ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৮ মে ২০২৪, ১৯ জিলকদ ১৪৪৫

রাজনীতি

পিরোজপুরে ছাত্রলীগের হামলায় বিএনপির ৪০ নেতাকর্মী আহত

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২৬ ঘণ্টা, এপ্রিল ১, ২০২৩
পিরোজপুরে ছাত্রলীগের হামলায় বিএনপির ৪০ নেতাকর্মী আহত

পিরোজপুর: পিরোজপুরে ছাত্রলীগের হামলায় বিএনপির ৪০ নেতাকর্মী আহত হয়েছেন। এ সময় একটি গাড়ি ভাঙচুরসহ দলীয় বিলবোর্ড ভাঙচুর করা হয়েছে।

 

শনিবার (০১ এপ্রিল) দুপুরে এ হামলার ঘটনা ঘটে।

জেলা বিএনপির আহ্বায়ক অধ্যক্ষ আলমগীর হোসেন অভিযোগ করে বলেন, কেন্দ্র ঘোষিত কর্মসূচির অংশ হিসেবে দুপুর আড়াইটার দিকে বিভিন্ন স্থান থেকে আসা কর্মীরা দলীয় কার্যালয়ের সামনে রাস্তায় জড়ো হচ্ছিলেন। এসময় ৪০-৫০টি মোটরসাইকেলে করে ছাত্রলীগের ক্যাডাররা এসে আমাদের নেতাকর্মীর ওপর অতর্কিত হামলা করে। এতে ৪০ নেতাকর্মী আহত হন। এদের মধ্যে মঠবাড়িয়া উপজেলা বিএনপির সদস্য সচীব আবু বকর সিদ্দিক বাদল ও পৌর বিএনপির সদস্য সচীব কামাল মুন্সিসহ ৩০ জনকে পিটিয়ে ও কুপিয়ে আহত করা হয়েছে। এর আগে মহড়া দিয়ে আসার সময় ওইসব ছাত্রলীগের কর্মীরা সরকারি বালক বিদ্যালয় মাঠে রাখা জেলার ভাণ্ডারিয়া উপজেলা বিএনপির সভাপতি আহম্মেদ সোহেল সুমনের ব্যক্তিগত গাড়িটি ভাঙচুর করে। এ সময় গাড়িতে থাকা চালক মনিরুজ্জামান শাহীন (৩৫) ও ব্যক্তিগত সিকিউরিটি জয়নাল আবেদীনকে গাড়ি থেকে নামিয়ে বেদম মারধর ও কুপিয়ে গুরুতর আহত করে।

জেলা ছাত্রদলের সাধারণ সম্পাদক বদিউজ্জামান রুবেল বলেন, ছাত্রলীগ ক্যাডাররা লাঠি নিয়ে পুলিশের সামনেই আমাদের কর্মীদের ওপর হামলা করে। এতে পৌর ছাত্রদলের যুগ্ম আহ্বায়ক মো. সাইফুল ইসলাম, জেলা সহ সাংগঠনিক সম্পাদক কামরুল হাসান, কলেজ ছাত্রদলের যুগ্ম আহ্বায়ক সাইফুল ইসলাম রুবেল, মঠবাড়িয়া পৌর ছাত্রদলের আহ্বায়ক রুবেল হাসান, জেলা ছাত্রদলের দপ্তর সম্পাদক মো. মশিউর রহমান, জেলা ছাত্রদলের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মাহামুদ হাসান শাহীনসহ ১০ জন গুরুতর আহত হয়েছেন।

জেলার ভাণ্ডারিয়া উপজেলা বিএনপির সভাপতি আহম্মেদ সোহেল সুমন বলেন, কেন্দ্র ঘোষিত কর্মসূচিতে যোগ দিতে আমাকে বহন করা ল্যান্ড ক্রুসার প্যারেডো (ঢাকা মেট্রো-ঘ-১৭১৬৩৬) গাড়িটি ছাত্রলীগের কর্মীরা ব্যাপক ভাঙচুর করে। ওই গাড়িতে থাকা গাড়ি চালক ও আমার ব্যক্তিগত দেহরক্ষীকেও কুপিয়ে ও পিটিয়ে আহত করে।

এ বিষয়ে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি মো. অনিরুজ্জামান অনিকের সঙ্গে কথা হলে তিনি ওই হামলার সঙ্গে ছাত্রলীগের কেউ জড়িত নয় বলে জানান।

এ ব্যাপারে জেলা পুলিশ সুপার মোহাম্মাদ সাঈদুর রহমান জানান, স্থানীয় বিএনপি ও ছাত্রলীগের কর্মীদের মধ্যে বাগ-বিতণ্ডা হয়েছে বলে শুনেছি। গাড়ি ভাঙচুরের কোন তথ্য আমার কাছে নাই। শান্তি-শৃঙ্খলা রক্ষায় শহরে অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন রয়েছে।

জেলা বিএনপির আহ্বায়ক অধ্যক্ষ আলমগীর হোসেনের সভাপতিত্বে দলীয় অফিসের সামনে অনুষ্ঠিত ওই আলোচান সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন সংগঠনের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক ও সাবেক এমপি বিলকিস জাহান শিরিন।  

তিনি বলেন, ‘নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে অনুষ্ঠিত নির্বাচন ছাড়া আওয়ামী লীগের অধীনে কোনো নির্বাচনে বিএনপি অংশগ্রহণ করবে না। সরকার চাচ্ছে আবারও ভোট চুরি করে ক্ষমতায় যেতে। তাই তারা নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন দিতে ভয় পাচ্ছে। ’

কিন্তু শেখ হাসিনাকে নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন দিতে বাধ্য করা হবে’। ওই কর্মসূচিতে বক্তব্য দেন জেলা বিএনপির সদস্য সচীব গাজী অহিদুজ্জামান লাভলু, যুগ্ম আহ্বায়ক মো. রিয়াজ উদ্দিন রানা, শ্রমিক দলের জেলা সভাপতি আব্দুস সালাম বাতেন, কামরুজ্জামান চাঁন প্রমুখ।

উল্লেখ্য, কেন্দ্র ঘোষিত কর্মসূচি হিসেবে ১০ দফা বাস্তবায়নের দাবিতে ওইদিন বিকেলে দলীয় অফিসের সামনে অবস্থান কর্মসূচির ঘোষণা করে জেলা বিএনপি।

বাংলাদেশ সময়: ২০২০ ঘণ্টা, এপ্রিল ০১, ২০২৩
আরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।