ঢাকা, বুধবার, ৫ আষাঢ় ১৪৩১, ১৯ জুন ২০২৪, ১১ জিলহজ ১৪৪৫

আইন ও আদালত

আদম তমিজি হক ও তার দুই স্ত্রীর নামে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা 

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯০৯ ঘণ্টা, মে ২৩, ২০২৪
আদম তমিজি হক ও তার দুই স্ত্রীর নামে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা 

টাঙ্গাইল: দেশের নামকরা শিল্প প্রতিষ্ঠান হক ফুড ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আদম তমিজি হকের নামে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেছেন আদালত।  

চেক ডিসঅনারের দুটি মামলায় টাঙ্গাইলের অতিরিক্ত চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট ও টাঙ্গাইল সদর থানা আমলি আদালতের বিচারক মো. মাহমুদুল মোহসীন বৃহস্পতিবার  (২৩ মে) দুপুরে আদম তমিজি হক ও তার দুই স্ত্রীসহ পাঁচজনের নামে এ গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন।

অন্য আসামিরা হলেন- আদম তমিজি হকের স্ত্রী হক ফুড ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক নুসরাত আক্তার হক, তার আরেক স্ত্রী হক ফুড ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের পরিচালক লিজা আক্তার হক, হক ফুডের জিএম (ফিন্যান্স অ্যান্ড অ্যাকাউন্টস) মো. রেজাউল করিম ও সিনিয়র জিএম (বিডি অ্যান্ড লজিস্টিকস) মুশফাকুর রহমান।
 
বাদীপক্ষের আইনজীবী অ্যাডভোকেট এম এ মালেক আদনান জানান, ঢাকার মাহবুব গ্রুপ অব ইন্ডাস্ট্রিজের অঙ্গ প্রতিষ্ঠান কেবিসি অ্যাগ্রো প্রোডাক্টস প্রাইভেট লিমিটেডের সঙ্গে হক ফুড ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেডের ব্যবসা ছিল। ব্যবসায়িক লেনদেনে হক ফুড ১৯ লাখ ৪৫ হাজার ৩০০ টাকা বকেয়া করে। আসামিরা এ বকেয়া পরিশোধের জন্য কেবিসি কোম্পানিকে দুটি চেক দেন। কিন্তু চেক দুটি ‘অ্যাডভাইস নট রিসিভড’ মন্তব্যে ব্যাংক কর্তৃক ডিসঅনার হয়। পরে কেবিসি কোম্পানির পক্ষে ইমরান হোসেন (ম্যানেজার রিকোভারি) বাদী হয়ে ২০২৩ সালের ৭ ডিসেম্বর হক ফুডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আদম তমিজি হকসহ পাঁচজনকে আসামি করে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট টাঙ্গাইল সদর থানা আমলি আদালতে মামলাটি করেন। বিচারক মামলা আমলে নিয়ে আসামিদের নামে সমনের আদেশ দেন। বৃহস্পতিবার (২৩ মে) ছিল মামলার হাজিরার ধার্য তারিখ। কিন্তু আসামিরা আদালতে হাজির না হওয়ায় বিচারক তাদের নামে গ্রেপ্তারি পরোয়ানা জারি করেন এবং আগামী ২১ আগস্ট মামলার পরবর্তী তারিখ ধার্য করেন।  

বাংলাদেশ সময়: ১৯০৬ ঘণ্টা, মে ২৩, ২০২৪
এসআই

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।