ঢাকা, বুধবার, ১৫ ফাল্গুন ১৪৩০, ২৮ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৭ শাবান ১৪৪৫

ভারত

পশ্চিমবঙ্গে পঞ্চায়েত ভোটের আগে আসছেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধী

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৯৪৪ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৪, ২০২৩
পশ্চিমবঙ্গে পঞ্চায়েত ভোটের আগে আসছেন প্রিয়াঙ্কা গান্ধী প্রিয়ঙ্কা গান্ধী বঢরা। ছবি: সংগৃহীত

কলকাতা: আসন্ন পঞ্চায়েত ভোট। পশ্চিমবঙ্গের সেই পঞ্চায়েত ভোটকে সামনে রেখে প্রিয়ঙ্কা গান্ধী বঢরাকে রাজ্যে এনে মেগা প্রচারের ভাবনা রয়েছে রাজ্য প্রদেশ কংগ্রেসের।

 

মঙ্গলবার (০৩ জানুয়ারি) রাজ্যটির মালদহ জেলা কংগ্রেসের সভাপতি আবু হাসেম খান চৌধুরী জানান, প্রিয়ঙ্কার আসার দিনক্ষণ এখনও চূড়ান্ত হয়নি। তবে জেলা কংগ্রেস নেতৃত্ব এই সফরকে কেন্দ্র করে অক্সিজেন পেতে শুরু করেছে।

একসময় মালদাহ জেলা কংগ্রেসের গনি খান চৌধুরীর গড় হিসেবে পরিচিত ছিল। এখন কংগ্রেসের সেই দুর্গে ফাটল ধরছে। খোদ গনি খানের ভাগ্নি মৌসম বেনজির নুর -সহ একাধিক কংগ্রেস নেতা এখন মমতার দলে। ২১ সালের বিধানসভা ভোটে মালদহের ১২টি আসনের মধ্যে কংগ্রেসের ঝুলিতে একটিও জোটেনি। স্বাভাবিক ভাবে কংগ্রেস কর্মীদের মনোবল তলানিতে। সেখান থেকেই চলতি বছরের এপ্রিলে পঞ্চায়েত ভোট। সেই ভোটের মধ্যদিয়ে জেলায় সংগঠনকে চাঙ্গা করতে চাইছে কংগ্রেস।

প্রসঙ্গত, গত বছরের সেপ্টেম্বর থেকে ‘ভারত জোড়ো যাত্রা’ শুরু করেছেন রাহুল গান্ধী। দীর্ঘ ৩ হাজার ৫৭০ কিলোমিটার পথ পাড়ি দিয়ে ১২টি রাজ্য অতিক্রম করে এই  ‘যাত্রা’ শেষ হবে কাশ্মীরের শ্রীনগরে। তবে রাহুলের এই যাত্রা পথে পশ্চিমবঙ্গ নেই। এমনিতে বঙ্গে কংগ্রেসের অস্তিত্ব একবারে ক্ষীণ। তার উপর রাহুলের যাত্রাপথে বাংলা ব্রাত্য হওয়ায় দলের কর্মীদের মনোবল কিছুটা তলানিতে। সে কারণেই ইন্দিরার নাতনি প্রিয়ঙ্কা গান্ধী বঢরাকে দিয়ে বড় সভা করার পরিকল্পনা করেছে মালদহ জেলা কংগ্রেসের সভাপতি তথা গনি খানের ভাই, মালদহ দক্ষিণের এমপি আবু হাসেম খান চৌধুরী।

যদিও প্রদেশ কংগ্রেস সভাপতি অধীর রঞ্জন চৌধুরী নেতৃত্বে রাজ্যে সম্প্রতি শুরু হয়েছে ভারত জোড়ো যাত্রা। মঙ্গলবার (০৩ জানুয়ারি) ছিল উত্তর ২৪পরগণান দমদম থেকে মধ্যগ্রামের বিটি কলেজ অবদি। কিন্তু তাতে সেভাবে সাড়া পায়নি। বুধবার (০৪ জানুয়ারি) চলবে সেই যাত্রা। থাকবেন কংগ্রেস সাংসদ অধীর চৌধুরী ও তামিলনাড়ুর লোকসভা সাংসদ ড. এ চেল্লা কুমার ও সাবেক সভাপতি প্রদীপ ভট্টাচার্য। যশোর রোড ধরে যাত্রা বারাসাত কলোনী মোড় হয়ে শেষ হবে আমডাঙায়।

কংগ্রেসের এই যাত্রা নিয়ে এবং প্রিয়াঙ্কার বিষয়টাকেও গুরুত্ব দিতে নারাজ মমতার দল। মালদহর তৃণমূল জেলা সভাপতি আব্দুল রহিম বক্সির অভিমত, রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উন্নয়নের ছোঁয়া পেয়েছেন গ্রামের সাধারণ মানুষ। তাই এই যাত্রা বা প্রিয়াঙ্কার জন্য কংগ্রেসের পালে আলাদা করে আর হাওয়া লাগবে না। আর তা উত্তরপ্রদেশ-সহ ভারতের অন্যন্য রাজ্যের বিধানসভা নির্বাচনে কংগ্রেসের ফলাফল দেখলেই ছবিটা স্পষ্ট হয়ে যায়।  

বিজেপি নেতা তথা মালদহ উত্তর লোকসভার এমপি খগেন মুর্মু বলেন, দেশের ভবিষ্যৎ নরেন্দ্র মোদীর নেতৃত্বাধীন ভারত। তাই রাহুল গান্ধী ভারত জোড়ো যাত্রা নিয়ে যেমন চিন্তিত নই তেমন, প্রিয়ঙ্কার সভা নিয়ে বিন্দুমাত্র চিন্তিত নই আমরা।

বাংলাদেশ সময়: ০৯৪৪ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০৩, ২০২২
ভিএস/এসএ


 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।