ঢাকা, মঙ্গলবার, ১ শ্রাবণ ১৪৩১, ১৬ জুলাই ২০২৪, ০৯ মহররম ১৪৪৬

ক্রিকেট

ইংল্যান্ডকে ‘বাদ করিয়ে দিলে’ নিষিদ্ধ হতে পারেন মার্শ

স্পোর্টস ডেস্ক  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৩১১ ঘণ্টা, জুন ১৩, ২০২৪
ইংল্যান্ডকে ‘বাদ করিয়ে দিলে’ নিষিদ্ধ হতে পারেন মার্শ

টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ইংল্যান্ড। কিন্তু এবারের আসরে তারা সুপার এইট খেলবে কি না তা নির্ভর করছে অনেক যদি-কিন্তুর ওপর।

তবে অস্ট্রেলিয়া শেষ ম্যাচে স্কটল্যান্ডকে এমনভাবে হারাতে চাইবে, যাতে ইংল্যান্ডের সুপার এইটে ওঠার পথ বন্ধ হয়ে যায়। সংবাদ সম্মেলনে এমনই ঈঙ্গিত দিলেন অজি পেসার জশ হ্যাজেলউড।

ইচ্ছাকৃতভাবে অস্ট্রেলিয়া এমনটা যদি করেই থাকে, তাহলে বিপদে পড়বেন তাদের অধিনায়ক মিচেল মার্শ। আইসিসির আচরণ বিধির ২.১১ ধারা অনুযায়ী, অযথা কৌশলগত কারণে আইসিসি ইভেন্টের পুল ম্যাচে কোনো দল যদি পয়েন্ট টেবিলে আরেকটি দলকে সমস্যায় ফেলতে ইচ্ছাকৃতভাবে ম্যাচে কোনো হেরফের করে থাকে, তাহলে তা লেভেল টু অপরাধ হিসেবে ধরা হবে। এবং এর জন্য দায়ী থাকবেন অধিনায়ক। এমন অপরাধের সর্বনিম্ন শাস্তি ম্যাচ ফি'র ৫০ শতাংশ জরিমানা। তবে সর্বোচ্চ শাস্তি হিসেবে দুই ম্যাচের নিষেধাজ্ঞার সঙ্গে চারটি ডিমেরিট পয়েন্ট দেওয়া হবে অধিনায়ককে।

বি গ্রুপ থেকে ৩ ম্যাচে ৬ পয়েন্ট নিয়ে আগেই সুপার এইট নিশ্চিত করে ফেলেছে অস্ট্রেলিয়া। শেষ ম্যাচে স্কটল্যান্ডের মুখোমুখি হবে তারা। ৩ ম্যাচে ৫ পয়েন্ট নিয়ে টেবিলের দুইয়ে আছে স্কটল্যান্ড। রানরেটও বেশ পোক্ত (+২.১৬৪)। অন্যদিকে ইংল্যান্ড প্রথম ম্যাচে মুখোমুখি হয় স্কটিশদের বিপক্ষে। কিন্তু সেই ম্যাচ বৃষ্টিতে ভেসে যাওয়ায় ঝামেলা বয়ে আসে তাদের কপালে। এরপর চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী অস্ট্রেলিয়ার সামনে স্রেফ উড়ে গেছে তারা। ২ ম্যাচে ১ পয়েন্টের -১.৮০০ রানরেট নিয়ে তাদের অবস্থান চারে। সুপার এইটে যেতে হলে বাকি দুই ম্যাচে (ওমান ও নামিবিয়া) জয়ের বিকল্প নেই জস বাটলারের দলের। একইসঙ্গে অস্ট্রেলিয়ার কাছে স্কটল্যান্ডের বিশাল হারের দিকেও তাকিয়ে থাকতে হবে।

কিন্তু এমনটা কি হবে? 

হ্যাজেলউড বলেন, ‘এই টুর্নামেন্টের কোনো না কোনো পর্যায়ে হয়তো ইংল্যান্ডের মুখোমুখি হতে হবে...নিজেদের দিনে তারা অন্যতম সেরা দলগুলোর একটি। টি–টোয়েন্টিতে তাদের বিপক্ষে আমরা ভুগেছিও। তাই টুর্নামেন্ট থেকে তাদের বিদায় করাটা আমাদের জন্য তো ভালো বটেই, সম্ভবত অন্যদের জন্যও।  ব্যাপারটা মজার হবে। দল হিসেবে আমরা মনে হয় না এর আগে এমন অবস্থানে পড়েছি। তাই ব্যাপারটা নিয়ে আলোচনা হোক বা না হোক, আমরা এ ম্যাচের মতোই খেলার চেষ্টা করব। এটা (ইংল্যান্ডকে বাদ করিয়ে দেওয়া) অবশ্য আমার ওপর নয়, বাকিদের ওপর নির্ভর করছে। ’

অজি পেসারের এই মন্তব্যকে স্রেফ রসিকতা হিসেবে ধরছেন ইংল্যান্ডের হেড কোচ ম্যাথু মট। অস্ট্রেলিয়া এমনটা করবে না বলেই আশা করছেন তিনি।

মট বলেন, ‘আমি জশকে বেশ ভালোভাবেই চিনি এবং তার সততা সম্পর্কেও জানা আছে আমার। তার উপস্থিত বুদ্ধি খুবই ভালো এবং আমি আশা করি, সে এটা বেশ মজার ছলেই বলেছে। আমার কাছে একদমই মনে হয় না তারা এভাবে খেলবে। অস্ট্রেলিয়ায় বেড়ে উঠেছি বলেই বলছি, তারা প্রতিটি ম্যাচে জেতার ইচ্ছা নিয়ে নামে। আমি নিশ্চিত, তারা এগিয়ে থাকবে। আমি খুব করে আশা করছি, একজন খুবই ভালো লোক কোনো চিন্তাভাবনা ছাড়াই এমন মন্তব্য করেছে, যে কি না রসিকতা করেছে। '

বাংলাদেশ সময়: ০৩০৭ ঘণ্টা, জুন ১৩, ২০২৪

এএইচএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।