ঢাকা, সোমবার, ২৩ মাঘ ১৪২৯, ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৪ রজব ১৪৪৪

জাতীয়

নিরাপদ ফসল উৎপাদনে কুষ্টিয়ায় পুতুল নাচ

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১১০৮ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১, ২০২২
নিরাপদ ফসল উৎপাদনে কুষ্টিয়ায় পুতুল নাচ পুতুল নাচ

কুষ্টিয়া: জমিতে অতিরিক্ত মাত্রায় রাসনায়িক সারের ব্যবহার কমিয়ে আধুনিক উপায়ে জৈব সার ব্যবহারের মাধ্যমে নিরাপদ সবজি, ফসল ও ফল উৎপাদনে কৃষকদের উদ্বুদ্ধ করতে কুষ্টিয়ার মিরপুরে গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী পুতুল নাচ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

শুক্রবার (৩১ ডিসেম্বর) সন্ধ্যা ৭টায় মিরপুর উপজেলা কৃষি অফিস ও কৃষিভিক্তিক ইউটিউব চ্যানেল কৃষিবিডি যৌথ উদ্যোগে নিরাপদ উপায়ে ফসল উৎপাদন প্রযুক্তির ওপরে এ পুতুল নাচ অনুষ্ঠিত হয়।

পুতুল নাচ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম-সচিব জালাল আহম্মেদ।

অনুষ্ঠানে মিরপুর উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা রমেশ চন্দ্র ঘোষের সভাপতিত্বে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মিরপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আব্দুল কাদের, কুষ্টিয়ার উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আবুল কাশেম জোয়ার্দ্দার, কুষ্টিয়ার সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার (মিরপুর সার্কেল) আজমল হোসেন, মিরপুর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবুল কালাম, উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ কর্মকর্তা ইমরান বিন ইসলাম, উপ-সহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা ফরহাদ শরীফ, কৃষিবিডির পরিচালক জাহিদ হাসানসহ উপজেলার বিভিন্ন দপ্তরের প্রধানগণ।

এছাড়া অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা কৃষি অফিসের উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তাগণ, উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে আগত প্রায় ২ শতাধিক মডেল কৃষক ও কৃষাণীরা।

জমিতে অতিরিক্ত মাত্রায় রাসনায়িক সার, অধিকমাত্রায় কীটনাশক ব্যবহারের কুফল, জৈব সার ব্যবহারের উপকারিতা, নিরাপদ উপায়ে মাঠ ফসল, সবজি উৎপাদন ও বিষমুক্ত শাকসবজি উৎপাদন প্রযুক্তির ওপরে গুরুত্ব দিয়ে পুতুল নাচ পরিবেশন করেন দেশের ঐতিহ্যবাহী পুতুল নাচ শিল্পী গোষ্টি “মনহারা পুতুল নাচ দল।

পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম-সচিব জালাল আহম্মেদ বলেন, গ্রাম বাংলার ঐতিহ্যবাহী পুতুল নাচের মাধ্যমে নিরাপদ ফসল উৎপাদনের কৌশল কৃষকদের আরও উদ্বুদ্ধ করেছে। এ ধরনের অনুষ্ঠানের মাধ্যমে কৃষি সম্প্রসারণ আরও বেগবান হবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন তিনি।

মনহারা পুতুল নাচ দলের পরিচালক আব্দুল কুদ্দুস বলেন, বিষমুক্ত সবজি ও নিরাপদ ফসল উৎপাদন এটি পুতুলের মাধ্যমে প্রথম। এটি দেখে কৃষকরা অনেক উপকৃত হয়েছে বলে আশা করেন তিনি।

উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা রমেশ চন্দ্র ঘোষ বলেন, কৃষি জমিতে যাতে অতিরিক্ত মাত্রায় কৃষকরা কীটনাশক ও রাসনায়িক সার ব্যবহার না করে এবং জৈব পদ্ধতিতে চাষাবাদ করে নিরাপদ ফসল উৎপাদন করে এ লক্ষ্যে মিরপুর উপজেলার কৃষকদের উদ্বুদ্ধ করতে এই আয়োজন করা হয়।

বাংলাদেশ সময়: ১১০৮ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০১, ২০২২
আরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa