ঢাকা, মঙ্গলবার, ৯ বৈশাখ ১৪৩১, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১৩ শাওয়াল ১৪৪৫

ক্রিকেট

‘বিসিবি সবসময়ই আমাদের জন্য শতভাগ চেষ্টা করে’

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, স্পোর্টস | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৯৫৮ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৩, ২০২৩
‘বিসিবি সবসময়ই আমাদের জন্য শতভাগ চেষ্টা করে’ ছবি: উজ্জ্বল ধর

চট্টগ্রাম থেকে : আউট হয়েও ছাড়তে চাননি মাঠ। সাজঘরে ফেরার সময় দেখিয়েছিলেন প্রতিক্রিয়াও।

পরে অবশ্য এনামুল হক বিজয়কে জরিমানাও গুনতে হয়েছে। ম্যাচ ফির ১৫ শতাংশ জরিমানা হয় তার। ওই প্রতিক্রিয়া দেখানোর পর প্রথমবারের মতো শুক্রবার সংবাদ মাধ্যমের মুখোমুখি হয়েছেন এনামুল হক বিজয়।  

চট্টগ্রামে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের বিপক্ষে ফরচুন বরিশালের ২৬ রানে জয়ের পর দলের প্রতিনিধি হয়ে সংবাদ সম্মেলনে এসেছিলেন তিনি। বিজয় বলছেন, হতাশা থেকেই সেদিন দেখিয়েছেন প্রতিক্রিয়া। মিরপুরে গত মঙ্গলবার রংপুর রাইডার্সের বিপক্ষে ম্যাচে বরিশালের ইনিংসের চতুর্থ ওভারে সিকান্দার রাজার বলে বিজয়কে এলবিডব্লিউয়ের আবেদনে আউট দেননি আম্পায়ার।  

রিভিউ নিলে অবশ্য বদলে যায় সিদ্ধান্ত, আউট হন বিজয়। পরিপূর্ণ ডিআরএস না থাকলেও, এডিআরএস দেখেই মাঠের আম্পায়ারের সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করার উপযুক্ত মনে করেন টিভি আম্পায়ার। আউট হওয়ার পর আম্পায়ারদের সঙ্গে কথা বলেন বিজয়। মাঠ ছাড়ার সময় বাউন্ডারি সীমানায় বিজ্ঞাপনী টবলেরোনে ব্যাট দিয়ে সজোরে মারেন তিনি।

শুক্রবার এডিআরএস নিয়ে বিজয় বলেন, ‘বিসিবি সবসময়ই আমাদের জন্য শতভাগ দিয়ে চেষ্টা করে। আমরাও সেটা চেষ্টা করি। তবে একটা টুর্নামেন্ট চালাতে গেলে কিছু না কিছু ঘাটতি থাকে। প্রতিবারই হয় বা এগুলো উন্নতি করার চেষ্টা করে। ক্রিকেটার হিসেবেই স্বাভাবিকভাবেই আমরা সেরা জিনিসটা আশা করব। যখন বিসিবি এটার শতভাগ দিয়ে চেষ্টা করবে বা আমাদের ফ্যাসিলিটি দেবে, আমরা মেনে নেই। যদি না থাকে এগুলো নিয়ে মন খারাপের কিছু নেই। ’

ওই ঘটনা নিয়ে তিনি বলেন, ‘অবশ্যই একটা তাৎক্ষনিক প্রতিক্রিয়া আসে, হতাশা কাজ করে। সবাই খালি চোখে কিন্তু দেখেছে আমারটা আউট হয় না। এটা কিন্তু নরমাল। কিন্তু আউট দিয়ে দিয়েছে। টপ-অর্ডার ব্যাটার হিসেবে আমার খারাপ লাগাই স্বাভাবিক। তবে ওই মুহূর্তে একটা প্রতিক্রিয়া এসেছে। আমি মনে করি পরবর্তীতে যদি এরকম হয়, চেষ্টা করব মেনে নেওয়ার। ’ 

‘সাধারণত একটা খেলোয়াড় যখন আন্তর্জাতিক ম্যাচ খেলে তখন কিন্তু অনেক সুযোগ পায় না। হয়তো দুইটা সুযোগ পাই, তিনটা সুযোগ পাই। সবার জন্য এক সুযোগ নয়। বিপিএলও কিন্তু আমাদের জন্য অনেক বড় সুযোগ। তো এখানে ১-২টা ম্যাচ চলে যাওয়া আমাদের জন্য অনেক হতাশার। আমি মনে করি, প্রতিটা ম্যাচই আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ, সেটা যে ম্যাচই হোক। ’

এ ধরনের আউটে হতাশার কথা জানিয়ে বিজয় বলেন, ‘সেই হিসেবে একটা হতাশা কাজ করে যে কী হলো, আউট হয়ে গেলাম। নিজে নিজে তো আউট হচ্ছিই, তার মধ্যে যদি আবার এগুলো হয় তাহলে তো খারাপ লাগবেই। সেই হিসেব করে আমার কাছে মনে হয়েছে ওরকম একটা প্রতিক্রিয়া এসেছে। তবে আমার কাছে মনে হয় ক্রিকেটার হিসেবে এটা হওয়া উচিত নয়। ’

বাংলাদেশ সময় : ১৯৫৭ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৩, ২০২৩
এমএইচবি/এএইচএস 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।