ঢাকা, শুক্রবার, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ২৪ মে ২০২৪, ১৫ জিলকদ ১৪৪৫

বইমেলা

বইমেলায় সৈয়দ ইফতেখারের ছড়ার দেশে, যাচ্ছি ভেসে, হেসে হেসে’

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯৫৮ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০২৩
বইমেলায় সৈয়দ ইফতেখারের ছড়ার দেশে, যাচ্ছি ভেসে, হেসে হেসে’

ঢাকা:  অমর একুশে গ্রন্থমেলায় প্রকাশিত হয়েছে লেখক, সাংবাদিক, উপস্থাপক সৈয়দ ইফতেখারের বই ‘ছড়ার দেশে, যাচ্ছি ভেসে, হেসে হেসে’। শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বা যেকোনো সংগঠন, স্থানে ছন্দময় ছড়া আবৃত্তি করার জন্য বইটি বেশ উপযোগী বলছেন সংশ্লিষ্টরা।

১ ফেব্রুয়ারি মেলার প্রথম দিন থেকে বইটি পাওয়া যাচ্ছে ইন্তামিন প্রকাশনের স্টলে। স্টল নম্বর ২৫৯-২৬০-২৬১ (অন্যপ্রকাশ প্যাভিলিয়নের পাশে)। মূল্য মাত্র ১৫০ টাকা। এছাড়া বইটি মিলবে অনলাইনে বই বিক্রির কেন্দ্র রকমারি ও বইয়ের দুনিয়াতে।

সুদীর্ঘ দেড় দশক বিভিন্ন জাতীয় দৈনিক, সাপ্তাহিক, পাক্ষিক আর অনলাইন নিউজ পোর্টালে প্রকাশিত সেরা ছড়াগুলো নিয়ে বইটি সাজানো। বইটির ভূমিকা লিখেছেন জনপ্রিয় শিশুসাহিত্যিক, কবি, সাংবাদিক অদ্বৈত মারুত।

‘ছড়ার দেশে, যাচ্ছি ভেসে, হেসে হেসে’ বইয়ের প্রচ্ছদের তথ্য অনুযায়ী, ছোট-বড় সবার জন্য এই বই। সহজ-সরল ভাষায় লেখা। ছড়াগুলো পড়ে ফেলা সম্ভব এক নিঃশ্বাসে। লেখালেখির চর্চা যাদের আছে, তাদের জন্যও কার্যকরী বইটি। একটা সময় মানুষের মুখে মুখে ছড়ার বুলি ছিল, এখন আর সেদিন নেই। আবেদন হারাচ্ছে ছড়াও। কিন্তু বাঙালি হিসেবে ছড়া পড়া আমাদের ঐহিত্য নয় কি?

সৈয়দ ইফতেখার বাংলাদেশের টেলিভিশনের পরিচিত মুখ। সংবাদ, অনুষ্ঠান ও টকশো উপস্থাপনা করছেন বহু বছর ধরে। এছাড়া কাজ করে যাচ্ছেন বার্তাকক্ষে, সামলাচ্ছেন আন্তর্জাতিক বিভাগের দায়িত্ব। করেছেন নাটক, টেলিফিল্মে অভিনয়ও। এর আগে সৈয়দ ইফতেখারের দুটি যৌথ গ্রন্থ প্রকাশ পায়, যার একটি কবিতা ও একটি ছড়া।

ছড়ার মাধ্যমে ২০০৬ সাল থেকে জাতীয় পত্রপত্রিকায় লেখালেখি শুরু করেন সৈয়দ ইফতেখার। ধীরে ধীরে কলম, কি-বোর্ডের সীমানা বিস্তৃত করেন কবিতা, গল্প, উপন্যাস, ফিচার ও কলামে। পড়াশোনা সম্পন্ন করেন ইউনিভার্সিটি অব লিবারেল আর্টস বাংলাদেশ থেকে সাংবাদিকতা ও গণযোগাযোগে। পরে আরও উচ্চ শিক্ষা নেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে টেলিভিশন, ফিল্ম অ্যান্ড ফটোগ্রাফিতে। সাংবাদিকতার খণ্ডকালীন শিক্ষক হিসেবে কাজ করছেন। নিতান্তই শখের বসে নির্মাতা হিসেবে তৈরি করেছেন প্রামাণ্যচিত্র ও শর্ট ফিল্ম।

তরুণ বয়সে ২০০৭ সালে সাংবাদিকতায় হাতেখড়ি একুশে টেলিভিশনে। পরে কয়েকটি পত্রিকা ও অনলাইনে কাজ করেন প্রতিবেদক পদে। ২০১৪ সালে যুক্ত হন বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম-এ। বার্তাকক্ষে কাজের পাশাপাশি বিশেষ প্রতিবেদন তৈরি করে কাটে বছর চারেক। সেখান থেকে যোগ দেন শীর্ষ সংবাদভিত্তিক সময় টেলিভিশনে। ২০২১ সালের শেষে আন্তর্জাতিক বিভাগের প্রধান হিসেবে কাজ শুরু করেন দেশের প্রথম বিজনেস চ্যানেল 'এখন টেলিভিশনে'।

সৈয়দ ইফতেখার ভারতের ত্রিপুরা রাজ্যের রাজধানী আগরতলায় আন্তর্জাতিক সাহিত্য সম্মেলনে তরুণ লেখক হিসেবে সম্মাননায় ভূষিত হন ২০১৬ সালে।

বাংলাদেশ সময়: ২০০০ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১৮, ২০২৩
এসকেবি/আরআইএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।