ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৪ ফাল্গুন ১৪৩০, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৬ শাবান ১৪৪৫

রাজনীতি

বিএনপির গণজোয়ারে ভাটার টান পড়েছে: কাদের

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪১৬ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৮, ২০২৩
বিএনপির গণজোয়ারে ভাটার টান পড়েছে: কাদের ছবি: রাজিন চৌধুরী

ঢাকা: আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক, সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের বলেছেন,  মির্জা ফখরুল, কাজ নেই, শুধু কথা। আমরা কাজ করছি, বাধ্য হয়ে তাদের কথার জবাব দিচ্ছি।

তারা একতরফা কথা বলবে, বিষোদগার করবে, আমরা কি চুপচাপ বসে থাকব? এত লাফালাফি, এত লোটাকম্বল, এত কাঁথাবালিশ, পাতিলে-পাতিলে খিচুড়ি রান্না, ৭ দিন ধরে সমাবেশস্থলে শুয়ে পড়ে। কোথায় গেল সে দিন, কোথায় গেল গণঅভ্যুত্থান, কোথায় এখন গণজোয়ার? গণজোয়ারে এখন ভাটার টান।

শনিবার (২৮ জানুয়ারি) ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের উদ্যোগে শীতবস্ত্র বিতরণ ও সমাবেশ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

ওবায়দুল কাদের বলেন, বিএনপির এই অনুষ্ঠান পদযাত্রা নয়, পেছন যাত্রা। এটা বিএনপির মরণযাত্রা। আগামী নির্বাচনেও তাদের মরণযাত্রা হবে। রাজনৈতিক মরণ।

নেতাকর্মীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ডাক দিলেই চলে আসবেন। রাজপথে আছি, ছিলাম, থাকব। আমরা মানুষের সঙ্গে ছিলাম। বঙ্গবন্ধু থেকে শেখ হাসিনা আওয়ামী লীগের ৭০ বছরের ইতিহাস মানুষের পাশে থাকার ইতিহাস। জিতলেও আছি, হারলেও আছি।

সেতুমন্ত্রী বলেন, জনগণ চাইলে আমরা নির্বাচনে জিতব। না চাইলে ২০০১ সালের মতো আমরা বিদায় নেব। বন্দুকের নল দেখিয়ে ক্ষমতায় থাকার ইচ্ছা আমাদের নাই৷ এই দলের শেকড় বাংলাদেশের মাটির অনেক গভীরে। তাই আওয়ামী লীগকে ধাক্কা দিয়ে সরিয়ে দেবেন, এই দিবাস্বপ্ন দেখবেন না।

আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের উদ্দেশে মন্ত্রী আরও বলেন, আমরা পাল্টাপাল্টি করছি না। তারা করছে পদযাত্রা, আমরা বস্ত্র বিতরণ। তারা বাড্ডায়, আমরা উত্তরায়। নেত্রী বলেছেন, কোনো উসকানি নয়, কোনো সংঘর্ষ নয়।

বিএনপির কর্মসূচির সমালোচনা করে তিনি বলেন, একবার ২৭ দফা, আবার ১০ দফা, ৩৭ দফা, সামনে আরও ১৪ দফা, ৫১ দফা, জোটে দল ৫৪টা। এরকম জগাখিচুড়ি কর্মসূচি কোনোদিনও এদেশে সফল হবে না।

বিশেষ অতিথির বক্তব্যে আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বলেন, আজ আমরা যখন শীতবস্ত্র বিতরণ করছি, তখন তারা ষড়যন্ত্রে লিপ্ত । আমরা মানুষের পাশে, তারা ষড়যন্ত্রের পাশে। আমরা পরিষ্কার বলতে চাই, ষড়যন্ত্র করে আওয়ামী লীগকে হঠাতে পারবেন না। যদি কোনো আগুন সন্ত্রাস করেন, আমরা তার জবাব দেব।

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও সংসদ সদস্য মাহবুব-উল আলম হানিফ বলেন, আওয়ামী লীগ বারবার প্রমাণ করেছে, আওয়ামী লীগ এ দেশের গণ মানুষের দল। আওয়ামী লীগের নেতৃত্বে গত ১৪ বছরে আমরা উন্নয়নের মাইলফলকে নিয়ে গেছি জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে। পক্ষান্তরে, রাষ্ট্রক্ষমতা দখল করে তারা দেশের উন্নয়নকে বাধাগ্রস্ত করেছে।

তিনি আরও বলেন, বিএনপি-জামায়ত নির্বাচন চায় না। তারা জানে, তাদের অতীতের অপকর্মের কারণে জনগণ তাদের নির্বাচিত করবে না। বিএনপি-জামায়াত অশুভ শক্তিকে পরাজিত করে আগামী নির্বাচনে আমরা আবারও আওয়ামী লীগকে নির্বাচিত করব।

আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও সংসদ সদস্য মির্জা আজম বলেন, নির্বাচনের সময় আছে ৮ মাস। ইতোমধ্যে ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগ ৮০০ ইউনিট কমিটি গঠন করা হয়েছে। সকল সহযোগী সংগঠন নিয়ে আওয়ামী লীগের দুর্গ গড়ে তুলতে হবে। যারা আমাদের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করছে, গুজব ছড়াচ্ছে তাদের প্রতিহত করতে হবে।

সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন আওয়ামী লীগের উপ-প্রচার ও প্রকাশনা সম্পাদক সৈয়দ আব্দুল আউয়াল শামীম।

ঢাকা-১৮ আসনের সংসদ সদস্য হাবিব হাসানের আয়োজনে সমাবেশে প্রধান বক্তা ছিলেন ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এস এম মান্নান কচি। সভাপতিত্ব করেন ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ বজলুর রহমান।

পরে ওবায়দুল কাদের শীতার্তদের মাঝে কম্বল বিতরণ করেন। সমাবেশে আওয়ামী লীগের বিভিন্ন স্তরের কয়েক হাজার নেতাকর্মী উপস্থিত ছিলেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৪১৩ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৮, ২০২৩
এমকে/এসএএইচ
 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।