ঢাকা, বুধবার, ৬ আষাঢ় ১৪৩১, ১৯ জুন ২০২৪, ১১ জিলহজ ১৪৪৫

তথ্যপ্রযুক্তি

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ: টফিতে এক সপ্তাহে ১০ কোটি মিনিট স্ট্রিমিং

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৭৫৫ ঘণ্টা, জুন ১১, ২০২৪
টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ: টফিতে এক সপ্তাহে ১০ কোটি মিনিট স্ট্রিমিং

ঢাকা: দেশের অন্যতম ডিজিটাল বিনোদন প্ল্যাটফর্ম টফি ক্রিকেটপ্রেমী দর্শকদের জন্য সরাসরি সম্প্রচার করছে চলমান টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ। টুর্নামেন্ট শুরুর মাত্র এক সপ্তাহের মধ্যে টফিতে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ম্যাচগুলো ১০ কোটি মিনিটেরও বেশি সময় ধরে দর্শকরা সরাসরি উপভোগ করেছেন।

টফির এ আয়োজন ইতোমধ্যে দর্শকদের মধ্যে আলোড়ন সৃষ্টি করেছে।  

বাংলালিংক এক বিজ্ঞপ্তিতে জানায়, সম্প্রতি অনুষ্ঠিত বাংলাদেশ বনাম শ্রীলঙ্কার মধ্যকার ম্যাচটি ছিল বিশ্বকাপে বাংলাদেশের প্রথম ম্যাচ। ১০ লাখেরও বেশি দর্শক এ ম্যাচটি সরাসরি টফিতে উপভোগ করেছেন। দুদেশের মধ্যে তীব্র প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ খেলাটি দর্শকদের ব্যাপক আনন্দ দিয়েছে। বিশেষ করে বাংলাদেশ ক্রিকেট টিমের সমর্থকদের কঠিন প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ এ ম্যাচে শেষ হাসি তারা হেসেছেন। উপমহাদেশের ক্রিকেটের ধ্রুপদী লড়াই ভারত-পাকিস্তান ম্যাচটিও ছিল দর্শকদের আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দুতে। প্রাইম টাইমে অনুষ্ঠিত হওয়া এ ম্যাচটি ১৩ লাখেরও বেশি দর্শক একইসঙ্গে উপভোগ করেছেন। টুর্নামেন্ট শুরুর পর থেকে এখন পর্যন্ত ৮০ লাখ দর্শক টফিতে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ উপভোগ করেছেন। টুর্নামেন্ট নির্ধারণী পর্যায়ের দিকে আগানোর সঙ্গে এ সংখ্যা আরও বাড়বে।  

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের এক্সক্লুসিভ ডিজিটাল স্বত্ব পেয়েছে বাংলালিংকের নিজস্ব প্ল্যাটফর্ম টফি। তাই বাংলাদেশের যেকোনো স্থান থেকে সরাসরি খেলা উপভোগ করার জন্য টফি দর্শকদের একমাত্র গন্তব্যস্থলে পরিণত হয়েছে। বাংলালিংক ছাড়াও অন্য যেকোনো মোবাইল নেটওয়ার্ক থেকেও এক্সেস করতে পারার কারণে টফি সব মানুষের মধ্যে জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে।

সময়ের সঙ্গে মানুষের জীবনের গতিও বেড়েছে। চলতি পথে সরাসরি খেলা দেখাসহ আরও অন্য সবে বিনোদনের একটি নির্ভরযোগ্য স্থান হয়ে উঠেছে টফি। এ টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের অধিকাংশ ম্যাচই কর্মস্থলে যাওয়া ও কর্মস্থল থেকে ফেরার সময়ে অনুষ্ঠিত হওয়াতে দর্শকরা টফির মাধ্যমে খেলাগুলো সম্পূর্ণ উপভোগ করতে পারছেন।  

টফির মার্কেটিং ডেপুটি ডিরেক্টর মুহাম্মদ আবুল খায়ের চৌধুরী দর্শকদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে বলেন, দেশের অন্যতম ডিজিটাল বিনোদন প্ল্যাটফর্ম হিসেবে টফি সব সময় দর্শকদের মানসম্মত বিনোদনের চাহিদা মেটাতে সচেষ্ট। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে টফির ১০ কোটি বা ১০০ মিলিয়ন মিনিট স্ট্রিমিং দ্বারা বোঝা যায় যে, দর্শকরা আমাদের প্রতি আস্থা রেখেছেন এবং এজন্য আমরা টফির গ্রাহকদের কাছে কৃতজ্ঞ। দর্শকদের স্পোর্টস স্ট্রিমিং চাহিদা মেটাতে আমরা  প্রতিশ্রুতিবদ্ধ।

ইতোমধ্যে ফিফা বিশ্বকাপ কাতার ২০২২, এশিয়া কাপ ক্রিকেট ২০২৩, ও পুরুষদের আইসিসি ওডিআই বিশ্বকাপ ২০২৩-এর মতো বড় আসরের সফল সম্প্রচার করেছে টফি। আমরা আশা করি, আমাদের দর্শকরা টফির সঙ্গে চলমান টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ উপভোগ করবেন। একইসঙ্গে আমরা পঞ্চাশের অধিক বিজ্ঞাপনদাতা ব্র্যান্ডের প্রতিও কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করছি, যারা গ্রাহকদের কাছে পৌঁছানোর জন্য আমাদের প্ল্যাটফর্মের প্রতি আস্থা রেখেছেন। এটি বিজ্ঞাপন প্রচারের দেশীয় প্ল্যাটফর্ম হিসেবে টফির সামর্থ্যকেও তুলে ধরে।

অ্যান্ড্রয়েড ব্যবহারকারীরা গুগল প্লে-স্টোর থেকে, আইওএস ব্যবহারকারীরা অ্যাপ-স্টোর থেকে ও স্যামসাং টিভি ব্যবহারকারীরা টিজেন অ্যাপ স্টোর থেকে সহজেই টফি ডাউনলোড করে নিতে পারবেন।

বাংলাদেশ সময়: ০৭৫৪ ঘণ্টা, জুন ১১, ২০২৪
এমআইএইচ/আরবি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।