ঢাকা, রবিবার, ১৫ মাঘ ১৪২৯, ২৯ জানুয়ারি ২০২৩, ০৬ রজব ১৪৪৪

জাতীয়

২০২১ সালে দেশে গণপিটুনিতে মারা গেছেন ২৮ জন!

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৮১৭ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১, ২০২২
২০২১ সালে দেশে গণপিটুনিতে মারা গেছেন ২৮ জন! প্রতীকী ছবি

ঢাকা: ২০২১ সালে দেশে গণপিটুনিতে ২৮ জন মারা গেছেন বলে জানিয়েছে আইন ও সালিশ কেন্দ্র (আসক)।

শুক্রবার (৩১ ডিসেম্বর) ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে ‘বাংলাদেশের মানবাধিকার পরিস্থিতি ২০২১: আইন ও সালিশ কেন্দ্রের পর্যালোচনা’ শীর্ষক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানানো হয়।

আইন ও সালিশ কেন্দ্রের প্রতিবেদনে বলা হয়, দেশে বিচারহীনতার সংস্কৃতির কারণে গণপিটুনিতে মৃত্যুর মতো ঘটনা ঘটছে। গণমাধ্যমে প্রকাশিত সংবাদের ভিত্তিতে আসকের পরিসংখ্যান অনুযায়ী ২০২১ সালে গণপিটুনির ঘটনায় নিহত হয়েছেন ২৮ জন।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশে গণপিটুনির ক্ষেত্রে আইন থাকলেও আমাদের দেশে এ সংক্রান্ত কোনো আইন নেই। তবে ২০১৯ সালের আলোচিত নিরাপরাধ নারী রেনু বেগমের গণপিটুনিতে মৃত্যুর ঘটনায় দায়েরকৃত রিট মামলায় ২০২০ সালে হাইকোর্ট বেশ কিছু নির্দেশনা দেন। উক্ত নির্দেশনা অনুসারে গণপিটুনি রোধে বিশেষ আইন প্রণয়ন করার কথা বলা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, আসকের তথ্যানুসন্ধানে জানা যায়, গত ২৬ সেপ্টেম্বর করোনার টিকা নেওয়ার জন্য ঢাকার নবাবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে লাইনে দাঁড়ানোর এক পর্যায়ে স্থানীয় এক নারী তার পাশে দাঁড়ানো রুনা ও পপি নামে দুই নারীকে চোর সন্দেহে আটক করেন। এরপর ওই দুই নারীকে জোরপূর্বক স্থানীয় হযরত আলীর বাড়িতে নিয়ে গাছের সঙ্গে বেঁধে বেধরক মারপিট করা হয়। এ ঘটনায় রুনা ঘটনাস্থলেই মারা যান এবং পপিকে গুরুতর আহত অবস্থায় নবাবগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

সীমান্ত হত্যা ও নির্যাতন:

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, আসক তথ্য সংরক্ষণ ইউনিটের হিসাব মতে, ২০২১ সালে ভারতের সীমান্তরক্ষী বাহিনী বিএসএফের গুলিতে ১৬ জনসহ মোট ১৮ জন বাংলাদেশি নিহত হয়েছেন।

আসকের প্রতিবেদনে বলা হয়, ২০২১ সালে বাংলাদেশ-ভারত সীমান্তে ভারতীয় সীমান্তরক্ষী বাহিনী (বিএসএফ) কর্তৃক বাংলাদেশি নাগরিকদের গুলি করে হত্যা ও নির্যাতনের ঘটনাও ছিল উল্লেখযোগ্য।

সংবাদ সম্মেলনে ২০২১ সালে বাংলাদেশের মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে মূল প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন আসকের জ্যেষ্ঠ সমন্বয়কারী আবু আহমেদ ফয়জুল কবির ও সহকারী সমন্বয়কারী অনির্বাণ সাহা।

সংবাদ সম্মেলনে সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন আসক নির্বাহী কমিটির মহাসচিব মো. নূর খান। অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন আসকের নির্বাহী পরিচালক গোলাম মনোয়ার কামাল ও পরিচালক নীনা গোস্বামী।

বাংলাদেশ সময়: ০৮১৬ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০১, ২০২২
এমইউএম/এমআরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa