ঢাকা, বুধবার, ১১ বৈশাখ ১৪৩১, ২৪ এপ্রিল ২০২৪, ১৪ শাওয়াল ১৪৪৫

ভারত

ত্রিপুরায় বিদেশি পর্যটকদের ভিড় বাড়ছে

সুদীপ চন্দ্র নাথ, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪০১ ঘণ্টা, মে ২৪, ২০২৩
ত্রিপুরায় বিদেশি পর্যটকদের ভিড় বাড়ছে

আগরতলা (ত্রিপুরা, ভারত): উত্তর-পূর্ব ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যে রেকর্ড সংখ্যক বিদেশি পর্যটক এসেছে, আগামীতে এই সংখ্যা আরও বাড়বে বলে আশা রাজ্য সরকারের পর্যটন দপ্তরের। কোভিড পরবর্তী বছরে যেখানে মাত্র একজন বিদেশি পর্যটক এসেছিল, ২০২২-২৩ অর্থবছরের ত্রিপুরায় বিদেশি পর্যটক এসেছেন ৩৫ হাজার ১২৪ জন।

কোভিড মহামারির জন্য গোটা বিশ্ব থমকে দাঁড়িয়ে ছিল। অন্যান্য জায়গার মতো ত্রিপুরা রাজ্যের পর্যটন শিল্পেও জোর ধাক্কা দেয় কোভিড। তবে এরপর মহামারিকে কাটিয়ে রাজ্যে পর্যটন শিল্প আবার ছন্দে ফিরছে।

ইতোমধ্যে রাজ্যের পর্যটন শিল্প অনেকটাই ঘুরে দাঁড়িয়েছে বলে বাংলানিউজকে জানিয়েছেন পর্যটন দপ্তরের যুগ্ম অধিকর্তা জয়ন্ত দেববর্মা।

তিনি বলেন, ২০২০-২১ অর্থবছরে রাজ্যে মোট ৭৪,৩৪৫ জন পর্যটক এসেছিলেন। এদের মধ্যে অন্তর্দেশীয় পর্যটক ছিলেন ৭৪,৩৪৪ জন এবং বিদেশি পর্যটক মাত্র একজন। ২০২১-২২ অর্থবছরে রাজ্যে মোট ১,৯৬,৮৫৬ জন পর্যটক এসে ছিলেন। এদের মধ্যে অন্তর্দেশীয় পর্যটক ছিলেন ১,৯৬,৮২০ জন এবং বিদেশি পর্যটক ৩৬ জন। ২০২২-২৩ অর্থবছরের রাজ্যে মোট ২,৮৪,৮৩৬ জন পর্যটক এসেছিলেন। এদের মধ্যে অন্তর্দেশীয় পর্যটক ছিলেন ২,৪৯,৭১২ জন, আর বিদেশি পর্যটক ৩৫,১২৪ জন।

ত্রিপুরার পর্যটন দপ্তরের যুগ্ম অধিকর্তা জয়ন্ত দেববর্মা

তিনি আরও বলেন, রাজ্যে পর্যটক আগমনের সংখ্যা যাতে আরো বাড়ে সেজন্য দপ্তরের পক্ষ থেকে একের পর এক পদক্ষেপ নেওয়া হচ্ছে এবং যা মূলত পর্যটকদের সুবিধার কথা চিন্তা করে নেওয়া হচ্ছে। এসবের মধ্যে উল্লেখযোগ্য কিছু হল পর্যটন কেন্দ্রগুলি আধুনিকীকরণ, পর্যটন কেন্দ্রগুলোতে যাতায়াতের রাস্তাঘাটের মান উন্নয়ন।

সরকার এবছর নতুন করে পরিকল্পনা নিয়েছে রাজ্যের সব পর্যটন কেন্দ্রের মান উন্নয়ন করার। ডুম্বুর লেকের নারকেল কুঞ্জতে যাতে দেশ-বিদেশের পর্যটকরা ভালোভাবে রাত্রি যাপন এবং প্রাকৃতিক সৌন্দর্য উপভোগ করতে পারেন সেজন্য অনেকগুলো লগ হাট বানানো হয়েছে। পর্যটকরা গাড়িতে করে খুব সহজেই যাতে ডুম্বুর পৌঁছতে পারেন সেজন্য রাস্তা সংস্কার করা হচ্ছে। নারকেল কুঞ্জে একটি অত্যাধুনিক হেলিপ্যাড তৈরি করা হয়েছে।

পাশাপাশি আগরতলা থেকে নারকেল কুঞ্জ পর্যন্ত নিয়মিত হেলিকপ্টার পরিষেবা খুব দ্রুত চালু করা হবে। পাশাপাশি উত্তর-পূর্বের আমাজন বলে পরিচিত রাজ্যের ছবিমুড়া পর্যটন কেন্দ্রের পরিকাঠামো উন্নয়ন করা হয়েছে। ঘাটে সংস্কার করা হয়েছে, নতুন নতুন ইঞ্জিন নৌকা চালু করা হয়েছে। ঊনকোটি জেলার ঊনকোটি পর্যটন কেন্দ্র এবং সরকারি বাংলোর উন্নয়ন করা হয়েছে। উদয়পুরে ত্রিপুরা সুন্দরী মন্দিরসহ আশেপাশের এলাকাগুলো সুন্দর করে সাজিয়ে তোলা হচ্ছে। দেশ-বিদেশের পর্যটকদের আকর্ষণ করতে ব্যাপক প্রচার অভিযান চালানো হচ্ছে।

এছাড়া শিগগিরই বাংলাদেশের চট্টগ্রামে সরাসরি আকাশ পথে যোগাযোগ চালুর মধ্য দিয়ে আগরতলা আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে উন্নীত হবে। সেই সঙ্গে ট্রেন এবং সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থার উন্নতি হচ্ছে। রাজ্য সরকারের পাশাপাশি কেন্দ্রীয় সরকারও ত্রিপুরাসহ গোটা উত্তর-পূর্বাঞ্চলের উন্নয়নের জন্য একাধিক প্রকল্প হাতে নিয়েছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৪০১ ঘণ্টা, মে ২৪, ২০২৩
এসসিএন/এমএমজেড

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।