ঢাকা, সোমবার, ২৩ মাঘ ১৪২৯, ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৩, ১৪ রজব ১৪৪৪

রাজনীতি

তারা বিদেশে বসে অপপ্রচার চালায়: তথ্যমন্ত্রী

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১২০ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৫, ২০২২
তারা বিদেশে বসে অপপ্রচার চালায়: তথ্যমন্ত্রী ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে সর্ব ইউরোপীয় আওয়ামী লীগের সভা

ঢাকা: বিদেশে বসে দেশবিরোধী ষড়যন্ত্রকারীদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট দেশের আওয়ামী লীগ নেতাদের সোচ্চার হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ।

শনিবার (১৫ জানুয়ারি) রাজধানীর ধানমন্ডিতে আওয়ামী লীগ সভাপতির রাজনৈতিক কার্যালয়ে সর্ব ইউরোপীয় আওয়ামী লীগের সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

সর্ব ইউরোপীয় আওয়ামী লীগের সভাপতি এম নজরুল ইসলামের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমানের সঞ্চালনায় আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ড. শাম্মী আহমেদ, উপপ্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন, কার্যনির্বাহী সদস্য সৈয়দ আব্দুল আউয়াল শামীম, অস্ট্রেলিয়া আওয়ামী লীগ সভাপতি সিরাজুল ইসলাম প্রমুখ সভায় অংশ নেন।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, নির্বাচনের আর দুই বছরের কম সময় বাকি। এই নির্বাচনে আমাদের প্রচারণার একটি বড় মাধ্যম হচ্ছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম। আপনারা দেখছেন আমাদের বিরুদ্ধাচারীরা, দেশের বিরুদ্ধাচারীরা দেশের বিরুদ্ধে যত ধরনের ষড়যন্ত্র-অপপ্রচার চালাচ্ছে, এর একটি বড় প্ল্যাটফর্ম হিসেবে সোশ্যাল মিডিয়াকে বেছে নিয়েছে—তারা বিদেশে বসে অপপ্রচার চালায়, বিভ্রান্তি ছড়ায়, গুজব রটায়।

তিনি বলেন, যেসব দেশে বসে এগুলো করে, সেসব দেশে আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ আছেন, কমিটিও আছে; কিন্তু অপপ্রচারের বিরুদ্ধে যে পরিমাণ সোচ্চার হওয়া প্রয়োজন অনেক ক্ষেত্রে তা পাওয়া যাচ্ছে না।

অপপ্রচারকারীদের বিরুদ্ধে নানাভাবে ব্যবস্থা নেওয়া যায় উল্লেখ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, সোশ্যাল মিডিয়ায় অপপ্রচার চালালে সোশ্যাল মিডিয়ার মাধ্যমেই ব্যবস্থা নেওয়া যায়, যে দেশে বসে অন্য দেশের বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করেছে, সেই দেশের আইন অনুযায়ীও ব্যবস্থা নেওয়া যায়। কিন্তু এটি সবক্ষেত্রে হচ্ছে না।

হাছান মাহমুদ বলেন, কে বা কোন কমিটি কোথায় বিরাট করে স্বাধীনতা দিবস, বিজয় দিবস পালন করলো বা কোনো মন্ত্রী গেলে সংবর্ধনা দিল, সেটিই সবকথা নয়; বিজয় দিবস, স্বাধীনতা দিবস অবশ্যই পালিত হবে, পাশাপাশি এ বিষয়টিও অনেক গুরুত্বপূর্ণ। আওয়ামী লীগের আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদকসহ আমরা দলের পক্ষ থেকে এখন দেখবো, যে দেশে বসে আমাদের দেশের বিরুদ্ধে যারা অপপ্রচার চালাচ্ছে, তাদের বিরুদ্ধে সেই দেশে আওয়ামী লীগ নেতারা কী ব্যবস্থা নিচ্ছেন। সেটির ভিত্তিতে মূল্যায়ন হবে। সুতরাং এ কাজটি করার জন্য অনুরোধ জানাই।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, বিএনপি-জামায়াত সাম্প্রদায়িক অপশক্তি দেশে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি তৈরির জন্য বিদেশের অপপ্রচার চালাচ্ছে, সেসব দেশের আইন প্রণেতাদের বিভ্রান্ত করার অপচেষ্টা চালাচ্ছে। সেসব দেশে আওয়ামী লীগ নেতাদের দেশের উন্নয়ন অগ্রগতি তুলে ধরার পাশাপাশি বিএনপিসহ সাম্প্রদায়িক অপশক্তির বিষয়েও সতর্ক করতে হবে।

রাজনীতিতে ইউরোপীয় আওয়ামী লীগের ভূমিকার কথা স্মরণ করে হাছান  মাহমুদ বলেন, দেশের দুর্যোগ-দুর্বিপাকে আপনারা প্রশংসনীয় ভূমিকা রেখেছেন। আওয়ামী লীগ সভাপতি বঙ্গবন্ধুকন্যাকে ২০০৭ সালে যখন দেশে আসতে দেওয়া হচ্ছিল না, তখন আপনারা জননেত্রী শেখ হাসিনার পাশে দাঁড়িয়েছিলেন। সমূহ বিপদ জেনেও অনেকে জননেত্রীর সাথে দেশে এসেছেন এবং কারাগারেও গেছেন, এ জন্য আপনাদের প্রতি ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা।

নারায়ণগঞ্জে আগামীকালের সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন প্রসঙ্গে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তথ্য ও সম্প্রচারমন্ত্রী বলেন, নারায়ণগঞ্জে মানুষের মাঝে নির্বাচন নিয়ে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা রয়েছে এবং তা বজায় রেখে স্বচ্ছ, সুন্দর নির্বাচনের জন্য নির্বাচন কমিশন যেভাবে শক্ত হাতে কাজ করছে তাতে নির্বাচনে জনগণের রায়ই প্রতিফলিত হবে। আশা করি সেই রায়ে আওয়ামী লীগের প্রার্থী সেলিনা হায়াৎ আইভী বিপুল ভোটে জয়লাভ করবেন।

বাংলাদেশ সময়: ২১১৪ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৫, ২০২২
জিসিজি/এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa