ঢাকা, সোমবার, ৯ বৈশাখ ১৪৩১, ২২ এপ্রিল ২০২৪, ১২ শাওয়াল ১৪৪৫

আইন ও আদালত

ইয়াবা উদ্ধার মামলায় দুই নারীর যাবজ্জীবন

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫৫৮ ঘণ্টা, মার্চ ২৮, ২০২৩
ইয়াবা উদ্ধার মামলায় দুই নারীর যাবজ্জীবন

ঢাকা: প্রায় দেড় বছর আগে রাজধানীর শনির আখড়া এলাকা থেকে ২৫ হাজার ইয়াবা উদ্ধারের মামলায় দুই নারীকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। মঙ্গলবার (২৮ মার্চ) ঢাকার ৭ম অতিরিক্ত মহানগর দায়রা জজ তেহসিন ইফতেখার এ রায় দেন।

 

দণ্ডপ্রাপ্ত আসামিরা হলেন- রাশিদা বেগম (৩৯) ও মোছা. মোসুমী আক্তার (২৫)। রাশিদা বেগম শরীয়তপুরের ডামুড্যা থানার চর সিধলকুড়ার মৃত সিরাজ ওরফে ছিড়ু সরদারের মেয়ে। একই এলাকার চাঁন মিয়ার মেয়ে মৌসুমী আক্তার।

যাবজ্জীবন কারাদণ্ডের পাশাপাশি প্রত্যেককে এক লাখ টাকা করে অর্থদণ্ড অনাদায়ে তাদের আরও এক বছর করে কারাদণ্ড দেওয়া হয়েছে।

রায় ঘোষণার আগে মৌসুমিকে কারাগার থেকে আদালতে হাজির করা হয়। রায় শেষে সাজা পরোয়ানা দিয়ে তাকে আবার কারাগারে নিয়ে যাওয়া হয়। রাশিদা বেগম উচ্চ আদালত থেকে জামিন নিয়ে পলাতক রয়েছেন। তার বিরুদ্ধে গ্রেফতারি পরোয়ানা জারি করা হয়েছে।  

সংশ্লিষ্ট আদালতের অতিরিক্ত পাবলিক প্রসিকিউটর মাহবুবুর রহমান এসব তথ্য জানান।


২০২১ সালের ১৭ আগস্ট বিকেলে ডিবি পুলিশ রাজধানীর যাত্রাবাড়ী থানার শনির আখড়ার ব্রিজ সংলগ্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে রাশিদা বেগম ও মোছা. মোসুমী আক্তারকে আটক করে। এসময় তাদের সহযোগী মামুন আহম্মেদ পালিয়ে যায়। পুলিশ রাশিদা বেগমের কাছ থেকে ১৫ হাজার ও মৌসুমী আক্তারের কাছ থেকে ১০ হাজার পিস ইয়াবা উদ্ধার করে৷ 

ওইদিনই তিনজনকে আসামি করে মামলা করেন পল্লবী জোনাল টিমের উপ-পরিদর্শক মো. মুরাদুজ্জামান। মামলাটি তদন্ত করে ওই বছরের ১২ অক্টোবর রাশিদা বেগম ও মৌসুমী আক্তারকে অভিযুক্ত করে চার্জশিট দাখিল করেন তদন্ত কর্মকর্তা পল্লবী জোনাল টিমের আরেক উপ-পরিদর্শক মোহাম্মদ নোমান হোসেন। মামুন আহম্মেদেরর বিরুদ্ধে অভিযোগ বিরুদ্ধে অভিযোগ প্রমাণিত না হওয়ায় তাকে অব্যাহতির সুপারিশ করা হয়।  

এরপর রাশিদা বেগম ও মৌসুমী আক্তারের বিরুদ্ধে গত বছরের ১২ অক্টোবর চার্জগঠন করে বিচার শুরুর আদেশ দেন আদালত। মামলার বিচার চলাকালে আদালত ১৩ জন সাক্ষীর মধ্যে ৮ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৫৫৮ ঘণ্টা, মার্চ ২৮, ২০২৩
কেআই/এসএ
 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।