ঢাকা, সোমবার, ২১ ফাল্গুন ১৪৩০, ০৪ মার্চ ২০২৪, ২২ শাবান ১৪৪৫

অর্থনীতি-ব্যবসা

নন-কটন পোশাকে স্থানান্তরে সহযোগিতা করতে পারে চীন

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২১০৬ ঘণ্টা, মার্চ ৪, ২০২৩
নন-কটন পোশাকে স্থানান্তরে সহযোগিতা করতে পারে চীন

ঢাকা: বাংলাদেশ এবং চীনের মধ্যে, বিশেষত পোশাক খাতে দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য সম্প্রসারণে সহযোগিতা বাড়ানোর ওপর জোর দিয়েছেন বাংলাদেশ পোশাক প্রস্তুতকারক ও রপ্তানিকারক সমিতির (বিজিএমইএ) সভাপতি ফারুক হাসান।

শনিবার (৪ মার্চ) বিজিএমইএ কমপ্লেক্সে সিসিপিআইটি-টেক্সের সাব-কাউন্সিল অব টেক্সটাইল ইন্ডাস্ট্রির ভাইস চেয়ারম্যান ঝাং তাও-এর সঙ্গে সৌজন্য সাক্ষাৎকালে তিনি এ কথা বলেন।

বিজিএমইএ সভাপতি বলেন, আমরা চীনকে একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশীদার হিসেবে দেখি, কারণ দেশটির বাংলাদেশের কটন থেকে নন-কটন এবং হাই-ভ্যালু পোশাকে স্থানান্তরিত হওয়াকে সহযোগিতা করার মতো শক্তিশালী টেক্সটাইল শিল্প এবং অন্যান্য কাঁচামাল শিল্প রয়েছে।

বৈঠকে পারস্পরিক সহযোগিতার ক্ষেত্রগুলো চিহ্নিত করতে এবং সামনের সুযোগগুলোকে কাজে লাগাতে উভয় পক্ষ কীভাবে একসাথে কাজ করতে পারে, তা নিয়ে আলোচনা করেন তারা। ম্যান-মেইড ফাইবার, ডাইস, ক্যামিকেলস, টেক্সটাইল যন্ত্রপাতি এবং অন্যান্য কাঁচামালের জন্য চীন কিভাবে বাংলাদেশের ক্রমবর্ধমান চাহিদা মেটাতে পারে, সে বিষয় নিয়েও আলোচনা হয়।

বিজিএমইএ সভাপতি ফারুক হাসান বলেন, চীনের বাজারে শুল্কমুক্ত প্রবেশাধিকার থাকায় বাংলাদেশের পোশাক রপ্তানির জন্য চীন একটি সম্ভাবনাময় গন্তব্যস্থল। বাংলাদেশ এবং চীনের জন্য বিশাল সুযোগ রয়েছে, যা উভয় পক্ষের জন্য উইন-উইন পরিস্থিতি তৈরি করবে।

তিনি দুই দেশের পোশাক ও টেক্সটাইল ব্যবসায়ীদের কাছাকাছি আনার প্রয়োজনীয়তার ওপর জোর দেন, যাতে করে তারা তাদের পারস্পরিক চাহিদা এবং চাহিদা পূরণের উপায়গুলো চিহ্নিত করতে পারে।

সিসিপিআইটি-টেক্সকে এ বিষয়ে সহযোগিতা করার আহবান জানিয়ে ফারুক হাসান বলেন, এতে করে বাংলাদেশ এবং চীন উভয়েই অবশ্যই উপকৃত হবে।

বাংলাদেশ সময়: ২১০৫ ঘণ্টা, মার্চ ০৪, ২০২৩
এমকে/এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।