ঢাকা, সোমবার, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২৪, ১৫ শাবান ১৪৪৫

বিদ্যুৎ ও জ্বালানি

দেশে গ্যাসের মিটার কারখানা তৈরিতে আগ্রহী জাপানি কোম্পানি

সিনিয়র করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮০৩ ঘণ্টা, নভেম্বর ২৭, ২০২৩
দেশে গ্যাসের মিটার কারখানা তৈরিতে আগ্রহী জাপানি কোম্পানি

ঢাকা: বাংলাদেশে গ্যাসের প্রিপেইড মিটার কারখানা তৈরিতে জাপানের বিভিন্ন কোম্পানি আগ্রহী বলে জানিয়েছেন বিদ্যুৎ ও জ্বালানি প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অঞ্চলগুলোতে জাপানি কোম্পানিগুলো শিল্পকারখানাগুলোকে সহযোগিতা করছে।

অর্থনৈতিকভাবে সহযোগিতা করার জন্য জাপানের বিভিন্ন ব্যাংক ধীরে ধীরে বাংলাদেশে প্রবেশ করছে।

সোমবার (২৭ নভেম্বর) দুপুরে সচিবালয়ে মন্ত্রণালয় সভাকক্ষে জ্বালানি বিভাগ ও জাপান ব্যাংক ইন্টারন্যাশনাল কো-অপারেশনের (জেবিক) মধ্যে একটি সমঝোতা স্মারক সই শেষে সাংবাদিকদের তিনি এ কথা জানান।

বিদ্যুৎ প্রতিমন্ত্রী বলেন, এই সমঝোতা স্মারকটি এই কারণে করা হচ্ছে যে, আমরা যে গ্যাস আনছি বা নিচ্ছি, সেটা যাতে নিরবচ্ছিন্ন ও সুষ্ঠুভাবে ব্যবহার করতে পারি। এই কারণে জাপান ব্যাংক ও জাপান সরকার আরও সাত লাখ মিটার গ্যাস কেনার ব্যাপারে সহযোগিতা করছে। এর আগে আমরা জেবিকের সহযোগিতা পেয়েছি।

তিনি বলেন, ঢাকা ও চট্টগ্রামসহ বিভিন্ন এলাকায় আমরা প্রিপেইড মিটার লাগিয়েছিলাম এবং সেই প্রকল্প এখনো চলমান আছে। এটা জাপান সহযোগিতা সংস্থা জাইকার প্রকল্প ছিল। পরবর্তীতে জাপান ব্যাংক ইন্টারন্যাশনাল কো-অপারেশন অর্থ সহযোগিতা করতে যাচ্ছে। কেবল তাই না, যেহেতু বাংলাদেশে জাপান অর্থনৈতিক অঞ্চল তৈরি হয়েছে, সেখানে এরইমধ্যে যেসব জাপানি এখানে মিটার নিয়ে কাজ করছেন, তারা একটি কারখানা তৈরির জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

প্রতিমন্ত্রী বলেন, ভবিষ্যতে আরও গ্যাস মিটার কারখানা তৈরিতে বিভিন্ন জাপানি কোম্পানি ইচ্ছা প্রকাশ করেছে। জাপানি এসব কারখানাগুলোকে অর্থনৈতিকভাবে সহযোগিতা করার জন্য জাপানের বিভিন্ন ব্যাংক ধীরে ধীরে বাংলাদেশে প্রবেশ করছে। এই মুহূর্তে এটা আমাদের খুবই দরকার ছিল। কারণ আমাদের গ্যাস খাতে প্রায় ত্রিশ লাখ মিটার লাগবে।

তিনি বলেন, আমরা জাপান ব্যাংক ইন্টারন্যাশনাল কো-অপারেশন, বিশ্বব্যাংক ও এডিবি—এই তিন ব্যাংকের সহযোগিতায় আমরা চেষ্টা করছি, গ্যাস খাতে সমস্ত বিতরণে আমরা মিটার লাগাব, যাতে কোনো অপচয় না হয়। সাশ্রয়ী মূল্যে যাতে গ্রাহকরা জ্বালানি বিল দিতে পারেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৭৫৮ ঘণ্টা, নভেম্বর ২৭, ২০২৩
জিসিজি/এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।