ঢাকা, সোমবার, ২১ ফাল্গুন ১৪৩০, ০৪ মার্চ ২০২৪, ২২ শাবান ১৪৪৫

আইন ও আদালত

ফরিদপুরে পাঁচ বছরে ৪৯ হাজার ৯৮৭ মামলার নিষ্পত্তি 

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১২৪৭ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১২, ২০২৩
ফরিদপুরে পাঁচ বছরে ৪৯ হাজার ৯৮৭ মামলার নিষ্পত্তি 

ফরিদপুর: বিচারিক কাজে ভালো কাজের প্রতিযোগিতা আরও বাড়াতে হবে বলে অভিমত ব্যক্ত করেছেন ফরিদপুরের সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ মো. আকবর আলী শেখ। তিনি বলেন, বিচার প্রার্থীদের দ্রুত সময়ে গুণগত বিচারিক সেবা দিতে বিচার বিভাগ অঙ্গীকারবদ্ধ।

বুধবার (১১ জানুয়ারি) বিকেলে জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেসি, ফরিদপুর কর্তৃক আয়োজিত মাসিক পুলিশ-ম্যাজিস্ট্রেসি কনফারেন্সে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। ‌

কনফারেন্সে জানানো হয়, চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. আব্দুল হামিদ ২০১৮ সালে যোগদানের পর থেকে বিচারকার্যে বৃদ্ধি পায় গতিশীলতা, বদলাতে থাকে মামলা নিষ্পত্তির চিত্র। তিনি বিভিন্ন প্রতিবন্ধকতাকে উপেক্ষা করে স্থাপন করেন এক অনুসরণীয় দৃষ্টান্ত। ফরিদপুরে গত পাঁচ বছরে মোট ৪৯ হাজার ৯৮৭টি মামলার নিষ্পত্তি করেছে। এর মধ্যে পাঁচ বছরের অধিক পুরাতন মামলা নিষ্পত্তি হয়েছে ১ হাজার ১০৯টি।

ফরিদপুর জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেসিতে বর্তমানে পাঁচ বছরের অধিক পুরাতন মামলা চলমান আছে মাত্র ১০৭টি। গত ১ জানুয়ারি ২০২২ থেকে ৩১ ডিসেম্বর ২০২২ সাল পর্যন্ত মোট দায়েরকৃত মামলা ১৩ হাজার ৪৩টি হলেও এই বছরে ১৫ হাজার ৯৬টি মামলা নিষ্পত্তি করা হয়। বাৎসরিক মামলা নিষ্পত্তির হার ছিল ১১৬ শতাংশ।  

২০২২ সালে ১৫ হাজার ৮১৪ জন সাক্ষীর সাক্ষ্য নেওয়া হয়। বর্তমানে ফরিদপুর জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেসিতে মোট ৮ হাজার ১৭৯টি মামলা চলমান রয়েছে। নতুন বছরের শুরুতে অনুষ্ঠিত এই কনফারেন্সে ২০২২ সালে ফরিদপুর জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেসি কর্তৃক নিষ্পত্তিকৃত মামলার পরিসংখ্যান উপস্থাপন করা হয় এবং ২০২৩ সালের জন্য ফরিদপুর জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেসির সাতটি লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়।

চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. আব্দুল হামিদের সভাপতিত্বে কনফারেন্সে আরও উপস্থিত ছিলেন ফরিদপুরের পুলিশ সুপার মো. শাহজাহান (পিপিএম-সেবা), সিভিল সার্জন ডা. ছিদ্দিকুর রহমান, অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তরুণ বাছাড়, সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. ফারুক হোসাইন, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) সুমন রঞ্জন সরকার, ফরিদপুর জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি আ. কাদের মিয়া, সাধারণ সম্পাদক মানিক কুমার মজুমদারসহ বিভিন্ন দফতরের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা, বিভিন্ন থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা, প্রিন্ট ও ইলেকট্রনিক্স মিডিয়ার কর্মরত সাংবাদিকরা।

কনফারেন্স শেষে জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট এবং ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের কাজের গতি ও মামলা নিষ্পত্তির হার বাড়াতে উৎসাহ দেওয়ার জন্য দুজন জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট এবং একজন ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে সম্মাননা স্মারক দেওয়া হয়।

অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট তরুণ বাছাড় ও সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মো. ফারুক হোসাইনকে ২০২২ সালের  শ্রেষ্ঠ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট হিসেবে পুরস্কার দেওয়া হয়।

ভাঙ্গার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মো. জিয়ারুল ইসলামকে শ্রেষ্ঠ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা হিসেবে সম্মাননা স্মারক দেওয়া হয়। সভা সঞ্চালনা করেন সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট সালমা আক্তার।

বাংলাদেশ সময়: ১২৪২ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১২, ২০২৩
আরএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।