ঢাকা, রবিবার, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ১৯ মে ২০২৪, ১০ জিলকদ ১৪৪৫

বইমেলা

মেলায় প্রিয় লেখকের বই খুঁজে সময় কাটাচ্ছেন পাঠকরা

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১১ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ৫, ২০২৪
মেলায় প্রিয় লেখকের বই খুঁজে সময় কাটাচ্ছেন পাঠকরা

ঢাকা: চলছ অমর একুশে বইমলো। আর এ বইমেলায় প্রিয় লেখকের বই খুঁজে সময় কাটাচ্ছেন পাঠকরা।

মেলার বিভিন্ন স্টলে লেখকদের নতুন ও পুরোনো বইয়ের সামনে ভিড় জমিয়েছেন তাদের ভক্তরা।

অমর একুশে বইমেলা মানেই এক সাহিত্যানুরাগী ও বইপ্রেমীদের জন্য জমজমাট আয়োজন। নতুন বইয়ের খোঁজে যেমন অপেক্ষায় থাকেন পাঠকরা, তেমনি বইয়ের পাতার ঘ্রাণ তাদের মন মাতিয়ে তোলে। মেলায় পাঠকদের বড় একটি অংশ আসে প্রিয় লেখকের বই খুঁজতে। আর প্রিয় লেখকের কোনো নতুন বই আসে, তাহলে তো কথাই নেই।

বইমেলার পঞ্চম দিন সোমবার (৫ ফেব্রুয়ারি) কর্মব্যস্ত দিনে কিছু স্টলে পাঠকদের ভিড় দেখা গেছে। সেসব স্টল প্যাভিলিয়নে পছন্দের লেখকের বই খুঁজছেন তারা।

সরেজমিনে দেখা যায়, মেলায় আমেজ কিছুটা হালকা মেজাজে থাকলেও অন্যধারা, অন্যপ্রকাশ, প্রথমা, ঐতিহ্য কিছুটা ভিড় ছিল। এসব স্টলে পাঠকরা খুঁজেছেন সাদাত হোসাইন, মৌরি মরিয়ম, হুমায়ূন আহমেদ, আনিসুল হক, আসিফ নজরুলের বই। এ ছাড়া অনেক পাঠকের পছন্দের লেখক রয়েছেন বলেও জানান প্রকাশকরা।

কথা হলে অন্যধারা প্রকাশনী সরকারি নির্বাহী ব্যবস্থাপক মাহমুদ হোসাইন বলেন, আমাদের এখানে মূলত পাঠকরা নিজেদের পছন্দের লেখকের বই খুঁজতে আসেন। এর মধ্যে রয়েছেন সাদাত হোসাইন। এ ছাড়া মনির হোসেনসহ আরও কয়েকজনও রয়েছেন। বইয়ের নাম নিয়েও অনেকে খুঁজতে আসেন। যেমন ইলমা বেহরোজের ‘পদ্মজা’ বইটি এখন ভালো যাচ্ছে।

ভূমি প্রকাশের স্বত্বাধিকারী জাকির হোসাইন বলেন, আমাদের এখানে বিষয় পছন্দ করেই পাঠক বেশি আসেন। তবে কিছু লেখক আছেন তারা যেদিন আসেন, সেদিন তাদের ভক্তরা বেশি আসেন। লেখক বই বিক্রিতে ভালো একটি প্রভাব রাখেন।

প্রথমা প্রকাশনের প্যাভিলিয়নে কথা হয় নাহিদ পারভেজের সঙ্গে। তিনি বলেন, আমি আসিফ নজরুল স্যারের লেখার খুব ভক্ত। স্যারের লেখা আমরা খুব ভালো লাগে। তার বই মানুষকে চিন্তা করতে শেখায়। ভিন্নভাবে ভাবতে শেখায়। এবার মেলায় স্যারের ‘আমি আবু বকর’ বইটি এসেছে, বইটি সংগ্রহ করলাম আজ। আর আমি মূলত লেখক দেখেই বই কিনতে স্বাচ্ছন্দবোধ করি।

অন্যধারা থেকে ইলমা বেহরোজের ‘পদ্মজা’ কিনেছেন মারিয়া হাসান। তিনি জানান, ইলমা বেহরোজ তার পছন্দের লেখিকা। সে জন্যই তার বই কিনেছেন। তিনি যদি মেলায় আসেন, তাহলে তার কাছ থেকে অটোগ্রাফ ও ছবি নিতে আবার আসবেন তিনি।

ইয়সামিন এসেছেন তার প্রিয়ে লেখক মৌরি মরিয়মের বই কিনতে। ‘নাইওরি’ নামে এ লেখিকার বই কিনেছেন তিনি। অপেক্ষা করছেন লেখকের ‘লগ্নজিতা’ বই কেনার। ইয়াসমিন বলেন, মৌরি মরিয়মের প্রতিটি বই পড়েছি। ‘প্রেমাতাল’, ‘মহাযাত্রা’ আমার অনেক পছন্দের বই।

শিক্ষার্থী নাহিদ পারভেজ বলেন, আমি সাদাত হোসাইনের বইয়ের একজন ভক্ত। তার নতুন বই ‘শঙ্খচূড়’ কিনতে আজ বইমেলায় এসেছি।

প্রকাশকরা বলছেন, একুশে বইমেলায় প্রিয় লেখকের বই খুঁজে পাঠকদের আগ্রহ প্রমাণ করে যে, বাংলাদেশে বইয়ের প্রতি ভালোবাসা এখনও বিদ্যমান।

বাংলাদেশ সময়: ২০১০ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ৫, ২০২৪
এইচএমএস/এমজে

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।