ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৬ শাবান ১৪৪৫

রাজনীতি

নাটোর-৪ আসনের সাবেক এমপি মোজাম্মেল হকের মৃত্যু

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৯৪৫ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৩, ২০২৩
নাটোর-৪ আসনের সাবেক এমপি মোজাম্মেল হকের মৃত্যু সাবেক এমপি ও বিএনপি নেতা মোজাম্মেল হক: ফাইল ফটো

নাটোর: নাটোর-৪ (গুরুদাসপুর- বড়াইগ্রাম) আসনের সাবেক এমপি ও বিএনপি নেতা মোজাম্মেল হক (৬৮) মারা গেছেন (ইন্নালিল্লাহি ওয়া ইন্নালিল্লাহি রাজিউন)।  

বৃহস্পতিবার (১২ জানুয়ারি) রাতে গুরুদাসপুর পৌর এলাকায় নিজ বাসভবনে তিনি মারা যান।

এ সময় তার পরিবারের কোনো লোকজন ছিলেন না। তিনি স্ত্রী, তিন ছেলেসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

গুরুদাসপুর উপজেলা বিএনপির সভাপতি মো. আব্দুল আজিজ রাতে বাংলানিউজকে এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।  

তিনি বলেন, গত বুধবার বিএনপির রাজশাহী বিভাগীয় সমাবেশ শেষে গুরুদাসপুর উপজেলা বিএনপি নেতা আয়নাল হকের জানাজায় অংশগ্রহণ করেন। এরপর বৃহস্পতিবার (১২ জানুয়ারি) সারাদিন তিনি নিজ বাড়িতেই ছিলেন। রাত ১০টার সময় তারা হঠাৎ করে তার মৃত্যুর সংবাদ পান। তবে সে সময় পরিবারের লোকজন কেউ ছিলেন না। মৃত্যুর সংবাদ পাওয়ার পর পরই তিনিসহ দলের লোকজন তার বাসভবনে যান। পরে মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত  হয়ে পরিবারের লোকজনসহ দলীয় নেতাকর্মীদের তার মৃত্যুর খবরটি পৌঁছে দেন। তার মৃত্যুর সংবাদ পেয়ে স্ত্রী-সন্তান রাতেই গুরুদাসপুরে পৌঁছেছেন।   

আব্দুল আজিজ জানান, ২০০১ সালের জাতীয় সংসদ নির্বাচনে  জাতীয়তাবাদী দল বিএনপির দলীয় মনোনয়ন নিয়ে ( ধানের শীষ) নাটোর-৪ (গুরুদাসপুর-বড়াইগ্রাম) আসনের সংসদ সদস্য নির্বাচিত হন। তিনি সে সময় গুরুদাসপুর উপজেলা বিএনপির সভাপতি দায়িত্ব পালন করেন। পরে বিএনপির কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য হিসেবেও দায়িত্ব পালন করেন। পাশাপাশি এডাবের সাবেক চেয়ারম্যানও ছিলেন। তিনি ছিলেন বিএনপির একজন নিবেদিত প্রাণ। এমপি নির্বাচিত হওয়ার পর তিনি এলাকায়  স্কুল,কলেজ,মাদরাসাসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান গড়ে তুলেছেন।  এছাড়া বিভিন্ন রাস্তাঘাটের উন্নয়নসহ গুরুদাসপুর ও বড়াইগ্রাম উপজেলায় ব্যাপক উন্নয়ন কাজ বাস্তবায়ন করেছেন। তার মৃত্যুতে বিএনপি একজন অভিভাবক হারালেন বলে যোগ করেন তিনি।  

এদিকে বিএনপির সাবেক এমপি মোজাম্মেল হকের মৃত্যুতে শোক প্রকাশসহ শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন নাটোর- ৪ (গুরুদাসপুর-বড়াইগ্রাম)  আসনের বর্তমান এমপি ও জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি, বর্ষীয়ান আওয়ামী লীগ নেতা অধ্যাপক আব্দুল কুদ্দুস, বিএনপির কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক ও সাবেক উপমন্ত্রী অ্যাডভোকেট এম রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, জেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম বাচ্চু, জেলা বিএনপির কমিটির সদস্য সচিব রহিম নেওয়াজ, গুরুদাসপুর উপজেলা বিএনপির সভাপতি আব্দুল আজিজ, সাধারণ সম্পাদক  আলহাজ ওমর আলীসহ বিএনপির বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাকর্মী।  

সাবেক এমপি মোজাম্মেল হকের বড় ছেলে ব্যারিস্টার আবু হেনা মোস্তফা কামাল রাতেই বাংলানিউজকে জানিয়েছেন, শুক্রবার (১৩ জানুয়ারি)  বাদজুমা গুরুদাসপুর পাইলট উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে তার প্রথম জানাজা অনুষ্ঠিত হবে। সেখান থেকে ঢাকায় নেওয়ার পর মিরপুর শাহ আলী (রা.) মাজার শরীফে বাদ এশা তার দ্বিতীয় জানাজা শেষে বনানী কবরস্থানে তাকে দাফন করা হবে।

বাংলাদেশ সময়: ০৯৪৫ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৩, ২০২৩
জেএইচ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।