ঢাকা, শুক্রবার, ৫ বৈশাখ ১৪৩১, ১৯ এপ্রিল ২০২৪, ০৯ শাওয়াল ১৪৪৫

জাতীয়

অপহরণের ৪ ঘণ্টা পর কিশোরী উদ্ধার, আটক ১

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১০০৭ ঘণ্টা, মার্চ ১, ২০২৪
অপহরণের ৪ ঘণ্টা পর কিশোরী উদ্ধার, আটক ১

চাঁদপুর: চাঁদপুরের হাজীগঞ্জে সপ্তম শ্রেণির এক কিশোরীকে অপহরণের মাত্র চার ঘণ্টার মধ্যে উদ্ধার করেছে পুলিশ।

বৃহস্পতিবার (২৯ ফেব্রুয়ারি) বিকেলে বিদ্যালয় থেকে বাড়ি ফেরার পথে অপহরণের ঘটনা ঘটে।

এরপর রাত প্রায় ৮টার দিকে সদর উপজেলার রামপুর ইউনিয়নের ছোট সুন্দর এলাকা থেকে থেকে কিশোরীকে উদ্ধার করা হয়।

কিশোরী গন্ধব্যপুর ইউনিয়নের হরিপুর গ্রামে থাকেন। সে স্থানীয় জগন্নাথপুর হাজী এরশাদ মিয়া উচ্চবিদ্যালয়ের সপ্তম শ্রেণির শিক্ষার্থী।

প্রত্যক্ষদর্শীরা সুমন ও শরীফ নামে যুবক জানান, গন্ধর্ব্যপুর উত্তর ইউনিয়নের হরিপুর গ্রামের ধোপা বাড়ি ও মজুমদার বাড়ি সংলগ্ন এলাকা থেকে ওই কিশোরীকে জোরপূর্বক সিএনজিচালিত স্কুটারে উঠিয়ে নিয়ে যায় সাব্বির (২৩) ও রনি (২১) নামের দুই যুবক। অপহরণকারী এই দুই যুবক চাঁদপুর সদর উপজেলার মহামায়া এলাকার বাসিন্দা বলে জানা গেছে। তারা দুইজন গত এক বছর যাবত ওই এলাকায় পাকা সড়ক নির্মাণ কাজের শ্রমিক হিসেবে কাজ করতেন। তবে আমরা শুনেছি মেয়েটির সঙ্গে ছেলেটির প্রেমের সম্পর্ক রয়েছে।

ওই কিশোরীর সহপাঠী ও তার খালাতো বোন জানান, বিদ্যালয় ছুটির পর আমরা দুইজন বাড়ি ফিরছিলাম। হঠাৎ করে হরিপুর-জগন্নাথপুর সড়কের মজুমদার বাড়ির সামনে এলে সাব্বির ও রনি জোরপূর্বক ইশরাতকে সিএনজিতে তোলে। এ সময় আমিসহ সড়কের পাশের লোকজন ডাক চিৎকার দিলে ও সিএনজি স্কুটারটি পালিয়ে যায়।  

কিশোরীর মা জানান, স্বামীর বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার আখাউড়ায়। গত ৮ বছর ধরে আমি স্বামী ও সন্তানদের নিয়ে বাবার বাড়ি গন্ধব্যপুরে চলে আসি। তিনি আরও বলেন, মেয়েকে কখনও দেখিনি কারোর সঙ্গে কথা বলতে। আমি নিজেও মোবাইল ফোন ব্যবহার করি না। স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে আমার মেয়েকে তুলে নিয়ে গেছে। আমি আমার মেয়েকে ফেরত চাই।

এদিকে অপহরণের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে যান হাজীগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. খুরশীদ আলমসহ সঙ্গীয় ফোর্স। পরে হাজীগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মুহাম্মদ আব্দুর রশিদের সার্বিক দিক-নির্দেশনায় তথ্যপ্রযুক্তির সহযোগিতায় অপহৃত কিশোরীকে চাঁদপুর সদর উপজেলার রামপুর ইউনিয়নের ছোট সুন্দর এলাকা থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। এ সময় পুলিশ মূল অভিযুক্ত সাব্বিরকে আটক করে।

এ দিকে এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে একই বিদ্যালয়ের এক কিশোরীকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশি হেফাজতে আনা হয়েছে।

এ ব্যাপারে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (হাজীগঞ্জ সার্কেল) পঙ্কজ কুমার দে জানান, অপহৃত কিশোরীকে উদ্ধার করা হয়েছে। অন্য অভিযুক্তকে আটকের জন্য অভিযান চলমান রয়েছে। এ ঘটনায় আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বাংলাদেশ সময়: ১০০৭ ঘণ্টা, মার্চ ০১, ২০২৪
এসএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।