ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ১৩ জুন ২০২৪, ০৫ জিলহজ ১৪৪৫

রাজনীতি

যারা বেনজীর-আজিজকে তৈরি করেছে তাদের ছাড় নয়: মান্না

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫০৩ ঘণ্টা, মে ২৯, ২০২৪
যারা বেনজীর-আজিজকে তৈরি করেছে তাদের ছাড় নয়: মান্না

ঢাকা: যাদের কারণে বেনজীর আহমেদ ও আজিজ আহমেদের মতো মানুষ তৈরি হয়েছে তাদের ছাড় দেওয়া হবে না। এসব মানুষকে এমনি এমনি যেতে দেওয়া হবে না বলে মন্তব্য করেছেন নাগরিক ঐক্যের সভাপতি মাহমুদুর রহমান মান্না।

বুধবার (২৯ মে) জাতীয় প্রেস ক্লাবের সামনে ‘দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও আন্দোলন কর্তৃক দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া ও জনতার মেয়র ইঞ্জিনিয়ার ইশরাক হোসেনসহ সব রাজবন্দীদের মুক্তির দাবিতে’ আয়োজিত মানববন্ধনে তিনি এ মন্তব্য করেন।

মান্না বলেন, যারা বেনজীর ও আজিজকে (পুলিশ ও সেনাবাহিনীর সাবেক দুই প্রধান) তৈরি করেছেন তাদেরকে এমনি এমনি যেতে দেওয়া যাবে না। এই দুই ব্যক্তির বিরুদ্ধে কেন এখনও মামলা হলো না এ দাবি নিয়ে রাজপথে নামতে হবে।

আওয়াম লীগ নেতা ও বর্তমান সরকারের সংসদ সদস্য আনোয়ারুল আজীম আনারের মৃত্যু নিয়েও আফসোস করেন মান্না। তিনি বলেন, এখন আর আওয়ামী লীগকে খোঁজা হচ্ছে না। খোঁজা হচ্ছে তাদের মাংসের টুকরোকে; কত হৃদয় বিদারক।

তিনি আরও বলেন, সরকার জনগণকে বোঝানোর চেষ্টা করে যাচ্ছে যে আমরা অর্থনৈতিকভাবে এগিয়ে যাচ্ছি। গত বছরের বাজেটের চেয়ে এবার এক লাখ কোটি টাকা বাজেট বাড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। এই ঋণের টাকা জনগণের ঘাড়ে চাপিয়ে দেওয়া হবে। এই সরকার একটা মিথ্যুক সরকার। মানুষের মাঝে মিথ্যা কথা বলে ও ভোটের সময় মানুষের বুকে ছুরি চালিয়ে দেয়। আওয়ামী লীগ একটা লুটেরা, চোর, দুর্নীতিবাজ সরকার। দেশকে বাঁচাতে, দেশের মানুষকে বাঁচাতে আমাদের এগিয়ে আসতে হবে।

মানববন্ধনে গণঅধিকার পরিষদের সভাপতি নুরুল হক নুর বলেন, শেখ হাসিনা রাজনীতিতে ঝড় উঠিয়ে দিয়েছেন দ্রব্যমূল্যের ঊর্ধ্বগতি ও প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের মধ্যে দিয়ে। বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের জেলখানায় রেখে হত্যা নির্যাতন করে একদলীয় শাসন কায়েম করার দিকেই সরকার ধাবিত হচ্ছে। সরকার উন্নয়নের গাল গল্প করে ঋণের বোঝা আমাদের ওপর চাপিয়ে দিচ্ছে। নিজেদের আধিপত্যকে কায়েম করার জন্যই ঢাকাকে উত্তর দক্ষিণে ভাগ করেছে।

তিনি বলেন, এই সরকার দেশের জনগণের ওপর পৈশাচিক নির্যাতন, দমন পীড়ন করে যাচ্ছে। শেখ হাসিনা জানেন, খালেদা জিয়া রাজপথে আন্দোলন করতে পারলেই তাদের অস্তিত্ব থাকবে না। এজন্যই তাকে মুক্তি দিচ্ছে না। এই সেদিন ছাত্রদলের সাবেক সভাপতির ওপর শিল্পকলার সামনে গোয়েন্দা সংস্থার লোক দিয়ে হামলা করানো হয়েছে।

নুর আরও বলেন, ওবায়দুল কাদের বলেছেন সবার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সরকার কী আজিজ-বেনজীরদের বিরুদ্ধে স্বপ্রণোদিত হয়ে কোনো ব্যবস্থা নিয়েছে? বেনজীরকে দিয়ে যে অপকর্ম করানো হয়েছে, এখন বিচার না করলে দায় আল্টিমেটলি সরকারের ওপর আসবে। আনারের মাংস যদি বাথরুমের ট্যাঙ্কি থেকে উদ্ধার করা যায় তাহলে আমরা জানতে চাই, চৌধুরী আলম-ইলিয়াস আলীসহ গুম হওয়ারা কোথায় আছে? লড়াইয়ের পথ অনেক দীর্ঘ। পর্যায়ক্রমে আমাদের লড়াই চালিয়ে যেতে হবে।

দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও আন্দোলনের সভাপতি কে এম রকিবুল ইসলাম রিপনের সভাপতিত্বে ও ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক রাজু আহমেদের সঞ্চালনায় মানববন্ধনে আরও উপস্থিত ছিলেন বিএনপির ঢাকা মহানগরের আহ্বায়ক বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস সালাম, এবি পার্টির সদস্য সচিব মজিবুর রহমান মঞ্জু, জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টির (জাগপা) সহসভাপতি রাশেদ প্রধান, মৎস্যজীবী দলের যুগ্ম আহবায়ক অধ্যক্ষ সেলিম মিয়া প্রমুখ।

বাংলাদেশ সময়: ১৫০৩ ঘণ্টা, মে ২৯, ২০২৪
ইএসএস/এমজে

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।