ঢাকা, সোমবার, ২৩ মাঘ ১৪২৯, ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৪ রজব ১৪৪৪

রাজনীতি

ছাত্রলীগের সমাবেশে কিশোরদের ব্যবহার, সমালোচনার ঝড়

জাহিদুল ইসলাম মেহেদী, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০২৩ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৪, ২০২২
ছাত্রলীগের সমাবেশে কিশোরদের ব্যবহার, সমালোচনার ঝড় ছাত্র সমাবেশে কিশোরদের ব্যবহার,

বরগুনা: জেলা ছাত্রলীগের ৭৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী পালনে বিভিন্ন স্কুল থেকে শিক্ষার্থীদের দিয়ে ছাত্রলীগের সমাবেশ ও বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা। এ নিয়ে বিভিন্ন মহলে সমালোচনার ঝড়।

মঙ্গলবার (০৪ ডিসেম্বর) সকাল ১০টার দিকে বরগুনা জেলা আওয়ামী লীগের দলীয় কার্যালয়ের সামনে জেলা ছাত্রলীগের ৭৪তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষে জেলার বিভিন্ন স্কুলের ইউনিফর্ম পড়া শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি দেখা গেছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক সিনিয়র শিক্ষক বাংলানিউজকে বলেন, বরগুনা জেলা ছাত্রলীগের উদ্যোগে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রায় কিশোরদের ব্যবহারের ঘটনায় সুনির্দিষ্ট কর্মপরিকল্পনা নিতে হবে। রাজনৈতিক দলগুলো তা যথাযথভাবে বাস্তবায়ন করবে।

এ বিষয়ে এক শিক্ষার্থীর বাবা বাংলানিউজকে বলেন, স্কুল থেকে রাজনৈতিক প্রোগ্রামে নেওয়া হয় আমাদের কিশোরদের। এতে করে লেখাপড়ায় মনোযোগ নষ্ট হয় কিশোরদের। এদের মধ্যে এক ধরনের রাজনৈতিক মনোভাব সৃষ্টি হয়। ভবিষ্যতে এদের জন্য এসব ভাবনা বিপদ ডেকে আনতেও পারে।  

জেলা আওয়ামী লীগের এক নেতা বাংলানিউজকে বলেন, গৌরবময় ভাষা আন্দোলন থেকে সব আন্দোলন সংগ্রামে নেতৃত্ব দেওয়া বাংলাদেশের বৃহৎ ছাত্র সংগঠন বাংলাদেশ ছাত্রলীগের আজ ৭৪তম জন্মদিন। স্কুল থেকে কিশোরদের জনসভায় নিয়ে আসা খুবই দুঃখজনক।  

তিনি আরও বলেন, আমার রাজনৈতিক ক্যারিয়ারে এমন দৃশ্য কখনো দেখতে হয়নি।



বরগুনা জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক তানভীর হোসাইন জানান, স্কুল পর্যায় আমাদের কোনো ছাত্রলীগের কমিটি দেওয়া হয়নি। কোনো শিক্ষার্থীদের স্কুল থেকে জোর করে প্রোগ্রামে আনা হয়নি। যারা এসেছে, তাদের ব্যক্তিগত ইচ্ছায় এসেছে। ছাত্রলীগের প্রোগ্রামে সবাই আসতে পারে, কারও জন্য বিধিনিষেধ নেই। তবে এ সময় স্কুল থেকে কিশোরদের শোভাযাত্রায় নিয়ে আসার বিষয়ে কোনো ধরনের বক্তব্য দিতে রাজি হননি তিনি।

রাজনৈতিক কর্মসূচিতে কিশোরদের ব্যবহারের ঘটনায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন বরগুনা-১ (সদর-আমতলী-তালতলী) আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ধীরেন্দ্র দেবনাথ শম্ভুর। তিনি বাংলানিউজকে বলেন, রাজনৈতিক কর্মসূচিতে কিশোরদের ব্যবহার করা উচিত না। তবে, ছড়িয়ে-ছিটিয়ে কিশোররা আসতেই পারে। যদি কোনো স্কুলশিক্ষক বা কিশোরদের অবিভাবক আপনাদের কাছে অভিযোগ করেন, তাহলে আপনারা নিউজ করে দিন। আমাকে কেন বিপদে ফেলেন?

সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বরগুনা জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও বরগুনার চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা জাহাঙ্গীর কবীর।  

সমাবেশে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন বরগুনা জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল মোতালেব মৃধা, বরগুনা জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক বরগুনা সদর উপজেলার সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মোহাম্মদ আব্বাস হোসেন মন্টু মোল্লা, বরগুনার সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি ও বরগুনা পৌরসভার সাবেক মেয়র বীর মুক্তিযোদ্ধা শাহজাহান মিয়া, বরগুনা জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা একেএম আব্দুর রশিদ প্রমুখ।  

সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন বরগুনা জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট জুবায়ের আদনান অনিক। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন বরগুনা জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক তানভীর হোসাইন।

বাংলাদেশ সময়: ২০১৫ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০৪, ২০২২
এসআরএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa