ড. মারুফা মোস্তারী, ডিআরইউর সাংগঠনিক সম্পাদক ও ২৮তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উদযাপন কমিটির আহ্বায়ক সাইফুল ইসলাম।

এ সময় ডিআরইউ দপ্তর সম্পাদক কাওসার আজম, নারী বিষয়ক সম্পাদক মরিয়ম মনি সেঁজুতি, কার্যনির্বাহী সদস্য কিরণ শেখ, এস এম মোস্তাফিজুর রহমান সুমন উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠানের সার্বিক সহযোগিতায় ছিল নুভিস্তা ফার্মা লিমিটেড।

এতে প্রধান অতিথি ছিলেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের এন্ডোক্রাইনোলজি বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক হরমোন ও ডায়াবেটিস বিশেষজ্ঞ ডা. শাহজাদা সেলিম। তিনি বলেন, থাইরয়েড হরমোনের গুরুত্বপূর্ণ কাজ হচ্ছে স্নায়ুর পরিপক্বতা। এজন্য গর্ভাবস্থায় থাইরয়েড হরমোনের স্বল্পতায় গর্ভের বাচ্চা বুদ্ধিদীপ্ত হয় না।

তিনি আরও বলেন, থাইরয়েড হলো গলার দুই পাশে থাকা একটি বিশেষ গ্রন্থি। এই গ্রন্থির কাজ হলো, আমাদের শরীরের কিছু অত্যাবশ্যকীয় হরমোন (থাইরয়েড হরমোন) উৎপাদন করা। শরীরের জন্য এ থাইরয়েড হরমোনের একটি নির্দিষ্ট মাত্রা আছে। নির্দিষ্ট মাত্রার কম বা বেশি হরমোন উৎপাদিত হলেই শরীরের ওপর বিরূপ প্রভাব পড়তে শুরু করে।

অধ্যাপক ডা. শাহজাদা সেলিম বলেন, থাইরয়েড হরমোন কম উৎপন্ন হলে বলা হয় হাইপোথাইরয়েডিসম এবং বেশি উৎপন্ন হলে বলা হয় হাইপারথাইরয়েডিজম। থাইরয়েড হলে শরীরে কিছু পরিবর্তন দেখা যায়। আপনার শরীরে যদি এসব লক্ষণের কোনোটা দেখতে পান তবে বুঝবেন, থাইরয়েড সমস্যায় ভুগছেন।

তিনি বলেন, যেসব উদ্দীপনায় বিপাক ক্রিয়া বেড়ে যায় যেমন- যৌবন প্রাপ্তি, গর্ভাবস্থা, শরীরবৃত্তীয় কোনো চাপ-ইত্যাদি কারণে থাইরয়েড গ্লান্ডের আকারগত বা কার্যকারিতায় পরিবর্তন হতে পারে।

ডিআরইউ সভাপতি মুরসালিন নোমানী বলেন, থাইরয়েড স্বাস্থ্য ঝুঁকি মোকাবেলায় জনগণকে সচেতন করতে গণমাধ্যম গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে পারে। আর এই রোগ বিদায়ে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের মতামত গণমাধ্যমে সহজভাবে তুলে ধরে মানুষকে সচেতন করতে হবে।

সকাল ৯টা থেকে বেলা সাড়ে ১২টা পর্যন্ত থাইরয়েড গ্রন্থির সমস্যাজনিত স্ক্রিনিং ক্যাম্প অনুষ্ঠিত। এতে ডিআরইউর সদস্য ও পরিবারের প্রায় ১৫০ জন সদস্য অংশ নেন।

থাইরয়েড গ্রন্থির সমস্যাজনিত স্ক্রিনিং ক্যাম্পে যারা সেবা নিয়েছেন, তাদের রিপোর্টের মাত্রা যদি ঝুঁকিপূর্ণ হয় তাহলে তাদেরকে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের মাধ্যমে চিকিৎসা সেবা দেওয়া হবে।  

বাংলাদেশ সময়: ২১৪২ ঘণ্টা, মে ২৫, ২০২৩
টিএ/এসআইএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।