ঢাকা, সোমবার, ১৩ ফাল্গুন ১৪৩০, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৫ শাবান ১৪৪৫

রাজনীতি

বিএনপি-জামায়াতের মৃত্যুঘণ্টা বাজিয়ে দিতে চান সাদ্দাম

ইউনিভার্সিটি করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬৫৩ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৩, ২০২৩
বিএনপি-জামায়াতের মৃত্যুঘণ্টা বাজিয়ে দিতে চান সাদ্দাম

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, (ঢাবি): ২০২৪ সালে দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচনে অশুভ ও অসুর শক্তি বিএনপি-জামায়াতের রাজনৈতিক মৃত্যু ঘণ্টা বাজিয়ে দিতে চান কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি সাদ্দাম হোসেন। এ লক্ষ্যে মাঠে থেকে কাজ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছেন তিনি।

মঙ্গলবার (৩ জানুয়ারি) ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিনে সংগঠনের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে একথা জানান তিনি।

ছাত্রলীগ সভাপতি বলেন, আজ প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী থেকে শপথ করতে চাই, আমরা একটা লড়াই লড়তে চাই এবং এ লড়াইয়ের শেষ আমরা দেখতে চাই। যারা জাতির পিতা হত্যাকারী, বঙ্গবন্ধু তনয়া প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যা চেষ্টা করেছে, যারা রাষ্ট্রীয় ক্ষমতায় থেকে রাষ্ট্রীয় মেশিনারিজ ব্যবহার করে জঙ্গিবাদী কর্মকাণ্ড পরিচালনা করেছে, বাংলাদেশের রন্ধ্রে রন্ধ্রে দুর্নীতি প্রবেশ করিয়েছে, সে দুর্নীতিবাজদেরকে যারা পুনর্বাসন করতে চায়, খুনিদের মুক্তি যাদের রাজনৈতিক এজেন্ডায় পরিণত হয়েছে, গণতন্ত্রের লাইসেন্স নিয়ে যারা মানুষ হত্যার রাজনীতি ইতিমধ্যে করেছে আজকে আমরা পরিষ্কার করে বলতে চাই সেই অশুভ, অপশক্তির বিনাশ বাংলার মাটিতে আমরা নিশ্চিত করে ছাড়বো।

তিনি বলেন, আমরা মনে করি, এই সন্ত্রাসী, খুনি, জঙ্গিবাদের পৃষ্ঠপোষক দুর্নীতিবাজদের পুনর্বাসন বিএনপি-জামায়াত নৈতিকভাবে তাদের পলিটিকাল ডেথ সার্টিফিকেট নিশ্চিত না করা পর্যন্ত আমাদের মুক্তিযুদ্ধের চেতনা নিরাপদ নয়। সন্ত্রাস মুক্ত, সেশনজট মুক্ত ক্যাম্পাস নিরাপদ নয়। ৭৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীতে তাই আজ বাংলাদেশের ছাত্র সমাজ অশুভ শক্তি বিএনপি-জামায়াতের রাজনৈতিক মৃত্যু ঘণ্টা নিশ্চিত করতে প্রত্যয় ব্যক্ত করছে। ১৯৫৪ সালে মুসলিম লীগের কবর রচনা করেছিল বাংলাদেশের ছাত্র সমাজ এবং আগামী ২০২৪ সালের নির্বাচনে অশুভ ও অসুর শক্তি বিএনপি-জামায়াতের রাজনৈতিক মৃত্যু ঘণ্টা আমরা নিশ্চিত করব।

দ্বাদশ জাতীয় নির্বাচনে শেখ হাসিনাকে বিজয়ী করা দেশ প্রেমের অংশ হিসেবে অভিহিত করেন সাদ্দাম। তিনি বলেন, বাংলাদেশের ছাত্র সমাজ ইতোমধ্যে স্মার্ট বাংলাদেশের পক্ষে রায় দিয়েছে। শেখ হাসিনার নিরঙ্কুশ বিজয় নিশ্চিত করার জন্য শপথ নিয়েছে। আগামী ২০২৪ সালের নির্বাচনে ছাত্র সমাজের রায়ের ওপর ভিত্তি করে আমাদের স্বপ্ন নিরাপদ রাখতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিরঙ্কুশ বিজয় পেতে যাচ্ছেন। আজকে শেখ হাসিনাকে পুনঃ নির্বাচিত করাকে বাংলাদেশের ছাত্র সমাজ নৈতিক দায়িত্ব মনে করছে। ‌তাকে নির্বাচিত করা দেশপ্রেমের অংশে পরিণত হয়েছে।

কেন্দ্রীয় ছাত্রলীগের সভাপতি আরও বলেন, বঙ্গবন্ধু তনয়া শেখ হাসিনার নেতৃত্বে আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থায় বৈপ্লবিক রূপান্তর ঘটাতে সক্ষম হয়েছে। গতকালই ৫ কোটি শিক্ষার্থীর জন্য প্রায় ৩৩ কোটি বই বিনামূল্যে বিতরণ করা হয়েছে। আজকে আমরা এমন একটি সরকারের সময়ে ৭৫তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালন করছি, শিক্ষা বাজেট তৎকালীন বিএনপি-জামায়াত জোট সরকারের টোটাল বাজেটের চেয়েও বেশি। যে সরকার মাদ্রাসা শিক্ষার্থীদের শিক্ষার সঙ্গে আমাদের মূল ধারার টেকনিক্যাল শিক্ষার সম্পর্ক তৈরি করেছে। যে সরকারের সময়ে সততা, দক্ষতা, ও মেধার ভিত্তিতে পিএসসিসহ সকল চাকরিতে প্রবেশের সুযোগ পায়, যে সরকারের সময়ে ক্যাম্পাস হলো সন্ত্রাস মুক্ত, সেশনজট মুক্ত।

এ সময় সাংবাদিকদের নানা প্রশ্নের জবাব দেন সাদ্দাম হোসেন। আবাসন সংকট নিয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ১০০ বছরের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো মাস্টার প্ল্যান গ্রহণ করা হয়েছে। যেখানে আবাসন সক্ষমতা ১৮ হাজার থেকে ৩৪ হাজারে উন্নীত করা হচ্ছে। শুধু ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় নয় অন্যান্য পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়সহ সকল বিশ্ববিদ্যালয়ে এ ধরনের পরিকল্পনা গ্রহণ করা হয়েছে। এই পরিকল্পনার বাস্তবায়িত হলে স্মার্ট বাংলাদেশে কোনো আবাসিক আবাসন থাকবে না। বাংলাদেশ ছাত্রলীগ আবাসন সংকট মোকাবিলায় যেকোনো সহযোগিতা করতে প্রস্তুত রয়েছে।

গণরুম বিষয়ে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে সাধারণ সম্পাদক শেখ ওয়ালি আসিফ ইনান বলেন, ছাত্রলীগ গণরুম প্রথা নামে কোনো প্রথায় বিশ্বাস করে না। ছাত্রলীগ বিশ্বাস করে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রথম দিন থেকেই একজন সাধারণ শিক্ষার্থী সুন্দর, সুষ্ঠুভাবে আবাসনে থাকতে পারে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নেতৃত্বেই আবাসন সমস্যা ধীরে ধীরে সমাধান হচ্ছে। আমরা বিশ্বাস করি অচিরেই বাংলাদেশের প্রত্যেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীরা তাদের আবাসিক ব্যবস্থার সম্পূর্ণ সুযোগ সুবিধা ভোগ করবে।

বাংলাদেশ সময়: ১৬৫২ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৩, ২০২২
এসকেবি/এমজে

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।