ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৫ মাঘ ১৪২৯, ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৭ রজব ১৪৪৪

জাতীয়

থানা বেষ্টনীতে তরুণী ধর্ষণ; সেই কনস্টেবল বরখাস্ত 

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২২২৩ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৮, ২০২২
থানা বেষ্টনীতে তরুণী ধর্ষণ; সেই কনস্টেবল বরখাস্ত 

নোয়াখালী: নোয়াখালীর সুধারাম মডেল থানা এলাকায় ট্রাফিক পুলিশের কোয়ার্টারে তরুণীকে (২৩) ধর্ষণের ঘটনায় ট্রাফিক পুলিশের কনস্টেবল মকবুল হোসেনকে (৩২) সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

শনিবার (৮ জানুয়ারি) রাতে বিষয়টি নিশ্চিত করেন জেলা পুলিশ সুপার (এসপি) মো. শহীদুল ইসলাম।

 

তিনি জানান, ধর্ষণ মামলায় কারাগারে প্রেরণকৃত কনস্টেবল মকবুলকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (হেড কোয়ার্টার) মোরতাহিন বিল্লাহকে প্রধান করে তিন সদস্যের বিভাগীয় তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। কমিটির প্রতিবেদন হাতে পেলে বিধি মোতাবেক পরবর্তী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।  

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (হেড কোয়ার্টার) মোরতাহিন বিল্লাহ বলেন, 'আমাকে প্রধান করে ৩ সদস্যের বিভাগীয় তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়েছে। ৫ কার্যদিবসের মধ্যে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের নিকট আমরা তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেবো। '

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা সুধারাম মডেল থানার পরিদর্শক (অপারেশন) মিজানুর রহমান পাঠান জানান, আজ শনিবার (৮ জানুয়ারি) ভিকটিম ২২ ধারায় আদালতে জবানবন্দী দিয়েছেন। আগামীকাল রোববার (৯ জানুয়ারি)  ডিএনএ পরীক্ষার জন্য তাকে ঢাকায় নেওয়ার প্রস্তুতি চলছে।

এর আগে গত ৭ জানুয়ারি সুধারাম মডেল থানা এলাকায় ট্রাফিক পুলিশের কোয়ার্টারে এক তরুণীকে (২৩) ধর্ষণের ঘটনায় মামলা করেন তার মা। ট্রাফিক পুলিশের কনস্টেবল মকবুল হোসেনসহ চারজনকে গ্রেফতারের পর ওই মামলায় আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়।

কারাগারে পাঠানো ৪ জন- নোয়াখালী সদর ট্রাফিক পুলিশের কনস্টেবল (কং/২৬৪) মকবুল হোসেন (৩২), বেগমগঞ্জ উপজেলার নাজিরপুর গ্রামের সিএনজি চালক মো. কামরুল (২৫), সদর উপজেলার দাদপুর গ্রামের আবদুল মান্নান (৪৯) এবং বেগমগঞ্জ উপজেলার অনন্তপুর গ্রামের নুর হোসেন কালু (৩০)।

আরও পড়ুন- থানা বেষ্টনীর মধ্যেই ধর্ষণ করলো পুলিশ!

বাংলাদেশ সময়: ২২২৩ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০৮, ২০২২
এমএইচএম 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa