ঢাকা, মঙ্গলবার, ১০ বৈশাখ ১৪৩১, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১৩ শাওয়াল ১৪৪৫

ভারত

ইন্দো-বাংলা প্রেসক্লাবের সদস্য হলেন শফিকুল ও অশোক

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫০১ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৩০, ২০২৩
ইন্দো-বাংলা প্রেসক্লাবের সদস্য হলেন শফিকুল ও অশোক

কলকাতা: ইন্দো-বাংলা প্রেসক্লাবের সাথে যুক্ত হলেন বাংলাদেশের বিশিষ্ট শিল্পপতি ও ক্রীড়া সংগঠক মো. শফিকুল আলম জুয়েল এবং বিশিষ্ট সাংবাদিক, বৈশাখী টেলিভিশনের বার্তা প্রধান অশোক চৌধুরী। এ উপলক্ষে কলকাতার সেন্ট জেমস অডিটোরিয়ামে এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছিল প্রেসক্লাব।

অনুষ্ঠানে নতুন দুই সদস্যকে ফুল, উত্তরীয়, মানপত্র, স্মারক এবং কলকাতার ঐতিহ্যবাহী মিষ্টি তুলে দেন প্রেসক্লাবের সদস্যরা। এরপর তাদের হাতে তুলে দেওয়া হয় প্রেসক্লাবের সদস্যপদ। দুজনেই তা আন্তরিকভাবে গ্রহণ করেন।

শফিকুল আলম জুয়েল বলেন, আমরা আগেও দেখেছি সংগঠন যদি শক্তিশালী না হয় তাহলে সবাই আবার ছড়িয়ে যাবে। দুই দেশের সেতুবন্ধনে এই প্রেসক্লাব গুরুত্বপূর্ণ ভমিকা নেবে বলে আমি মনে করি। যেহেতু আমি এই প্রেসক্লাবের সদস্য হয়েছি, দায়িত্বটা আমার বেড়ে গেল। আমি আপনাদের পাশে সব সময় থাকব। যেকোনো প্রয়োজনে আমাকে জানাবেন, আমি আপনাদের পাশে সব সময় আছি।

অশোক চৌধুরী বলেন, সাংবাদিকদের সাথে, সাংবাদিকদের পাশে স্লোগান নিয়ে আপনারা যে ইন্দো-বাংলা প্রেসক্লাবের যাত্রা শুরু করেছেন সেজন্য আপনাদের ধন্যবাদ জানাতে চাই। বাংলাদেশের সাংবাদিকদের আপনাদের শুধু আত্মিক সম্পর্ক নয়, আরও অনেক সম্পর্ক আছে। ’৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধের মধ্য দিয়ে বাংলাদেশ যে স্বাধীনতা অর্জন করেছে সেদিন আমাদের মুক্তিযুদ্ধে সবচেয়ে বেশি সহযোগিতা করেছিল ভারত। বিশেষ করে কলকাতা। তাই আপনাদের সাথে আমাদের সম্পর্ক অনেক গভীরের।

তিনি আরও বলেন, ইন্দো-বাংলা প্রেসক্লাবের অনুষ্ঠানে আমি শুধু এটুকু বলতে চাই, আগামী দিনের সব ধরনের কর্মকাণ্ডে আমাকে পাবেন। আমাকে আপনারা যে সদস্যপদ দিয়েছেন আমি সেজন্যে কৃতজ্ঞতা জানাই।

কলকাতাস্থ বাংলাদেশ উপদূতাবাসের প্রেস শাখার প্রথম সচিব রঞ্জন সেন বলেন, ইন্দো-বাংলা প্রেসক্লাবের পথ চলা সবে শুরু করেছে। আগামী দিনের পথ চলায় সব সময় আপনাদের সাথে আমাদের দেখা হবে। আপনারা যে যাত্রা শুরু করেছেনে, তাতে আপনাদের অনেক দায়িত্ব বেড়ে গেল।

ভারত এবং বাংলাদেশ এই দুই দেশের সমন্বয়ে ইন্দো-বাংলা প্রেসক্লাব। গত বছরের ১৪ মার্চ প্রেসক্লাবের সূচনা হলেও ২৪ আগস্ট আনুষ্ঠানিক পথ চলা শুরু করে। তারপর থেকে দুই দেশের সাংবাদিক এবং বিশিষ্টদের সহযোগিতায় এগিয়ে চলেছে কলকাতার ইন্দো-বাংলা প্রেসক্লাব।

বাংলাদেশ সময়: ১৪৫৮ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৩০, ২০২২
ভিএস/এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।