ঢাকা, সোমবার, ৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২০ মে ২০২৪, ১১ জিলকদ ১৪৪৫

জাতীয়

আরো তিন শিশুর লাশ উদ্ধার, বেগুনবাড়ি দুর্ঘটনায় মৃতের সংখ্যা বেড়ে ২৪

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৬৪৯ ঘণ্টা, জুন ৬, ২০১০

ঢাকা: রাজধানীর তেজগাঁও শিল্পাঞ্চলের দণি বেগুনবাড়িতে ধসেপড়া বাড়ির নিচ থেকে বুধবার দিবাগত রাতে আরো তিন শিশুর লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। দমকলবাহিনীর কর্মীরা জানা,ন রাত সাড়ে ১১টার দিকে ২টি শিশুর আর রাত পৌণে দুইটার দিকে একটি শিশুর লাশ উদ্ধার করেন তারা।

এনিয়ে দুর্ঘটনায় মৃতের সংখ্যা ২৪ জনে দাঁড়িয়েছে।

উদ্ধার হওয়া শিুশুর নাম শাওন (৫), আসিয়া (৩) ও বিশাল (৩মাস)। মৃত তিনটি শিশুই এই দুর্ঘটনায় নিহত মনতাজ বেগমের সন্তান।  

সেনাবাহিনী ও দমকলবাহিনীর সদস্যরা সার্চ লাইট জ্বালিয়ে রাতভর উদ্ধার অভিযান চালান। তবে আজ বৃহস্পতিবার ভোর ৪টা পর্যন্ত জীবিত বা মৃত আর কাউকে উদ্ধার করা সম্ভব হয় নি।  

দমকলবাহিনীর ঢাকা অঞ্চলের প্রধান ফাতেমা আক্তার রাত সাড়ে ১১টার দিকে বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম.বিডিকে বলেন, আমরা উদ্ধার অভিযান চালিয়ে যাচ্ছি।

এর আগে বুধবার বিকেল ৫ টা পর্যন্ত ২১টি লাশ উদ্ধার করা হয়। এখন তা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ২৪ জনে। নিহতদের মধ্যে আট শিশু, নয় জন মহিলা এবং সাত জন পুরুষ রয়েছেন। এছাড়াও আহত হয়েছেন অর্ধশতাধিক নারী, পুরুষ ও শিশু। এদের মধ্যে ১২ জন ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

কাত হয়ে পড়া ভবনটির নিচে আরো ২৫/৩০ জন চাপা পড়ে আছে বলে গতরাতে উদ্ধারকর্মীরা জানিয়েছেন। তবে  চাপা পড়ে থাকা কারো বেঁচে থাকার সম্ভাবনা নেই বলে গতরাতে বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম.বিডির কাছে মন্তব্য করেন দমকল বাহিনীর মহাপরিচালক ব্রিগেডিয়ার জেনারেল আবু নাইম মো. শহীদুল্লাহ।

মঙ্গলবার রাত পৌণে এগারোটার দিকে চারতলা ভবনটি কাত হয়ে পাশের টিনের তিনতলা ছাপড়া ঘর চাপা দেয়। এতে ভবনের ভেতরের লোকজন ও ছাপড়া ঘরের অনেকেই ভবনের নিচে চাপা পড়ে। ওই রাত ১২টা থেকেই সেনাবাহিনীর ইঞ্জিনিয়ার কোর, সিটি কর্পোরেশন, রাজউক ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা উদ্ধার অভিযান শুরু করে। বুধবার সকাল থেকে তাদের সঙ্গে রেড ক্রিসেন্ট ও রোভার স্কাউটের দেড় শতাধিক কর্মী উদ্ধার কাজে অংশ নেন। ঘটনাস্থল ও আশপাশের এলাকা র‌্যাব ও পুলিশ সদস্যরা ঘিরে রেখেছেন। দুর্ঘটনাস্থলে লোকজনকে প্রবেশ করতে দেওয়া হচ্ছে না।

এ পর্যন্ত পরিচয় পাওয়া নিহতরা হলেন- এজেন (৩২), মেঘনা (৫), আজিজুল (৩২), রবিউল (৩০), শায়রা খাতুন (২৫), জাহানারা (২৫), সান্ত্বনা (১৭), ইমাম হোসেন (২৬), মোর্শেদা বেগম (২৫), মনিজা (২৫), কল্পনা (২২), শারমিন (২৭),  মনতাজ (২৫), শাওন (৫), আসিয়া (৩), বিশাল (৩মাস)।

ঢাকা জেলা প্রশাসক কার্যালয়ের প থেকে নিহত পরিবারদের ২০ হাজার টাকা করে নগদ সহায়তা দেওয়া হয়েছে। নিহতদের মধ্যে যাদের পরিচয় জানা গেছে তাদের লাশ গ্রামের বাড়ি পাঠানোর ব্যবস্থা করা হয়েছে বলে ঢাকার জেলা প্রশাসক মহিবুল হক জানিয়েছেন।

ব্রিগেডিয়ার জেনারেল শারাফাতের নেতৃত্বে সেনাবাহিনীর ১৪ ইঞ্জিনিয়ারিং কোর সদস্যরা উদ্ধার কাজে অংশ নিয়েছেন। রেডক্রিসেন্টের ভূমিকম্প বিভাগের প্রধান এস এম তুহিন আহমেদের নেতৃত্বে অর্ধশতাধিক স্বেচ্ছাসেবক তিন ভাগ হয়ে উদ্ধার কাজ চালাচ্ছেন। রোভার স্কাউটেরও ৭০ জনের একটি টিম উদ্ধার কাজে অংশ নিয়েছে।

স্থানীয়রা জানান, মঙ্গলবার রাত সাড়ে ১০টার দিকে বেগুনবাড়ি পোস্ট অফিসের পেছনে ঝিলপাড়ে নবনির্মিত একটি পাঁচতলা ভবন পাশের বস্তিতে ধসে পড়ে। এতে চাপা পড়ে চারটি টিনের টং ঘরের বসবাসরত সবাই নিহত হন।

বাংলাদেশ স্থানীয় সময়: ১০২৪ ঘণ্টা, জুন ০৩, ২০১০
এসআরআর/বিকে/এমএমকে/জেএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।