ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৬ মাঘ ১৪২৯, ০৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৭ রজব ১৪৪৪

রাজনীতি

সীমান্তে হত্যায় নতজানু পররাষ্ট্রনীতি দায়ী: হাফিজ

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯২৫ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৭, ২০২২
সীমান্তে হত্যায় নতজানু পররাষ্ট্রনীতি দায়ী: হাফিজ

ঢাকা: বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান মেজর (অব.) হাফিজ উদ্দিন আহমদ বীর বিক্রম বলেছেন, ‘সরকারের নতজানু পররাষ্ট্রনীতির কারণে সীমান্তে বাংলাদেশি নাগরিক হত্যা বন্ধ হচ্ছে না। আমরা চাই না আর কোনো ফেলানী কাঁটাতারে ঝুলে থাকুক।

শুক্রবার (৭ জানুয়ারি) দুপুরে জাতীয় প্রেস ক্লাবে লেবার পার্টির কনভেনশনে তিনি এসব কথা বলেন।

বর্তমান সরকারকে হঠাতে বিএনপি যে আন্দোলন করছে তাতে টানেলের শেষ প্রান্তে ‘আলোর রেখা’ দেখতে পাচ্ছেন জানিয়ে বিএনপির এই নেতা বলেন, ‘আমরা টানেলের শেষে আলোর রেখা দেখতে পারছি। এই সরকারের আয়ু বেশি দিন নেই। রাজপথে অনেক বেশি লোকসমাগম হচ্ছে, সাধারণ মানুষও আসছে। পরিবর্তন আসবেই। ’

চলমান ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে আওয়ামী লীগের তুলনায় স্বতন্ত্র প্রার্থীদের এগিয়ে যাওয়ার প্রসঙ্গ টেনে তিনি বলেন, ‘ইউপি নির্বাচনে আওয়ামী লীগের প্রার্থীদের ভরাডুবি হচ্ছে। স্বতন্ত্র ও বিরোধী প্রার্থীরা জয় পাচ্ছেন। নির্বাচনে এত কারচুপির পরও তারা জিততে পারছেন না। জনগণ তাদের ঘৃণা করে। ’

সম্প্রতি র‌্যাবসহ সংস্থাটির ছয় কর্মকর্তার ওপর মার্কিন নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হয়েছে উল্লেখ করে হাফিজ উদ্দিন আহমদ বলেন, ‘আওয়ামী লীগ  আগামী দিনে নিশিরাতে নির্বাচন করতে পারবে না। যেহেতু বিশ্বের পরাশক্তির দৃষ্টি আকর্ষণ হচ্ছে, একের পর এক নিষেধাজ্ঞা দেওয়া হচ্ছে। আরও অনেক নিষেধাজ্ঞা আসবে। যদিও এটি আমাদের জন্য লজ্জাজনক। ’

সরকার প্রতিহিংসামূলকভাবে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে ‘কষ্ট দিচ্ছে’ অভিযোগ করে তিনি বলেন, ‘এখন জনগণের উচিত বিএনপির নেতৃত্বে রাজপথে নেমে এই সরকারকে বিদায় করা। ’

৭ জানুয়ারি ফেলানী হত্যা দিবসে জাতীয় প্রেস ক্লাবে বাংলাদেশ লেবার পার্টির উদ্যোগে এই আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। এতে মানবাধিকার সংরক্ষণ সংস্থার নির্বাহী পরিচালক অ্যাডভোকেট জহুরা খাতুন জুঁই মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন।

লেবার পার্টির চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান ইরানের সভাপতিত্বে সভায় জাতীয় পার্টির (জাফর) চেয়ারম্যান মোস্তফা জামাল হায়দার, খ্রিস্টান অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি অ্যালবার্ট পি কস্টা, লেবার পার্টির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব ফারুক রহমান, ভাইস চেয়ারম্যান মোসলেহ উদ্দিন, রামকৃষ্ণ সাহা, বিএনপির প্রান্তিক জনশক্তি বিষয়ক সম্পাদক অর্পনা রায় দাস, মুক্তিযোদ্ধা দলের যুগ্ম-সম্পাদক শহীদুল ইসলাম চৌধুরী মিলন, লেবার পার্টির যুগ্ম-মহাসচিব আবদুর রহমান খোকন, হুমায়ুন কবীর, আন্তর্জাতিক সম্পাদক খোন্দকার মিরাজুল ইসলাম, দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও আন্দোলনের সভাপতি কে এম রকিবুল ইসলাম রিপন, মহানগর শ্রমিক দলের সম্পাদক মাহবুবুল আলম বাদল, দৈনিক সরকার সম্পাদক ওবায়দুল হক, ছাত্রমিশন সভাপতি সৈয়দ মো. মিলন ও সাধারণ সম্পাদক শরিফুল ইসলাম বক্তব্য রাখেন।

আরও পড়ুন: ‘সমন্বিত উদ্যোগেই সীমান্ত হত্যা বন্ধ করতে হবে’

বাংলাদেশ সময়: ১৯২৫ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৭, ২০২২
এমএইচ/এনএসআর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa