ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১২ বৈশাখ ১৪৩১, ২৫ এপ্রিল ২০২৪, ১৫ শাওয়াল ১৪৪৫

ক্রিকেট

এমন ‘রিভিউ সিস্টেম’ নেদারল্যান্ডসেও নেই, বললেন খুলনার পেসার

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, স্পোর্টস | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯৫০ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৭, ২০২৩
এমন ‘রিভিউ সিস্টেম’ নেদারল্যান্ডসেও নেই, বললেন খুলনার পেসার পল ফন মেকেরিন। ছবি: শোয়েব মিথুন

আধুনিক ক্রিকেটে ডিসিশন রিভিউ সিস্টেম (ডিআরএস) জড়িয়ে বেশ ভালোভাবেই। কিন্তু এবারের বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগে (বিপিএল) নেই এই প্রযুক্তি।

অদ্ভূতদূরে এডিআরএস নামে রিভিউ অবশ্য নিতে পারছে দলগুলো। যেখানে নেই হক-আই বা স্নিকো মিটার। এ নিয়ে তৈরি হয়েছে বিতর্ক।  

বিপিএলের তৃতীয় ম্যাচে এটা নিয়ে ঘটেছে অদ্ভূত এক ঘটনাও। সৌম্য সরকারকে শুরুতে আউট দেন আম্পায়ার। পরে তিনি রিভিউ নেওয়ার পরও সিদ্ধান্ত বহাল রাখা হয়। সৌম্য ক্ষোভ জানালে আবারও বদলে যায় আউটের সিদ্ধান্ত। এ নিয়ে সংবাদ সম্মেলনে কথা বলেছেন ম্যাচটিতে ঢাকা ডমিনেটরসের প্রতিপক্ষ খুলনা টাইগার্সের পেসার পল ফন মেকেরিন।  

তিনি বলেছেন, ‘প্রথমে তাকে (সৌম্য) আউট দেওয়া হয়। রিভিউ নেওয়ার পরেও আউট দেওয়া হয়। পরে আবার নট আউট! ব্যক্তিগতভাবে আমি নিশ্চিত নই এটি আসলে রিভিউ সিস্টেম কি না। কারণ এতে হক-আই বা অন্যান্য পরিপূর্ণ প্রযুক্তি নেই। এখন বিষয়টি এমনই। যেভাবে সিদ্ধান্ত নেওয়া হচ্ছে এটি স্বচ্ছতার বেশি সংশয় নিয়ে আসবে। আমার কাছে ব্যক্তিগতভাবে এমনই মনে হয়। আম্পায়ারের সিদ্ধান্তকে সম্মান জানান উচিত আমাদের। ’

তবে তখন আম্পায়ারদের সঙ্গে কী আলোচনা হচ্ছিল সে বিষয়ে কোনো ধারণা নেই মেকেরিনের, ‘আমি তখন লং অনে ছিলাম। তাই ঠিক জানি না তখন কী কথা হচ্ছিল বা কী হয়েছিল। তবে আমি দেখেছি অন্য ক্রিকেটাররা তেমন খুশি নয়। কারণ সে (সৌম্য) বিপজ্জনক খেলোয়াড়। আমাদের সামনে তাকাতে হবে এবং ম্যাচ জয়ের চেষ্টা করতে হবে। ’

বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্তেই খেলার অভিজ্ঞতা আছে মেকেরিনের। জন্ম ও বেড়ে উঠা দুটোই নেদারল্যান্ডসে। দেশটির জাতীয় দলের হয়ে খেলছেন নিয়মিত। গত কয়েক বছর ধরে খেলছেন কাউন্টি ক্রিকেটেও। কোথাও রিভিউর এমন প্রযুক্তি দেখেননি বলে জানিয়েছেন মেকেরিন।  

তিনি বলেছেন, ‘এই প্রথম দেখলাম এমন (রিভিউ সিস্টেম)। প্রথমে জানতামই না যে রিভিউ আছে। পরে গতকাল রাতে ম্যাচ দেখলাম একটা, ক্যাচের জন্য রিভিউ নিয়েছিল; কিন্তু কোনো স্নিকো ছিল না, এটা শুধু ক্যামেরা দিয়েই দেখা হয়। তাই বিশেষত সুক্ষ্ম ক্যাচগুলোর ক্ষেত্রে, এই প্রযুক্তি দিয়ে বের করা কঠিন। আমি এটার নিয়ন্ত্রণে নেই। আমার মনে হয় ক্রিকেটার, স্টাফ, আম্পয়ারের এটার সঙ্গে মানিয়ে নিতে হবে। দিনশেষে, আমাদের কেবল আম্পায়ারের সিদ্ধান্তকে সম্মান জানাতে হবে। ’ 

ক্রিকেটার হিসেবে বিষয়টি কতটুকু হতাশার জানতে চাইলে মেকেরিন বলেন, ‘এটা খুব হতাশাজনক। ম্যাচের ভুলগুলো কমাতেই আপনি ডিআরএস সিস্টেম আনবেন। যুক্তরাজ্যে ঘরোয়া লিগে আমরা এটা ব্যবহার করি না। নেদারল্যান্ডসে বেড়ে উঠেছি, ওখানেও নেই। সহযোগি দেশগুলোতেও নেই। আপনাকে মুভ অন করতে হবে। দিনশেষে সেরা দলই ম্যাচ জিতবে। ’

বাংলাদেশ সময় : ১৯৫০ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০৭, ২০২৩
এমএইচবি/এএইচএস 
 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।