ঢাকা, মঙ্গলবার, ২২ ফাল্গুন ১৪৩০, ০৫ মার্চ ২০২৪, ২৩ শাবান ১৪৪৫

রাজনীতি

নির্বাচনের আগেই পার্লামেন্ট ভেঙে দিতে হবে: নিতাই রায় চৌধুরী

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯৩৭ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৫, ২০২৩
নির্বাচনের আগেই পার্লামেন্ট ভেঙে দিতে হবে: নিতাই রায় চৌধুরী

মেহেরপুর: বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান অ্যাডভোকেট নিতাই রায় চৌধুরী বলেছেন, আগামী নির্বাচনের আগেই বর্তমান সরকারের পার্লামেন্ট ভেঙে দিতে হবে। নির্দলীয় নিরপেক্ষ তত্বাবধায়ক সরকারের আওতায় সুষ্ঠভাবে জাতীয় নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে হবে।

বিগত সময়ে নির্দলীয় নিরপেক্ষ নির্বাচন না হওয়ায় বিগত ২০১৪ ও ২০১৮ সালে বিএনপি নির্বাচন বয়কট করেছে। সামনের জাতীয় নির্বাচনও বয়কট করা হবে।

বৃহস্পতিবার (৫ জানুয়ারি) দুপুরের মেহেরপুর জেলা বিএনপি ঘোষিত যুগপৎ আন্দোলনের ১০ দফা ও রাস্ট্র কাঠামো মেরামতের রূপরেখা নিয়ে ব্যাখ্যা ও আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি।

মেহেরপুর জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক এমপি মাসুদ অরুণের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত এ আলোচনা সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সহসাংগাঠনিক সম্পাদক বাবু জয়ন্ত কুমার কুন্ডু, মেহেরপুর জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক ও সাবেক এমপি আমজাদ হোসেন, সিনিয়র সহসভাপতি জাভেদ মাসুদ মিল্টন, আলমগীর খান ছাতু, ইলিয়াস হোসেন ও আব্দুর রহমান।

বিএনপির আন্দোলন ব্যর্থ হয়েছে সাংবাদিকদের এমন প্রশ্নের জবাবে নিতাই রায় চৌধুরী বলেন, দেশের ৮০ ভাগ জনগণ আওয়ামী লীগের মিথ্যাচার ঘৃণাভবে প্রত্যাখ্যান করেন। গত ১৫ বছর ধরে আমাদের দলীয় কার্যক্রম তো দূরে থাক ইফতার পার্টি ও শান্তিপূর্ণ মানববন্ধন পর্যন্ত করতে দেইনি। ইফতার পার্টি ও মানববন্ধন থেকে বিএনপির হাজার হাজার নেতাকর্মীকে পুলিশ দিয়ে গ্রেফতার করে নিয়ে গেছে। তাদের মামলা হামলা নির্যাতন করে কারাগারে পাঠিয়েছেন। গুম করা হয়েছে বিএনপির নেতাকর্মীদের।

তিনি বলেন, হরতাল, সমাবেশ অবরোধসহ বিভিন্ন কর্মসূচি পালন বিরোধী দলের সাংবিধানিকভাবে গণতান্ত্রিক অধিকার। অথচ, ক্ষমতাসীনরা সেই সাংবিধানিক অধিকারগুলো হরণ করে বিএনপির বিরুদ্ধে ভুল ব্যাখ্যা দিয়ে বিভ্রান্ত ছড়ানোর অপপ্রয়াস চালাচ্ছে।

নিতাই রাই চৌধুরী আরও বলেন, বিএনপি বাংলাদেশের একটি বৃহত্তম গণতান্ত্রিক রাজনৈতিক দল। তাই বর্তমান পার্লামেন্ট ভেঙে দিয়ে আগামী জাতীয় নির্বাচন নির্দলীয় নিরপেক্ষ তত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে দেওয়ার জন্য এ সরকারকে বাধ্য করা হবে।

তিনি বলেন, পার্লামেন্ট বহাল রেখে জাতীয় নির্বাচন। পৃথিবীর কোথাও এটি চালু নেই। একজন ক্ষমতায় থেকে ও অপরজন ক্ষমতার বাইরে থেকে নির্বাচনে যেতে হবে। এটা বিএনপি মেনে নেবে না। এ ধরনের নির্বাচন বিএনপি বিগত ২০১৪ ও ২০১৮ সালে বর্জন করেছে। নির্দলীয় নিরপেক্ষ সরকারের আওতায় না দিলে ২০১২৪ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনও বয়কট করবে।

এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মেহেরপুর জেলা বিএনপির সাংগাঠনিক সম্পাদক জুলফিকার আলী ভূট্টো, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আব্দুল আওয়াল, গাংনী উপজেলা বিএনপির সভাপতি রেজাউল হক, সাধারণ সম্পাদক আসাদুজ্জামান বাবলু, মুজিবনগর উপজেলা বিএনপির সভাপতি আমিরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রশিদ, মেহেরপুর পৌর বিএনপির সভাপতি জাহাঙ্গীর বিশ্বাস ও গাংনী পৌর বিএনপির সাধারণ সম্পাদক মকবুল হোসেন মেঘলা।

এ সময় বিএনপি ও অঙ্গসংগঠনের নেতারা উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৯৩৭ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৫, ২০২৩
জেএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।