ঢাকা, রবিবার, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ১৯ মে ২০২৪, ১০ জিলকদ ১৪৪৫

ক্রিকেট

আমরা এত খারাপ ব্যাটার না: শান্ত

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট, স্পোর্টস  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৩৩৫ ঘণ্টা, এপ্রিল ৩, ২০২৪
আমরা এত খারাপ ব্যাটার না: শান্ত

পুরস্কার বিতরণী মঞ্চে মেহেদী হাসান মিরাজকে নিয়ে আগ্রহ সবার। তিনি এই টেস্টের বাংলাদেশ দলের ব্যতিক্রমদের একজন- যার ব্যাট থেকে রান এসেছে।

দুই ম্যাচ সিরিজের কোনোটিতেই ব্যাটাররা ভালো করতে পারেননি। এ নিয়ে হতাশার কথাও শোনা যাচ্ছে চারদিকে।  

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে দুই টেস্টের প্রথম তিন ইনিংসের কোনোটিতেই দুইশ রানও করতে পারেনি বাংলাদেশ। শেষ ইনিংসে এসে মিরাজের ৮১ রানের ইনিংসে ভর করে করেছে ৩১৮। ব্যাটিং ব্যর্থতার দায় মেনে নিলেও এত খারাপ ব্যাটার তারা, সেটি স্বীকার করতে রাজি নন অধিনায়ক নাজমুল হোসেন শান্ত।  

বুধবার চট্টগ্রামে সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘অবশ্যই দরকার আছে। প্রথমে যেটা বলব, যে দুই ম্যাচে যেভাবে আমরা ব্যাট করেছি এত খারাপ ব্যাটার আমরা না। আমাদের সক্ষমতা আরও ভালো আমার মনে হয়। টেকনিক্যালি, মেন্টালি আরও বেশি উন্নতি করার জায়গা আছে বলে মনে করি। ’

‘পুরো সিরিজে আমরা ভালো ব্যাটিং করিনি। অজুহাত দেওয়ার কোনো সুযোগ নেই। অনেক কথা বলা যেতে পারে। কিন্তু দল হিসেবে আমরা দুই ম্যাচের চার ইনিংসে ভালো ব্যাটিং করিনি। ’ 

শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে বাংলাদেশ টেস্ট ম্যাচ খেলতে নেমেছে মাঝখানে দুই দিনের বিরতি দিয়ে। ক্রিকেটারদের বিপিএলের পর ব্যস্ততা ছিল ঢাকা প্রিমিয়ার লিগ ক্রিকেটে। প্রস্তুতির ঘাটতির প্রশ্ন তাই আসছে বারবারই। শান্ত অবশ্য বলছেন, নতুন বাস্তবতার সঙ্গেই মানিয়ে নিতে হবে তাদের।

তিনি বলেন, ‘এটা একটা কারণ হতে পারে (প্রস্তুতির ঘাটতি)। কিন্তু ব্যক্তিগতভাবে আমি তা বলতে চাই না কারণ বর্তমান সময়ে যেভাবে খেলা চলছে, আমাদের তার সঙ্গে মানিয়ে নিয়েই খেলতে হবে। যারা তিন ফরম্যাট খেলে তাদেরকে অ্যাডজাস্ট করে খেলতে হবে। ’

‘যারা তিন ফরম্যাট খেলে না তাদের হয়তো একটু বাড়তি প্রস্তুতি নেওয়ার সুযোগ থাকে। সামনে আমাদের যত খেলা আছে, এভাবেই আমাদের প্রস্তুতিটা নিতে হবে। কীভাবে ৩ ফরম্যাটে অ্যাডজাস্ট করে খেলতে পারি সে চিন্তা করে অনুশীলন, প্রস্তুতি নেওয়া উচিত। ’

শুধু কম রানই নয়, ব্যাটারদের মানসিকতা নিয়েও প্রশ্ন এসেছে। তাদের শট খেলার ধরন নিয়েও তৈরি হয়েছে সমালোচনার। কথা উঠছে টেস্ট মানসিকতা নিয়েও। শান্ত অবশ্য বলছেন, অভিজ্ঞতা বাড়লে এই দল ভালো করবে সামনে।

তিনি বলেন, ‘একদমই তরুণ দল কিন্তু, বেশ কিছু তরুণ খেলোয়াড় কিন্তু খেলছে এই দলে। খুব বেশি অভিজ্ঞ না। খেলতে খেলতে হয়তো ওই অভ্যাসটা চলে আসবে। এখানে যারা আছে প্রত্যেকের ওই ইচ্ছাটা আছে, আগ্রহ আছে কীভাবে আরও বেটার ক্রিকেটটা খেলতে পারে। আমার মনে হয় আরও সময় গেলে এই দলটা আস্তে আস্তে ভালোভাবে সিদ্ধান্ত নিতে পারছে। ’ 

বাংলাদেশ সময় :
এমএইচবি
 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।