ঢাকা, বুধবার, ১৯ মাঘ ১৪২৯, ০১ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ০৯ রজব ১৪৪৪

জাতীয়

সিজারে নার্স, আল-মদিনা হাসপাতাল বন্ধ ঘোষণা

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২৩০১ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৫, ২০২২
সিজারে নার্স, আল-মদিনা হাসপাতাল বন্ধ ঘোষণা

ফরিদপুর: ফরিদপুরের আল-মদিনা প্রাইভেট হাসপাতাল অনির্দিষ্টকালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে।  

রুপা আক্তার (২০) নামের অন্তঃসত্ত্বাকে নার্স সিজার করার অভিযোগ ওঠার পর শনিবার (১৫ জানুয়ারি) দুপুরে হাসপাতালটি বন্ধ ঘোষণা করেন জেলা সিভিল সার্জন ডা. মো. ছিদ্দীকুর রহমান।

শনিবার দুপুরে এক বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানায় জেলা সিভিল সার্জন কার্যালয়।  

সিভিল সার্জন ডা. মো. ছিদ্দীকুর রহমান বলেন, ফরিদপুর মেডিক্যাল প্রাকটিস এবং বেসরকারি ক্লিনিক ও ল্যাবরেটরি (নিয়ন্ত্রণ) অধ্যাদেশ, ১৯৮২-এর বিধান লঙ্ঘন করায় ও প্রতিপালনে ব্যর্থ হওয়ায় শনিবার দুপুর ২টা থেকে অনির্দিষ্টকালের জন্য হাসপাতালটি বন্ধ ঘোষণা করা হয়েছে। পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত ওই হাসপতালটি বন্ধ থাকবে।  

এর আগে এই ঘটনা নিয়ে ‘সিজারে নার্স, নবজাতককে ৯ সেলাই!’  শিরোনাম একটি সংবাদ প্রকাশ হয় বাংলানিউজে।  

প্রসঙ্গ, আল-মদিনা নামে ফরিদপুরের একটি প্রাইভেট হাসপাতালে অন্তঃসত্ত্বা রুপা আক্তারকে সিজার করেন চায়না বেগম নামের এক নার্স। সিজারের সময় নবজাতকের মাথাসহ শরীরের কয়েক জায়গায় কেটে ফেলেন তিনি। পরে নবজাতকের মাথায় ৯টি সেলাই দেওয়া হয়।

সেই নবজাতকের অবস্থা এখন আশঙ্কাজনক। নবজাতক ও তার মা ফরিদপুরের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।  

প্রসূতি মায়ের বাড়ি রাজবাড়ী জেলার গোয়ালন্দ এলাকায়। ঘটনাটি ফরিদপুরজুড়ে আলোচিত হলে আল-মদিনা হাসপাতালের মালিক পলাশ মোল্যা ও সিজার করা নার্স চায়না বেগমকে আটক করে পুলিশ।  

কোতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এম এ জলিল বলেন, আটক হাসপাতালটির মালিক পলাশ ও নার্স চায়নার বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে পুলিশ কাজ করছে।  

আরও পড়ুন:
সিজারে নার্স, নবজাতককে ৯ সেলাই!

বাংলাদেশ সময়: ২৩০১ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৫, ২০২১
জেএইচটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa