ঢাকা, সোমবার, ১৩ ফাল্গুন ১৪৩০, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৫ শাবান ১৪৪৫

রাজনীতি

খালেদার উপদেষ্টাকে ভুল বুঝিয়ে অন্য অনুষ্ঠানে নেওয়ার অভিযোগ 

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৬২৬ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৯, ২০২৩
খালেদার উপদেষ্টাকে ভুল বুঝিয়ে অন্য অনুষ্ঠানে নেওয়ার অভিযোগ 

চাঁপাইনবাবগঞ্জ: বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা ও সাবেক এমপি আবুল খায়ের ভূঁইয়াকে ভুল বুঝিয়ে অন্য অনুষ্ঠানে নেওয়ার অভিযোগ উঠেছে চাঁপাইনবাবগঞ্জে।

আবুল খায়ের ভূঁইয়াকে বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক (রাজশাহী বিভাগ) সৈয়দ শাহীন শওকত ছিনিয়ে নিয়ে যান বলে অভিযোগ তুলেছেন চাঁপাইনবাবগঞ্জ জেলা বিএনপির আহ্বায়ক মো. গোলাম জাকারিয়া।

 

সোমবার (০৯ জানুয়ারি) জেলা বিএনপির একাংশ আয়োজিত বিএনপির আন্দোলন নিয়ে বিশ্লেষণধর্মী আলোচনা সভায় সভাপতির বক্তব্যে তিনি এই অভিযোগ করেন।

জানা গেছে, এদিন দুপুরে চাঁপাইনবাবগঞ্জ টাউন ক্লাব মিলনায়তনে এক সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত হওয়ার কথা ছিল আবুল খায়ের ভূঁইয়ার। কিন্তু সে অনুষ্ঠানে না গিয়ে জেলা বিএনপির জেলা বিএনপির সদস্য সচিব মো. রফিকুল ইসলামের সভায় অংশ নেন তিনি।  

এ বিষয়ে মো. গোলাম জাকারিয়ার অভিযোগ, খালেদা জিয়ার উপদেষ্টাকে এ অনুষ্ঠানে আসতে না দিয়ে তাকে ছিনিয়ে নিয়ে গেছেন বিএনপির ওই গ্রুপ।

এ অভিযোগে বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক (রাজশাহী বিভাগ) সৈয়দ শাহীন শওকতকে চাঁপাইনবাবগঞ্জে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেছে চাঁপাইনবাবগঞ্জ বিএনপির একাংশ।  

গোলাম জাকারিয়া বলেন, আমরা এই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাই। প্রধান অতিথিকে প্রভাবিত করে আমাদের অনুষ্ঠানে আসতে দেওয়া হয়নি। আমরা আশাহত হয়েছি তার অনুপস্থিতিতে। এই ঘটনার জন্য জেলা বিএনপির নেতাকর্মীরা সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ শাহীন শওকতকেই দায়ী করেছে। তাকে চাঁপাইনবাবগঞ্জে অবাঞ্ছিত ঘোষণা করেছে। বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান ও কেন্দ্রীয় কমিটির কাছে আমরা এ বিষয়ে অভিযোগ দেব।  

তিনি আরও বলেন, মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠান আয়োজনের আগে থেকেই প্রধান অতিথি আবুল খায়ের ভূঁইয়ার সঙ্গে আমার কথা হয়েছিলে। আজ (সোমবার) সকালেও তিনি এখানে যোগ দেবেন বলে আমাদেরকে নিশ্চিত করেছিলেন। কিন্তু বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক (রাজশাহী বিভাগ) সৈয়দ শাহীন শওকত তাকে ভুল বুঝিয়ে আরেকটি অনুষ্ঠানে নিয়ে যায়।  

জানা যায়, আবুল খায়ের ভূঁইয়াকে প্রধান অতিথি করে জেলা বিএনপির আয়োজনে দুইটি পক্ষ একই ব্যানারে দুইটি অনুষ্ঠানের আয়োজন করে। কেন্দ্রীয় কমিটির নির্দেশনায় বিএনপির ১০ দফা দাবি এবং ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমান প্রণীত রাষ্ট্রকাঠামো মেরামত রূপরেখা বিষয়ে বিশ্লেষণধর্মী আলোচনা সভার আয়োজন করা হয় একই সময়ে। দুটি অনুষ্ঠানেরই প্রধান অতিথি করলেও আবুল খায়ের ভূঁইয়া যোগ দেন একটি অনুষ্ঠানে।  

এর আগে বেলা সাড়ে ১১টার দিকে চাঁপাইনবাবগঞ্জের প্রবেশদ্বার দ্বারিয়াপুরে নেতাকে গ্রহণ করতে অবস্থান নেয় জেলা বিএনপির দুইটি গ্রুপ। তবে সড়কপথে আবুল খায়ের ভূঁইয়ার গাড়ি আসলেও তার গাড়ি ফাঁকা ছিল। রাজশাহী থেকে চাঁপাইনবাবগঞ্জ সড়ক বাদ দিয়ে ভিন্ন পথে তাকে নিয়ে যাওয়া হয় জেলা শহরের সোনার মোড়স্থ জেলা বিএনপির অস্থায়ী কার্যালয়ের সভায়৷ সেখানে তিনি প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন।  

জেলা বিএনপির ব্যানারে দুইটি সভার একটিতে যোগদানের বিষয়ে আবুল খায়ের ভূঁইয়া বলেন, আমি এই জেলার রাস্তাঘাট তেমনভাবে চিনি না। নেতাকর্মীরা আমাকে যেভাবে নিয়ে এসেছে, আমি সেভাবেই একটি সভায় যোগদান করেছি। জেলা বিএনপির ব্যানারে একই প্রোগ্রাম দুই জায়গায় হতে পারে না। একটি পক্ষকে ত্যাগ স্বীকার করতে হতো। আমি গোলাম জাকারিয়ার সঙ্গে এ বিষয়ে কথা বলব। কারণ বিএনপিতে অভ্যন্তরীণ কোনো কোন্দল নেই।  

এদিকে খালেদা জিয়ার উপদেষ্টাকে প্রভাবিত করে একটি আয়োজনে নিয়ে আসার অভিযোগ অস্বীকার করেন বিএনপির সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ শাহীন শওকত।  

তিনি বলেন, এটি তেমন বড় কোনো বিষয় নয়। বিএনপির মধ্যে কোনো বিভেদ নেই এবং আমরা ঐক্যবদ্ধ রয়েছি। জেলা বিএনপির সভা একটি জায়গাতেই হয়েছে।  

বাংলাদেশ সময়: ১৬১৫ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০৯, ২০২২
এসএএইচ
 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।